রিয়াল-বার্সা ব্যবধান ১ পয়েন্ট|199715|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০০:০০
রিয়াল-বার্সা ব্যবধান ১ পয়েন্ট
ক্রীড়া ডেস্ক

রিয়াল-বার্সা ব্যবধান ১ পয়েন্ট

ইনজুরির কারণে ৮১ দিনে রিয়াল মাদ্রিদের ১৬টি ম্যাচ মিস করেছেন ইডেন হ্যাজার্ড। চোট কাটিয়ে ফিরলেন মাঠে। কিন্তু সেদিনই সেলতা ভিগোর সঙ্গে এগিয়ে গিয়েও ম্যাচ জিততে পারল না রিয়াল। সান্তিয়াগো বার্নাব্যুতে রবিবার ২-২ গোলে ম্যাচটি ড্র হওয়ায় দ্বিতীয় স্থানের বার্সেলোনার সঙ্গে তাদের পয়েন্ট ব্যবধান কমে এসেছে ১ পয়েন্টে। অথচ গেল আগস্টেই এই সেলতাকেই ৩-১ গোলে উড়িয়ে লিগ শুরু করেছিল স্প্যানিশ জায়ান্টরা।

পেনাল্টি থেকে গোল করায় রিয়াল নির্ভর করত ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোর ওপর। রোনালদো চলে যাওয়ার পর এই দায়িত্ব ভালোভাবেই পালন করে আসছেন অধিনায়ক সার্জিও রামোস। রবিবারও গোল করলেন তিনি। কিন্তু দল জিততে পারল না। রবিবার রিয়ালের ডেরায় এসে ৭ মিনিটেই ফিওদর স্লভের গোলে এগিয়ে যায় সেলতা। এগিয়ে গেলেও বল দখলের লড়াইয়ে তারা ছিল পিছিয়ে। প্রথমার্ধে তাই অনেক আক্রমণ করেও আর গোল শোধ করতে পারেনি রিয়াল। বিরতির পর ৫১ মিনিটে মার্সেলোর মাইনাস থেকে বক্সের ভেতর বল পেয়ে সমতায় ফেরান টনি ক্রুস। ৬৩ মিনিটে হ্যাজার্ডকে সেল্টার গোলকিপার ফাউল করলে পেনাল্টি পায় রিয়াল। পেনাল্টি থেকে নিখুঁত শটে দলকে এগিয়ে দেন রামোস। ১২ বার নেওয়া পেনাল্টি শটের ১২টিতেই গোল করলেন তিনি। জয় পাবেন ধরে নিয়েই হয়তো ম্যাচের ৭৩ মিনিটে হ্যাজার্ড, ৮১ মিনিটে ক্রুস এবং ৮৪ মিনিটে গ্যারেথ বেলকে তুলে নেন জিদান। এরপরই ঘটে বিপত্তি, ৮৫ মিনিটে সেল্টাকে সমতায় ফেরান সামি মিনা।

শিরোপা লড়াই জমিয়ে দিল লাৎজিও : ইন্তার মিলানকে ২-১ গোলে হারিয়ে সিরি আ’র শিরোপা লড়াই জমিয়ে দিল লাৎজিও। রবিবারই এ ম্যাচের আগে ব্রেসসিয়াকে ২-০ গোলে হারানোয় জুভেন্তাস ৫৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষস্থান ধরে রেখেছে। ৫৬ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে লাৎজিও। আর ৫৪ পয়েন্টেই থাকা ইন্তার নেমে গেছে তৃতীয় স্থানে। রবিবার ২৪ রাউন্ডের খেলা শেষ হয়েছে।

১০ গোল দেওয়া যেত নয়্যার : নিজেদের ম্যাচ জিতে বুন্দেসলিগায় ২৪ ঘণ্টার জন্য শীর্ষে উঠেছিল আরবি লিপজিগ। কিন্তু বায়ার্ন মিউনিখ নিজেদের ম্যাচে ৪-১ গোলে এফসি কোলোনকে হারিয়ে শীর্ষস্থান পুনরুদ্ধার করে। ম্যাচের পর বায়ার্নের অধিনায়ক ও গোলকিপার ম্যানুয়েল নয়্যার বলেন, আরও বেশি গোল করতে পারত তার দল। তবে বেশি গোল না হওয়া সম্পর্কে টমাস মুলার বলেছেন, ‘যখন বড় লিড পেয়ে গেলাম, আমরা একটু স্বস্তিতে ছিলাম। প্রতিপক্ষ সেটার সুযোগ নিয়ে গোল করে। তবে এগিয়ে থাকলেও চ্যাম্পিয়ন্স লিগে এমন ভুল করা যাবে না।’ ২২ ম্যাচ শেষে বায়ার্নের পয়েন্ট ৪৬, লিপজিগের ৪৫।