ছড়িয়েছে ১৩ দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪১|195236|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২০ ০০:০০
ছড়িয়েছে ১৩ দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪১
প্রতিদিন ডেস্ক

ছড়িয়েছে ১৩ দেশে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪১

চীনে রহস্যময় উহান করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ৪১ জনে দাঁড়িয়েছে। ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা গতকাল শনিবার পর্যন্ত ১ হাজার ২৮৭তে পৌঁছেছে বলে দেশটির ন্যাশনাল হেলথ কমিশনের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে এএফপি।

দেশটিতে চন্দ্রবর্ষ উদযাপনের প্রথম দিনেই গতকাল প্রেসিডেন্ট শি চিনপিং সরকারি কর্মকর্তাদের সঙ্গে এক বিশেষ বৈঠকে বসেন। বৈঠক শেষে প্রেসিডেন্ট সতর্কতা জানিয়ে বলেন, প্রাণঘাতী নতুন এই ভাইরাস খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে। দেশ মারাত্মক পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে বলেও মন্তব্য করেন শি চিনপিং। নিউমোনিয়াসদৃশ প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা হু হু করে বাড়ছে। দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার পর ইউরোপ-আমেরিকা এমনকি দক্ষিণ এশিয়ার নেপালেও ভাইরাসটিতে আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলেছে। মহামারী ঠেকাতে বিভিন্ন দেশের স্বাস্থ্য কর্র্তৃপক্ষের তুমুল লড়াইয়ের মধ্যে চীনসহ ১৩ দেশে নতুন এ করোনাভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা ১ হাজার ৩০০ ছাড়িয়েছে।

নিহতদের মধ্যে ভাইরাসটির বিরুদ্ধে লড়াইরত এক চিকিৎসকও আছেন। হুবেইর উহানে জিনহুয়া হাসপাতালের ৬২ বছর বয়সী চিকিৎসক লিয়াং উডংয়ের মৃত্যুর খবর জানিয়ে টুইট করেছে চীনের গ্লোবাল টেলিভিশন নেটওয়ার্ক। উহানেই প্রাণঘাতী এ ভাইরাসটির প্রথম দেখা মেলে। সংক্রমণের বিস্তৃতি ঠেকাতে কয়েক দিন ধরে শহরটিকে কার্যত বিচ্ছিন্ন করে রাখা হয়েছে। উহানের পরিস্থিতি সামাল দিতে চীনের সেনাবাহিনীর একটি চিকিৎসক দলকে পাঠানো হয়েছে।

চীনের বাইরে থাইল্যান্ড, ভিয়েতনাম, সিঙ্গাপুর, জাপান, দক্ষিণ কোরিয়া, তাইওয়ান, নেপাল, ভারত, ফ্রান্স, মালয়েশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র ও অস্ট্রেলিয়ায়ও আক্রান্ত ব্যক্তির সন্ধান পাওয়া গেছে। উহান থেকে ১৯ জানুয়ারি আসা এক চীনা নাগরিকের শরীরে করোনাভাইরাসটির উপস্থিতি পাওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া। মেলবোর্নের হাসপাতালে চিকিৎসাধীন বয়স ৫০-এর ঘরে থাকা ওই ব্যক্তির পরিস্থিতি স্থিতিশীল বলেও জানিয়েছে তারা। অস্ট্রেলিয়ার প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রেন্ডন মারফি এক বিবৃতিতে বলেন, ‘চীনের বাইরেও যে পরিমাণ আক্রান্তের খোঁজ মিলছে, আর উহান থেকে অস্ট্রেলিয়ায় আসা মানুষের সংখ্যা বিবেচনায় এটা অসম্ভব নয় যে আমরা এ ধরনের আরও কিছু আক্রান্ত ব্যক্তির খোঁজ পাব।’

এদিকে গত শুক্রবার সন্ধ্যায় ফরাসি কর্র্তৃপক্ষ ইউরোপে নতুন করোনাভাইরাসটিতে আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তির উপস্থিতির খবর নিশ্চিত করে। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল অ্যান্ড প্রিভেনশন জানিয়েছে, তারা প্রাণঘাতী এ ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে ৬৩ জনের পরীক্ষা করছেন। এর মধ্যে দুই ব্যক্তির শরীরে ভাইরাসটির উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়া গেছে। আক্রান্ত দুই ব্যক্তিই উহান থেকে যুক্তরাষ্ট্রে এসেছিলেন, বলেছেন তারা।

চীনে পড়তে যাওয়া এক শিক্ষার্থীর দেহে ভাইরাসটির উপস্থিতি পাওয়ার কথা জানিয়েছে নেপাল। গত শুক্রবার এক ঘোষণায় দেশটির স্বাস্থ্য কর্র্তৃপক্ষ এ কথা জানায়। শনিবার এক সংবাদ সম্মেলনে মালয়েশীয় কর্র্তৃপক্ষও তিন নাগরিকের শরীরে ভাইরাসটির উপস্থিতি শনাক্তের কথা জানায়।