‘মানুষের সাংস্কৃতিক অধিকার নিশ্চিত করা জরুরি’|186819|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৪ ডিসেম্বর, ২০১৯ ০১:২৪
সাংস্কৃতিক জোটের বিজয় উৎসব শুরু
‘মানুষের সাংস্কৃতিক অধিকার নিশ্চিত করা জরুরি’
নিজস্ব প্রতিবেদক

‘মানুষের সাংস্কৃতিক অধিকার নিশ্চিত করা জরুরি’

এদেশের সকল মানুষের সাংস্কৃতিক উন্নয়ন না ঘটলে, রাষ্ট্রে যত উন্নয়ন কর্মসূচিই হাতে নেওয়া হোক - সবই ভেস্তে যাবে বলে মন্তব্য করেছেন রামেন্দু মজুমদার।

শুক্রবার কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের চার দিনব্যাপী বিজয় উৎসবের উদ্বোধনী বক্তৃতায় রামেন্দু মজুমদার বলেন, ‘পদ্মা সেতু কতটা দৃশ্যমান হলো তার চেয়ে বেশি জরুরি আমাদের মানুষের সাংস্কৃতিক উন্নয়ন কতটা হলো। আমরা চাই, সম্পদের সুষম বণ্টন হোক। অর্থনীতির বৈষম্য যেন কমে আসে। কেবল অনুষ্ঠানের মধ্যে সীমাবদ্ধ থাকলে হবে না, মানুষের সাংস্কৃতিক চেতনাকে জাগ্রত করতে হবে। মানুষের সাংস্কৃতিক অধিকার নিশ্চিত করা জরুরি।’

‘বিজয়ের অঙ্গীকার, সাংস্কৃতিক অধিকার’ স্লোগান নিয়ে  শুরু হয়েছে সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের আয়োজনে এই বিজয় উৎসব। বিকেল চারটায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে বেলুন উড়িয়ে বিজয় উৎসবের উদ্বোধনের পর আলোচনা সভায় সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন মুক্তিযোদ্ধা ও সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব নাসির উদ্দিন ইউসুফ, পথ নাটক পরিষদের সভাপতি মান্নান হীরা। উপস্থিত ছিলেন জাতীয় কবিতা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক ড. মোহাম্মদ সামাদ, গণসংগীত সমন্বয় পরিষদের সভাপতি ফকির আলমগীর, আহাম্মেদ গিয়াস, আক্তারুজ্জামান প্রমুখ। বিজয় উৎসবের ঘোষণাপত্র পাঠ করেন আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক আহকাম উল্লাহ। স্বাগত বক্তৃতা দেন সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক হাসান আরিফ।

এর আগে অনুষ্ঠানের শুরুতে শহীদ মিনারের বেদিতে ফুল দিয়ে এবং বীর শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। সম্মেলক কণ্ঠে ‘জাতীয় সংগীত’ ও ‘আমরা সবাই বাঙালি’ গান দুটো পরিবেশন করেন শিল্পীরা। এছাড়া আলোচনার ফাঁকে স্পন্দনের শিল্পীরা ‘বিজয় নিশান উড়ছে ওই’ গানের সঙ্গে নৃত্য পরিবেশন করেন। অনুষ্ঠানের দ্বিতীয় পর্বে সংগীত পরিবেশন করা হয় এবং পথ নাটক পরিবেশন করে সুবচন নাট্য সংসদ।

সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ জানান, ১৪ থেকে ১৬ ডিসেম্বর শহীদ মিনারসহ ধানমন্ডির রবীন্দ্র সরোবর, রায়েরবাজার বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ, দনিয়া ও মিরপুরে প্রতিদিন উৎসবের কর্মসূচি হিসেবে বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবেশনা অনুষ্ঠিত হবে । ১৬ ডিসেম্বর বিজয় দিবসের দিন সকাল ১০টায় কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার থেকে বিজয় শোভাযাত্রা বের করা হবে।