১২ ছেড়ে ১০ এ কেন কৃষ্ণা!|200982|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৯:৩৫
১২ ছেড়ে ১০ এ কেন কৃষ্ণা!
তোফায়েল আহমেদ

১২ ছেড়ে ১০ এ কেন কৃষ্ণা!

মাঠে ও প্র্যাকটিস জার্সিতে কৃষ্ণা রানী সরকার।

বাংলাদেশ নারী ফুটবলের অন্যতম তারকা কৃষ্ণা রানী সরকার। তিনি জাতীয় দলে খেলেন ১২ নম্বর জার্সিতে। ২০১৪ সালে মাত্র ১৩ বছর বয়সে পাকিস্তান সাফ দিয়ে তার জাতীয় দলে অভিষেক। সে আসরেই নিজের পছন্দে জার্সি নম্বর ১২ বেছে নিয়েছিলেন কৃষ্ণা।

এরপর থেকে জাতীয় দলে নির্দিষ্ট এ জার্সিতেই দেখা গেছে কৃষ্ণাকে। এ ছাড়া বিভিন্ন বয়সভিত্তিক, অলিম্পিক দলেও এই জার্সিতেই খেলেছেন দেশের অন্যতম সেরা এই নারী ফরোয়ার্ড।

২০১৫ সালে কৃষ্ণার নেতৃত্বে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৪ আঞ্চলিক ফুটবলের শিরোপা জয় করে বাংলাদেশ। সেবার ভিন্ন জার্সিতে খেললেও ঢাকায় ২০১৬ সালে এএফসি অনূর্ধ্ব-১৬ ফুটবলের বাছাইয়ে ১২ নম্বর জার্সিতেই খেলেন অধিনায়ক কৃষ্ণা।

তার নেতৃত্ব বাংলাদেশ পা রাখে মূল পর্বে। পরের বছর এশিয়া সেরা আটের মঞ্চে কৃষ্ণাকে দেখা যায় চিরচেনা ১২ নম্বর জার্সিতেই। পাকিস্তান সাফের পর আরো দুটি সাফ চ্যাম্পিয়নশিপও কৃষ্ণা খেলেছেন এই ১২ নম্বর জার্সি গায়ে জড়িয়ে। সংখ্যাটার সঙ্গে তার দীর্ঘ দিনের সম্পর্ক।

তবে চলতি নারী ফুটবল লিগে কৃষ্ণা তার জার্সি নম্বর বদলে ফেলেছেন। ১২ নম্বর নয়, বসুন্ধরা কিংসের কৃষ্ণাকে পাওয়া যাচ্ছে ১০ নম্বর জার্সিতে।

নারী লিগে বসুন্ধরা কিংস দলে বলতে গেলে তারার মেলা। জাতীয় দলের সব পজিশনের সেরা তারকাদের দলে ভিড়িয়েছে করপোরেট দলটি। কৃষ্ণার মতো জাতীয় দলে নির্দিষ্ট জার্সিতে খেলেন সানজিদা (৭), মৌসুমী (৮), মাসুরা পারভীন (৫), মারিয়া মান্দারাও (১৫)। প্রথমবার লিগ খেলতে গিয়ে ক্লাবেও তারা জাতীয় দলের জার্সি নম্বরটাই ধরে রেখেছেন। কিন্তু কৃষ্ণা সেখানে ব্যক্তিক্রম কেন?

উত্তর খুঁজতে গিয়ে জানা গেল, কিছুটা ‘অভিমান’ আর ‘জেদ’ থেকে জার্সি নম্বর বদলেছেন কৃষ্ণা।

প্রিয় ১২ নম্বর জার্সি বদলে ফেললেও কৃষ্ণা বদলে যাননি। শনিবার লিগে নিজেদের প্রথম ম্যাচে তাদের দল বেগম আনোয়ারা স্পোর্টিং ক্লাবকে ১২-০ গোলে হারায়। সেই ম্যাচে সর্বাধিক ৪ গোল করেন কৃষ্ণা। স্বভাব সুলভভাবে পুরোটা সময় মাঠে তটস্থ রেখেছেন প্রতিপক্ষের ডিফেন্স। তার বল রিসিভ, পজিশন সেন্স আর গতি মুগ্ধ করেছে সবাইকে। এরপরও শুরুতে কৃষ্ণাকে চিনতে একটু অসুবিধা হচ্ছিল জার্সি নম্বরটা বদলে ফেলার কারণে।

যদিও ফুটবলে ১০ নম্বর ‘আইকনিক জার্সি’হিসেবেই পরিচিত। কৃষ্ণাকে এই জার্সিতে মেনে নিতে সমস্যা থাকার কথা নয়।

তারপরও খেলা শেষে সেদিন জানতে চাওয়া কৃষ্ণার কাছে, কেন নম্বর বদলে ফেললেন।

কৃষ্ণা বলেন, ‘যখন লোকে জিজ্ঞেস করে আমাকে, অধিনায়কও যদি বলি (অনূর্ধ্ব-১৪, অনূর্ধ্ব-১৬ দলের সাবেক অধিনায়ক), জিজ্ঞেস তরে তোমার জার্সি নম্বর কত। যদি বলি ১২, তখন সবাই কেমন হতাশা প্রকাশ করে...।’

এর বেশি কিছু অবশ্য বলতে চান না কৃষ্ণা। কিন্তু এতটুকুতে কি আর কৌতূহল মেটে! কৃষ্ণাকে কি আর ১২ নম্বরের দেখা যাবে না, এই প্রশ্ন থেকেই যায়।

উত্তর জানতে কৃষ্ণার সঙ্গে পরে আবার দেশ রূপান্তরের পক্ষ থেকে যোগাযোগ করলে এড়িয়ে যেতে চান বিষয়টা।

তবে কৃষ্ণার ঘনিষ্ঠ সূত্র বলছে, অনেকটা অভিমান কিংবা জেদ থেকেই কৃষ্ণা তার জার্সি নম্বর বদলেছেন। ১২ তার প্রিয় সংখ্যা ও এই জার্সিতে অনেক সাফল্য পাওয়ায় এটা আবেগের নাম। কিন্তু লোকে যে এটাকে ‘রিজার্ভ বেঞ্চের’ নম্বর হিসেবে ধরে।

কিছু নিন্দুকের সেই সমালোচনা থেকেই কৃষ্ণা এবার আইকনিক কোনো জার্সিতে খেলতে চেয়েছেন। সেটা যে ১০-ই হতে হতো এমন অবশ্য ভাবনা ছিল না। লিওনেল মেসি তার প্রিয় খেলোয়াড় হলেও ১০ নম্বর জার্সি আসলে কখনো টানেনি কৃষ্ণাকে। তবে ক্লাবে এই জার্সি নম্বর পেয়ে অখুশি নন কৃষ্ণা।

তাহলে জাতীয় দলেও কি এখন থেকে কৃষ্ণাকে তার পরিচিত সেই ১২ নম্বরে দেখা যাবে না? সূত্রমতে, জাতীয় দলে প্রিয় ১২ নম্বর জার্সিতেই খেলতে চান কৃষ্ণা।

আবারো বলতে হয়, ১২ যে তার প্রিয় সংখ্যা শুধু নয়, আবেগও।