৩৮ জেলায় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত|198962|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:৩৪
৩৮ জেলায় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত
নিজস্ব প্রতিবেদক

৩৮ জেলায় প্রাথমিকের শিক্ষক নিয়োগ স্থগিত

সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে সহকারী শিক্ষক নিয়োগ কার্যক্রমে নারী কোটা সঠিকভাবে মানা হয়নি অভিযোগে হাইকোর্টে রিট আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আরও ৩৮ জেলায় নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়েছে।

এর আগে গত মাসেও একই কারণে অন্তত ২০টি জেলায় নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করা হয়। এতে পুরো নিয়োগ কার্যক্রমই অনেকটা অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

বৃহস্পতিবার প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের পরিচালক (পলিসি ও অপারেশন) খান মো. নুরুল আমিন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে ৩৮ জেলায় নিয়োগ স্থগিতের নির্দেশনা জারি করা হয়েছে।

নির্দেশনায় বলা হয়েছে, সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে রাজস্ব খাতভুক্ত সহকারী শিক্ষক নিয়োগ ২০১৮-এর ফলাফলে ৬০ শতাংশ নারী কোটা সংরক্ষণ হয়নি উল্লেখ করে হাইকোর্টে ৩৮ জেলার প্রার্থীরা রিট আবেদন করেছেন। এর পরিপ্রেক্ষিতে আদালত আগামী ৬ মাসের জন্য নিয়োগ কার্যক্রম স্থগিত করেছে। মামলাজনিত কারণে এসব জেলায় শিক্ষক নিয়োগ পরীক্ষায় চূড়ান্তভাবে নির্বাচিত প্রার্থীদের যোগদান, কর্মশালা ও পদায়ন নির্দেশনা অনিবার্য কারণবশত স্থগিত করা হলো।

আদালতে বিষয়টি সুরাহা হলে পরবর্তীতে তাদের যোগদান-পদায়নের সময় জানিয়ে দেওয়া হবে। এ নির্দেশনা মাঠপর্যায়ের কর্মকর্তাদের বাস্তবায়ন করতে নির্দেশনাও দেওয়া হয়েছে।

এদিকে সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষক নিয়োগ-২০১৮ পরীক্ষায় চ‚ড়ান্তভাবে নির্বাচিতদের ২০-২৫ জানুয়ারির মধ্যে ডাকযোগে নিয়োগপত্র পাঠানো হয়। আগামী ১৬ ফেব্রম্নয়ারি যোগদান ও ১৭-১৯ ফেব্রম্নয়ারি তাদের প্রশিক্ষণ কর্মশালা হওয়ার কথা ছিল। কিন্তু এই নির্দেশনার পর সব কার্যক্রম স্থবির হয়ে পড়ল।

প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর (ডিপিই) গত বছরের ৩০ জুলাই সহকারী শিক্ষক নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করার পর সারা দেশ থেকে ২৪ লাখ ৫ জন প্রার্থী আবেদন করেন। চারটি ধাপে পরীক্ষা হওয়ার পর ৫৫ হাজার ২৯৫ জন প্রার্থী পাস করেন। মৌখিক পরীক্ষায় উত্তীর্ণ ১৮ হাজার ১৪৭ জনকে নিয়োগের জন্য সুপারিশ করা হয়।