চলতি বছর বিদেশে ৫০ হাজার কর্মী পাঠানোর টার্গেট: প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী|196530|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ২১:০৪
চলতি বছর বিদেশে ৫০ হাজার কর্মী পাঠানোর টার্গেট: প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী
চট্টগ্রাম ব্যুরো

চলতি বছর বিদেশে ৫০ হাজার কর্মী পাঠানোর টার্গেট: প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী

চলতি বছর বিদেশে ৫০ হাজার কর্মী পাঠানোর টার্গেট রয়েছে বলে জানিয়েছেন প্রবাসীকল্যাণ মন্ত্রী ইমরান আহমদ। শনিবার চট্টগ্রাম সার্কিট হাউসে ‘বৈদেশিক কর্মসংস্থানের জন্য দক্ষতা ও জনসচেতনতা’ শীর্ষক সেমিনারে তিনি এসব কথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, সরকার প্রবাসীদের উপযুক্ত ও দক্ষ জনশক্তি হিসেবে গড়ে তোলার জন্য দেশের ৬৪ জেলায় ইতিমধ্যে ৭০টি টেকনিক্যাল টিচিং সেন্টার (টিটিসি) নির্মাণ করেছে। এছাড়া ৪০টি টিটিসির নির্মাণকাজ চলমান রয়েছে এবং আরও ৬০টি প্রকল্পের ডিপিপিতে প্রস্তুত হচ্ছে। সেখানে জাপানিজ, কোরিয়ান, আরবী, ইংরেজি, ক্যান্টনিজ ভাষায় প্রশিক্ষণ দেয়া হচ্ছে। এছাড়া নারী কর্মীদের সুরক্ষা ও প্রশিক্ষণ ব্যবস্থা সংস্কার করা হয়েছে।

ইমরান আহমদ বলেন, জাতির পিতা যখন স্বাধীনতার ডাক দিয়েছেন তখন মানুষ ছিল সাড়ে ৭ কোটি, এখন ১৬ কোটি। এই বিশাল জনসংখ্যাকে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ জনসম্পদে পরিণত করতে হবে। উন্নয়ন হবে মানবসম্পদের। তবেই সার্থক হবে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্ন।

দালালচক্রের হাত থেকে প্রবাসী শ্রমিকদের রক্ষা করার তাগিদ দিয়ে মন্ত্রী আরও বলেন, প্রবাসী শ্রমিকদের আয় দেশের জন্য একটা বড় আশীর্বাদ। গত অর্থবছরে প্রবাসী শ্রমিকরা র‌্যামিট্যান্স পাঠিয়েছেন ১৬.৫০ বিলিয়ন ডলার। সরকারকে প্রবাসীরাই সাহস জুগিয়েছেন পদ্মা সেতু, বঙ্গবন্ধু ইকোনমিক জোন, পায়রাবন্দর, কর্ণফুলী টানেলের মতো বড় বড় উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ করতে।

সেমিনারে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেন, কারিগরি জ্ঞান অর্জন করলে বিদেশে উপযুক্ত মজুরি পাওয়া সম্ভব। এ ক্ষেত্রে ভাষাগত দক্ষতা বেশি দরকার। নারী কর্মী বিদেশে গেলে তারা বেশি হয়রানির শিকার হয়। তাদের অনেকে সেখানে ঠিকভাবে গৃহকাজ করতে পারে না। সে জন্য গৃহকাজেরও প্রশিক্ষণ দেওয়া প্রয়োজন। তবে বিদেশে শ্রমিক পাঠানোর আগে সে দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা জানা দরকার।

চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার মো. আবদুল মান্নানের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য রাখেন বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. আহম্মদ মনীরুছ সালেহীন, যুগ্ম সচিব মোজাফফর আহমদ, চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক মো. ইলিয়াস হোসেন প্রমুখ।