এপ্রিলের বেতন হয়নি বহু কারখানায়|220046|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ মে, ২০২০ ০০:০০
বেতন-বোনাস দাবিতে শ্রমিক বিক্ষোভ চলছেই
এপ্রিলের বেতন হয়নি বহু কারখানায়
নিজস্ব প্রতিবেদক

এপ্রিলের বেতন হয়নি বহু কারখানায়

বকেয়া বেতন এবং মূল বেতনের শতভাগ বোনাসের দাবিতে গতকাল শুক্রবারও দিনভর বিক্ষোভ করেছে ঢাকার আশুলিয়া এবং গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জ ও চট্টগ্রামের বিভিন্ন শিল্প কারখানার শ্রমিকরা। বিক্ষুব্ধ শ্রমিকরা এদিন সড়ক অবরোধের পাশাপাশি কারখানা ও যানবাহন ভাঙচুর করে। টঙ্গীর সাতাইশ এলাকায় গতকাল সকাল সাড়ে ৭টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত বিভিন্ন পোশাক কারখানার শ্রমিকরা সড়ক অবরোধ ও বিক্ষোভ করে। পরে শিল্প পুলিশ তাদের বেতন-বোনাস পরিশোধের প্রতিশ্রুতি দিয়ে সড়ক থেকে সরিয়ে দেয়। শ্রমিক বিক্ষোভের কারণে সড়কে তীব্র যানজট দেখা দেয়। তৈরি পোশাক কারখানা ছাড়াও গতকাল প্লাস্টিক, কেমিক্যাল, সিরামিক, কেবল, ফ্যান, স্টিল ও রিরোলিং মিলসহ বিভিন্ন শিল্প-কারখানায় বিক্ষোভের খবর জানিয়েছে শিল্প পুলিশ।

শিল্প পুলিশ সদর দপ্তরের সর্বশেষ হিসাবে (গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যা ৬টা) ঢাকা শিল্প অঞ্চলে বিজিএমইএ ও বিকেএমইএ এবং অন্যান্য সংস্থার সদস্যভুক্ত ১৩৫৬ কারখানার মধ্যে বোনাস দেওয়া হয়েছে ৭২১টিতে। খুলনা অঞ্চলে ৩৫৫ কারখানার মধ্যে ৩২১টির শতভাগ বোনাস দেওয়া হয়েছে, বোনাস দেওয়া হয়নি ২৪ কারখানায়। খুলনায় শিল্প পুলিশের মধ্যস্থতায় ১২টি কারখানায় শতভাগ বোনাস দেওয়া হয়েছে।

বিজিএমইএ জানিয়েছে, তাদের সদস্যভুক্ত চালু থাকা ১৯২৬টি কারখানার মধ্যে গতকাল রাত ৮টা পর্যন্ত ১৮৮৭টিতে এপ্রিলের বেতন দিয়েছে। ৩৯ কারখানায় নানা জটিলতায় বেতন দেওয়া সম্ভব হয়নি। সর্বশেষ হিসাব অনুযায়ী বোনাস দেওয়া হয়েছে ১৪৪৯টি কারখানায়। মালিকদের কেউ কেউ ব্যাংকের অসহযোগিতা এবং মোবাইল ব্যাংকিংয়ে বেতন দেওয়ার জটিলতাকেও বেতন-বোনাস পরিশোধে দেরি হওয়াকে কারণ হিসেবে দায়ী করেছেন। বিজিএমইএ বলেছে, ঈদের ছুটির আগেই সব কারখানায় এপ্রিলের বেতন ও বোনাস পরিশোধ করা হবে।

শিল্প পুলিশের কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, গতকাল শুক্রবার গাজীপুর ও আশুলিয়া এলাকায় বেশকিছু কারখানায় শ্রমিকরা বেতন ও বোনাসের দাবিতে বিক্ষোভ করেছে। টঙ্গীর সাতাইশ এলাকায় শ্রমিক বিক্ষোভ চলাকালে স্থানীয় মহিলা এমপি শামসুন্নাহার সেখানে গিয়ে শ্রমিকদের সঙ্গে আলোচনা করেন।