এক নারী এগিয়ে আসায় বেঁচে গেল পথের কুকুর|190835|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৪ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:৪৮
এক নারী এগিয়ে আসায় বেঁচে গেল পথের কুকুর
সানমুন আহমেদ

এক নারী এগিয়ে আসায় বেঁচে গেল পথের কুকুর

শীতকালীন বৃষ্টিতে বৈরী আবহাওয়ার কবলে পড়ে অসুস্থ হয়ে যাওয়া মালিকবিহীন একটি রাস্তার কুকুরের জীবন বাঁচালেন হাসিনা বেগম নামে এক নারী।

রাজধানীর কেরানীগঞ্জের আগানগর ইস্পাহানি এলাকায় শুক্রবার কুকুরটিকে বাঁচাতে তাদের এই এগিয়ে আসার ছবি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়লে বেশ প্রশংসিত হয়।

স্থানীয়রা জানান, বেশ কয়েক দিন ধরে কুকুরটি অসুস্থ হয়ে রাস্তায় পড়েছিল। হাসিনা বেগম নামের এক নারী প্রথমে কুকুরটিকে বাঁচাতে এগিয়ে আসেন। পরে তার সঙ্গে যোগ দেন মো. কালাম নামে একজন চাকরিজীবী। তারা উভয়েই এই এলাকার বাসিন্দা।

আবদুর রহমান নামে একজন দেশ রূপান্তরকে বলেন, কয়দিন ধরে কুকুরটিকে এই রাস্তায় দেখছি। আমরা ভেবে ছিলাম কুকুরটি মারা গেছে। কিন্তু আজ দেখলাম আমাদের এলাকার হাসিনা খালা কুকুরটিকে পানি খাওয়াচ্ছেন। সঙ্গে কিছু খাবার দিচ্ছেন। সঙ্গে সঙ্গে কালাম নামের আরেক জনকে দেখলাম এগিয়ে আসতে।

সরেজমিন দেখা যায়, কুকুরটি শীত ও বৃষ্টিতে চলাচলের শক্তি হারিয়ে পড়ে আছে। হাসিনা, কালামসহ আশপাশের কিছু মানুষ কুকুরটির চার পাশে আগুন জ্বালিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন, যেন তাপ পেয়ে কুকুরটি উঠতে পারে।

কালাম বলেন, জুম্মার নামাজ শেষ করে এসে দেখি হাসিনা আপা কুকুরটিকে পানি খাওয়াচ্ছে। আমি দেখে বললাম কুকুরটা না মরে গেছে। পরে তিনি বললেন কুকুরটি এখনো বেঁচে আছে। আমি সঙ্গে সঙ্গে আগুন জ্বালিয়ে চার পাশ গরম করে কুকুরটির গায়ে তাপ সঞ্চালনের চেষ্টা করি। কুকুরটির জমে যাওয়া পা ধরে টেনে টেনে তাকে দাঁড় করানোর চেষ্টাও করি।  

হাসিনা বেগম দেশ রূপান্তরকে বলেন, আমার কাছে খুব খারাপ লাগল কুকুরটিকে দেখে। প্রথমে ভাবছিলাম হয়তো কুকুরটি বেঁচে নেই। কিন্তু দেখলাম কুকুরটি তাকাতে পারে। তারপর পানি খাওয়ালাম।

তিনি বলেন, কুকুরতো আর কথা বলতে পারে না। অসহায় প্রাণী সে। আমার এগিয়ে আসা দেখে আরও কয়েকজন এগিয়ে আসলো। এখন কুকুরটি আগের থেকে অনেকটা ভালো আছে।