ভোটে জনগণের অনীহা দেখে যে প্রশ্ন জেগেছে ইসি মাহবুবের মনে|197088|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৭:১৭
ভোটে জনগণের অনীহা দেখে যে প্রশ্ন জেগেছে ইসি মাহবুবের মনে
নিজস্ব প্রতিবেদক

ভোটে জনগণের অনীহা দেখে যে প্রশ্ন জেগেছে ইসি মাহবুবের মনে

ফাইল ছবি

ঢাকার দুই সিটির নির্বাচনে কম ভোটার উপস্থিতি প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশনার (ইসি) মাহবুব তালুকদার বলেছেন, নির্বাচনবিমুখতা গণতন্ত্রহীনতার নামান্তর।

মঙ্গলবার নির্বাচন ভবনে নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের ডেকে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘ঢাকার দুই  সিটি করপোরেশন নির্বাচনে অস্বাভাবিক কম ভোট পড়াকে স্বাভাবিক বলেই মনে হয়। এটা গণতন্ত্রের জন্য অশনিসংকেত হতে পারে, কিন্তু এটাই বাস্তবচিত্র।’

তিনি বলেন, ‘জনগণ নির্বাচন বা ভোটের প্রতি নিরাসক্ত হলে নানা প্রকার ব্যাখ্যা বা অপব্যাখ্যা দিয়ে এই বাস্তব অবস্থার চিত্রটি খণ্ডন করা যাবে না।’

ঢাকা সিটি করপোরেশন নির্বাচনে উত্তরে ভোট পড়েছে ২৫ দশমিক ৩০ শতাংশ ও দক্ষিণে ২৯ দশমিক ০০২ শতাংশ। গড়ে দুই সিটিতে ভোট পড়েছে ২৭ দশমিক ১৫ শতাংশ। ক্ষমতাসীন দলের দুই মেয়র প্রার্থী মাত্র ১৫- ১৭ শতাংশ জনসমর্থন মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন।

এ প্রসঙ্গ টেনে মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘বাংলাদেশে নির্বাচন ও গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ কী- এই প্রশ্নের সামনে আমাদের দাঁড় করিয়েছে ঢাকার দুই সিটি করপোরেশন নির্বাচন। নির্বাচনবিমুখতা গণতন্ত্রহীনতার নামান্তর।’

তিনি প্রশ্ন রেখে বলেন, ‘এই নির্বাচনে ভোটের প্রতি জনগণের অনীহা দেখে মনে প্রশ্ন জাগে- জাতি কি ক্রমান্বয়ে গণতন্ত্রহীনতার দিকে এগিয়ে যাচ্ছে? ভোটকেন্দ্রে বিরোধী পক্ষের দৃশ্যমান অনুপস্থিতি নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করেছে। তাই নির্বাচন প্রক্রিয়ার সংস্কার ও নির্বাচন ব্যবস্থাপনার পরিবর্তন অপরিহার্য হয়ে উঠেছে।’

এই নির্বাচন কমিশনার আরও বলেন, ‘তফসিল ঘোষণার পর থেকে নির্বাচন শেষ হওয়া পর্যন্ত যেভাবে আচরণবিধি লঙ্ঘনের ঘটনা ঘটেছে, তাতে আচরণবিধি রাখা না রাখা সমান। আচরণবিধি লঙ্ঘনের অভিযোগগুলো যাচাইয়ের কোনো লক্ষণ পরিলক্ষিত হয়নি। আচরণবিধি না মানা এবং এ বিষয়ে ব্যবস্থা গৃহীত না হওয়া ফ্রি স্টাইল নির্বাচনের মূল উপাদান।’

তিনি বলেন, ‘দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে সকল রাজনৈতিক দল আলোচনার টেবিলেই নির্বাচন ও গণতন্ত্রের ভবিষ্যৎ নিশ্চিত করতে পারে। তা না হলে অনিশ্চিত গন্তব্যের পথে পা বাড়াবে বাংলাদেশ।’

মাহবুব তালুকদার বলেন, ‘নির্বাচন ব্যবস্থা ব্যর্থ হলে ক্ষমতা হস্তান্তরের স্বাভাবিক পথ রুদ্ধ হয়ে যায়, সেই অবস্থা কোনোভাবেই কাম্য নয়।’

গত ১ ফেব্রুয়ারি ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। অনিয়ম, কারচুপি এবং এজেন্ট ও ভোটারদের বাধা দেওয়ার অভিযোগ এনে বিরোধী দল বিএনপি ফলাফল প্রত্যাখ্যান করে পরদিন হরতাল পালন করে।