কোনো ধর্মই সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে না : গণপূর্তমন্ত্রী|195406|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৭ জানুয়ারি, ২০২০ ০১:১০
কোনো ধর্মই সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে না : গণপূর্তমন্ত্রী
নিজস্ব প্রতিবেদক

কোনো ধর্মই সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে না : গণপূর্তমন্ত্রী

ফাইল ফটো

কোনো ধর্মই সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে না বলে মন্তব্য করেছেন গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

রবিবার রাজধানীতে বাংলাদেশ ব্রাহ্ম সমাজের ১৯০তম মাঘোৎসবে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ধর্ম ব্যবহার করে কেউ যেন সাম্প্রদায়িকতা ছড়াতে না পারে। ব্যবধানের দেয়াল তুলতে না পারে। সেজন্য ধর্মের মৌলিক অমৃতবাণী ছড়িয়ে দিতে হবে। হাজার হাজার বছর মন্দিরের পাশে মসজিদ, মন্দিরের পাশে গির্জা, আজান, ঘণ্টা, উলু ধ্বনি আমাদের বিভাজন করতে পারেনি। সেই সম্প্রীতি, সৌহার্দ্য ও আন্তরিকতার নিবিড় বন্ধন নানা কারণে কিছুটা ক্ষয়িষ্ণু হয়ে গেছে। আমরা সেখানে আবার ফিরে যেতে চাই।’

উৎসবে অন্যান্যের মধ্যে ব্রাহ্ম সমাজের কার্যনির্বাহী সংসদের সদস্যবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, চিত্তকে নির্মল করার আহ্বান ধারণ করতে পারলে বিশ্ব ব্রহ্মান্ডে ধর্মের নামে উচ্ছ…লতা, উগ্রতা ও সাম্প্রদায়িকতা থাকে না। সব ধর্মের মর্মবাণী এক। মত ও পথের ভিন্নতা থাকলেও গন্তব্য সবার একই। সব ধর্মাবলম্বীদের উচ্ছ্বাসের শব্দ একইভাবে উচ্চারিত। বেদনার কষ্টে সবার ক্রন্দনের ভাষাও একই। নৈবেদ্য লাভের প্রচেষ্টা সবার এক। সব ধর্মগ্রন্থের মৌলিক কথাও একই। কোনো ধর্ম অপরাধের কথা বলে না, সাম্প্রদায়িকতার কথা বলে না।

তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে ইসলামের নামে অন্য ধর্মের নারীদের ধর্ষণ, তাদের সম্পদ লুণ্ঠন, জোর করে ধর্মান্তরিত করা বা দেশত্যাগে বাধ্য করা হয়েছিল। কিন্তু ইসলাম সেটা সমর্থন করে না। আবার বিশ্বের কিছু অঞ্চলে সনাতন ধর্মের নাম নিয়ে কেউ কেউ উগ্রভাবে অন্য ধর্মের মানুষের ওপর হায়েনার মতো ঝাঁপিয়ে পড়ে। যারা এ কাজ করে তারা সঠিকভাবে সনাতন ধর্ম বা ইসলাম ধর্ম বোঝে না। মিয়ানমারে বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের একটি শ্রেণি গেরুয়া পোশাক পরেও হিংস্র দানবের মতো আচরণ করে। এরা মনুষ্যত্বের নির্যাস সঠিকভাবে জীবনে প্রবেশ করাতে পারেনি।