সৌর সেচ পাম্পের অব্যবহৃত বিদ্যুৎ ক্রয়ে আগ্রহ সরকারের|191575|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৭ জানুয়ারি, ২০২০ ১০:২৫
সৌর সেচ পাম্পের অব্যবহৃত বিদ্যুৎ ক্রয়ে আগ্রহ সরকারের
অনলাইন ডেস্ক

সৌর সেচ পাম্পের অব্যবহৃত বিদ্যুৎ ক্রয়ে আগ্রহ সরকারের

সেচ পাম্পের জন্য চালানো সৌর প্ল্যান্ট থেকে অব্যবহৃত বিদ্যুৎ কিনতে একটি খসড়া নীতি চূড়ান্ত করেছে টেকসই ও নবায়নযোগ্য জ্বালানি কর্তৃপক্ষ (স্রেডা)।

অফিস ও শিল্প কারখানার ভবনের ছাদে স্থাপন করা সৌর প্ল্যান্ট থেকে বিদ্যুৎ কেনার ক্ষেত্রে সরকারের সাফল্য থেকে নতুন ধারণাটি নেওয়া হয়েছে।

স্রেডার কর্মকর্তাদের বরাত দিয়ে বার্তা সংস্থা ইউএনবি জানায়, সম্প্রতি বিভিন্ন স্টেকহোল্ডারের মতামত ও অভিজ্ঞতার নিরিখে একটি গাইডলাইন চূড়ান্ত করেছে। গাইডলাইনটি বিদ্যুৎ বিভাগে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপনের অপেক্ষায় আছে।

নবায়নযোগ্য জ্বালানি সম্পর্কিত নীতি প্রস্তুত করার কাজে নিয়োজিত সংস্থাটির এক সহকারী পরিচালক বলেন, “আগামী এক সপ্তাহের মধ্যে আমরা চূড়ান্ত গাইডলাইনটি বিদ্যুৎ বিভাগে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করতে পারবো।”

স্রেডা এরই মধ্যে গাইডলাইনটি কীভাবে কাজ করবে এবং প্রয়োগে কোনো প্রযুক্তিগত বা আর্থিক সমস্যা আছে কিনা তা দেখার জন্য কুষ্টিয়ায় একটি পাইলট প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে।

পরিকল্পনার অনুযায়ী পাম্প চালকেরা স্থানীয় বিতরণ গ্রিড লাইন ব্যবহার করে তাদের অব্যবহৃত বিদ্যুৎ জাতীয় গ্রিডে বিক্রয় করতে পারবেন।

কর্মকর্তারা জানান, বর্তমানে সরকার স্রেডার তৈরি নেট মিটারিং গাইডলাইনের আওতায় বিভিন্ন ভবনের ছাদে স্থাপন করা সোলার কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ কিনছে। তবে কিছু প্রযুক্তিগত ও আর্থিক বাধার কারণে কৃষকেরা এ ধরনের সুবিধা থেকে বঞ্চিত হচ্ছেন।

বিদ্যুৎ বিভাগের সর্বশেষ পরিসংখ্যান বলছে, ১৭৯ শিল্প গ্রাহকদের কাছ থেকে বিভিন্ন বিপণন সংস্থা ৪.২৫ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কিনছে।

স্রেডার এক কর্মকর্তা বলেন, দুটি প্রধান কারণে সরকার সৌর-চালিত সেচ পাম্প থেকে বিদ্যুৎ কিনতে যাচ্ছে। প্রথমটি হলো সেচ পাম্প পরিচালনার জন্য স্থাপিত সৌর প্ল্যান্ট থেকে উৎপাদিত বিদ্যুতের সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত করা এবং দ্বিতীয় উদ্দেশ্যটি হলো সৌর চালিত সেচ পাম্প প্রকল্পগুলোকে বাণিজ্যিকভাবে টেকসই করা।

স্রেডার কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, বর্তমানে সারা দেশে প্রায় ৩৪ লাখ হেক্টর জমির জন্য ১৩ লাখ ৪০ হাজার ডিজেলচালিত সেচ পাম্প রয়েছে। সরকার এই পাম্পগুলোকে সৌর চালিত পাম্প দিয়ে প্রতিস্থাপনের মাধ্যমে সেচ খাত থেকে ১৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন নিশ্চিত করবে।

কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, এখন পর্যন্ত এক হাজার ১০০টি ডিজেল চালিত পাম্পে সৌর-চালিত পাম্প প্রতিস্থাপন করা হয়েছে।

রাষ্ট্রমালিকানাধীন আর্থিক প্রতিষ্ঠান ইনফ্রাস্ট্রাকচার ডেভেলপমেন্ট কোম্পানি লিমিটেড (ইডকল) প্রকল্পগুলোতে অর্থায়ন করেছে ও কিছু এনজিও এবং বাণিজ্যিক সংস্থা ত্রিপক্ষীয় চুক্তিতে সৌর-চালিত পাম্প স্থাপন করছে।

এই উদ্যোগকে পুরোপুরি বাণিজ্যিক করার জন্য পাম্প চালকদের কিছু সহায়তা প্রয়োজন উল্লেখ করে এই কর্মকর্তা বলেন, প্রকল্পগুলো যদি বাণিজ্যিকভাবে সফল প্রমাণিত করা যায় তবে বহু লোক সৌর-চালিত পাম্প প্রতিস্থাপনে উৎসাহিত হবেন।