এক থেরাপিতে সব ক্যানসার সারানোর ‘যুগান্তকারী আবিষ্কার’|194334|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২১ জানুয়ারি, ২০২০ ১০:২৩
এক থেরাপিতে সব ক্যানসার সারানোর ‘যুগান্তকারী আবিষ্কার’
অনলাইন ডেস্ক

এক থেরাপিতে সব ক্যানসার সারানোর ‘যুগান্তকারী আবিষ্কার’

প্রফেসর অ্যান্ড্রু সিওয়েল

এক থেরাপি দিয়ে সব ধরনের ক্যানসার সারানোর চিকিৎসা পদ্ধতি আবিষ্কারের দাবি করেছেন কার্ডিফ ইউনিভার্সিটির গবেষকেরা। টি-সেলের নতুন এই পদ্ধতিকে তারা ‘সর্বজনীন’ এবং ‘যুগান্তকারী’ ক্যানসার থেরাপি বলছেন।

টি-সেল থেরাপিতে আক্রান্ত ইমিউন সেল দূর করা হয় কিংবা সংশোধন করা হয়। এরপর সেটি রোগীর রক্তে ফিরে এসে ক্যানসার সেলকে ধ্বংস করে।

প্রচলিত চিকিৎসা ব্যবস্থায় সবচেয়ে পরিচিত হচ্ছে ‘CAR-T’, যেটি একেক জন রোগীর জন্য একেক রকম।

এই চিকিৎসার অসুবিধা হচ্ছে খুব অল্প পরিসরে ক্যানসারের জন্য কাজ করে। শক্ত টিউমারের ক্ষেত্রে আবার ভালো কাজও করে না।

কিন্তু বিজ্ঞানীরা এখন নতুন টি-সেল রিকপটার বা টিসিআর ঘরানার টি-সেল পদ্ধতি খুঁজে পেয়েছেন। এই পদ্ধতিতে শরীরের সুস্থ সেল বা কোষ এড়িয়ে প্রায় সব ধরনের ক্যানসার সারানো যাবে।

গবেষণা দলের প্রধান প্রফেসর অ্যান্ড্রু সিওয়েল তাদের এই আবিষ্কারকে ‘খুবই অস্বাভাবিক’ বলে মন্তব্য করেছেন, ‘বিষয়টি আমাদের কাছে ভীষণ অস্বাভাবিক লেগেছে। কিন্তু আমরা সফল হয়েছি। আশা করছি নতুন টিসিআর প্রত্যেক মানুষের ক্যানসার সারাবে।’

‘এখনকার দিনে টিসিআর-ভিত্তিক থেরাপিগুলো অল্প পরিসরে কাজ করে।’

নেচার ইমিউনোলজিতে প্রকাশিত ওই গবেষণায় সিওয়েল দাবি করেন, ‘কেউ কোনোদিন ভাবেনি নতুন এই পদ্ধতি আবিষ্কার করা সম্ভব হবে।’

কার্ডিফের এই চিকিৎসক জানান, নতুন টিসিআরের সাহায্যে টি-সেল দিয়ে তারা ফুসফুস, ত্বক, রক্ত, কোলন, স্তন, হাড়, প্রোস্টেট, ডিম্বাশয়, কিডনি এবং জরায়ু ক্যানসারের কোষ ধ্বংস করেছেন।

ল্যাবে পরীক্ষা করলেও এখনো রোগীকে এটি দিয়ে চিকিৎসা করা হয়নি।

মানব শরীরের ইমিউন বা প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে বলা হয় ইনফেকশন ঠেকানোর ন্যাচারাল ডিফেন্স। এটি ক্যানসার কোষকেও আক্রমণ করে।

ইমিউন সিস্টেম স্বাভাবিকভাবে কোন প্রক্রিয়ায় টিউমারকে আক্রমণ করে সেটি জানার চেষ্টা করছিলেন বিজ্ঞানীরা।

তারা মানুষর রক্তে ওই টি-সেল দেখেছেন, যাকে বলা হয় ইমিউন সেল। শীরর থেকে ক্ষতিকর কিছু দূর করত হবে কি না, এই সেল সেটি শনাক্ত করতে পারে।