প্রচারণায় পোস্টার বন্ধে বিধি পরিবর্তন চান সিইসি |200754|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৩:৩৮
প্রচারণায় পোস্টার বন্ধে বিধি পরিবর্তন চান সিইসি
নিজস্ব প্রতিবেদক

প্রচারণায় পোস্টার বন্ধে বিধি পরিবর্তন চান সিইসি

ভবিষ্যতে প্রচার-প্রচারণায় পোস্টারের ব্যবহার বন্ধে জাতীয় পর্যায়ে বিধি পরিবর্তন করার আশা প্রকাশ করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কে এম নূরুল হুদা।

জনদুর্ভোগের কথা বিবেচনায় নিয়ে ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনের নির্বাচনী প্রচার নিয়ন্ত্রণ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)।

রবিবার রাজধানীর আগারগাঁওয়ে অবস্থিত নির্বাচন প্রশিক্ষণ ইনস্টিটিউট (ইটিআই) ভবনে এ লক্ষ্যে ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে অংশ নেওয়া প্রার্থীদের সঙ্গে বসে ইসি। সেখানে ইসির পক্ষ থেকে পোস্টার নিয়ন্ত্রণে প্রস্তাব তোলেন সিইসি। এই প্রস্তাবের সমর্থন দেন অংশ নেওয়া প্রার্থীরা।

প্রার্থীদের সমর্থন নেওয়ার পর সিদ্ধান্তগুলো তুলে ধরে সিইসি কে এম নূরুল হুদা বলেন, ‘প্রতিটি ওয়ার্ডে একটা করে অফিস রাখতে পারবেন। এর বাইরে একেবারেই মাইক বাজাতে পারবেন না।’

পোস্টারের বিষয়ে তিনি বলেন, ‘ঢাকা-১০ আসনের উপনির্বাচনে নির্বাচন কমিশন নির্ধারিত ২১ জায়গায় পোস্টার টানাতে পারবেন। আর প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে অফিস করবেন, সেখানে পোস্টার টানাতে পারবেন। এর বাইরে কোথাও বা রাস্তা, অলি-গলিতে পোস্টার টানাতে পারবেন না। লেমিনেটেড পোস্টার টাঙাতে পারবেন না।’

ঢাকা-১০ আসনের জন্য গাড়ি চলাচল উন্মুক্ত করলাম। শুধুমাত্র মোটরসাইকেল চলবে না বলেও জানান সিইসি।

তিনি বলেন, ‘ঢাকা-১০ আসনের ভোটের দিন অফিস খোলা থাকবে। আমরা সার্কুলার জারি করে দেব, যাতে অফিস থেকে গিয়ে কর্মকর্তারা ভোট দিতে পারেন।

নূরুল হুদা বলেন, ‘প্রতিটি দল ৫টি শোভাযাত্রা করতে পারবে। যেখানে সুবিধা সেখানে শোভাযাত্রা করতে পারবেন।’

তবে এই নির্বাচনে কোনো জনসভা করা যাবে না বলেও জানান সিইসি।

আগামীতে নির্বাচনী আচরণবিধি পরিবর্তন করে এই বিধিগুলো যোগ করা হবে। এ বিষয়ে সিইসি বলেন, ‘জাতীয় পর্যায়ের জন্য আমরা বিধিই পরিবর্তন করে ফেলব।’

তফসিলের অনুযায়ী, ঢাকা-১০ আসনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়ন সংগ্রহ করলেও ৬ জন মনোনয়নপত্র জমা দেন।

এদিকে ঢাকা ১০ আসনের রিটার্নিং কর্মকর্তা ৬ প্রার্থীরই মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেন।