প্রচারে নিয়ন্ত্রণ আনতে ৬ প্রার্থীর সঙ্গে ইসির বৈঠক রবিবার|200652|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ০১:২২
উপনির্বাচন ঢাকা- ১০
প্রচারে নিয়ন্ত্রণ আনতে ৬ প্রার্থীর সঙ্গে ইসির বৈঠক রবিবার
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রচারে নিয়ন্ত্রণ আনতে ৬ প্রার্থীর সঙ্গে ইসির বৈঠক রবিবার

নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা দূষণমুক্ত করার চিন্তা থেকে পোস্টার ও মাইকিংহীন প্রচার ব্যবস্থার উদ্যোগ অথবা বিকল্প কোন পদ্ধতি খোঁজার লক্ষ্যে ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে পাঁচ দফা প্রস্তাব নিয়ে ৬ প্রার্থীর সঙ্গে বৈঠকে বসবে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রবিবার রিটার্নিং কর্মকর্তার কার্যালয়ে প্রার্থীদের সঙ্গে বসে ‘লেমিনেটেড পোস্টার ও শব্দ দূষণ’ মুক্ত নির্বাচনী প্রচারে প্রার্থীদের সঙ্গে সমঝোতা করতে চায় সাংবিধানিক প্রতিষ্ঠান ইসি। সংস্থাটির কর্মকর্তারা এই চুক্তিকে ‘জেন্টেলম্যান অ্যাগ্রিমেন্ট’ হিসেবে দেখছেন। 

ঢাকার দুই সিটির (উত্তর ও দক্ষিণ) ভোটের প্রচারে লেমিনেটেড পোস্টার ও মাত্রাতিরিক্ত শব্দ দূষণ নিয়ে সমালোচনার পর কমিশন পোস্টারের ‘বিকল্প’ কোন ব্যবস্থার খোঁজে এই বৈঠকের উদ্যোগ নেয় কমিশন। বৈঠকে ইসির প্রস্তাবের পাশাপাশি প্রার্থীদের কোনো প্রস্তাবনা থাকলেও তা পর্যালোচনা করা হবে। তবে মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার সময় দূষণ রোধে ৫টি প্রস্তাব গত বুধবার ৬ প্রার্থীকে দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা জিএম সাহতাব উদ্দিন।  

তিনি দেশ রূপান্তরকে বলেন, এই চুক্তি যদি বাস্তবায়ন হয় তাহলে তা দেশের নির্বাচনী ব্যবস্থায় মাইলফলক হয়ে থাকবে। সর্বসম্মতিতে সবার মত নিয়ে এই চুক্তি করার আশা প্রকাশ করেন।

ইসির পাঁচ প্রস্তাব হলো- অনুমোদিত মাত্রায় মাইক বা শব্দযন্ত্র ব্যবহার করতে হবে; অনুমোদিত ক্যাম্পে পোস্টার, ব্যানার, ডিজিটাল ডিসপ্লে স্থাপন করা যাবে। পোস্টার ঝুলাতে হবে ইসি নির্ধারিত ২১ জায়গায়; একেকটি জায়গায় পালা করে মাইকিং চালাতে হবে; শোভাযাত্রা-পদযাত্রা সীমিত করতে হবে; প্রত্যেক প্রার্থীকে নির্দিষ্ট দিন ও সময় নির্ধারণ করে দেওয়া হবে; জনসভার জন্য এক বা একাধিক জায়গা নির্দিষ্ট কর দেওয়া হবে; পর্যায়ক্রমে অনুমোদন নিয়ে সভা করতে হবে; তোরণ, ফুটপাতে ক্যাম্প, রাস্তায় পথসভা করা থেকে বিরত থাকতে হবে।