চলে গেলেন অনুবাদক মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়|236454|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৫ আগস্ট, ২০২০ ০০:০০
চলে গেলেন অনুবাদক মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়
নিজস্ব প্রতিবেদক

চলে গেলেন অনুবাদক মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়

চলে গেলেন কবি, কথা সাহিত্যিক, প্রাবন্ধিক ও অনুবাদক মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল মঙ্গলবার কলকাতার একটি নার্সিং হোমে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। বই বিক্রয়কেন্দ্র ও প্রকাশনা সংস্থা বাতিঘরের স্বত্বাধিকারী দীপঙ্কর দাশ দেশ রূপান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, কয়েক দিন আগে ছোট একটি অপারেশনের জন্য মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় নার্সিং হোমে ভর্তি হন। সেখানে তার অপারেশন সফলভাবে সম্পন্ন হয়। তবে ধারণা করা হচ্ছে, নার্সিং হোম থেকে তিনি করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়েছিলেন। 

১৯৩৮ সালে ২৫ এপ্রিল সিলেটে জন্মগ্রহণ করেন মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়।  তিনি কলকাতার প্রেসিডেন্সি কলেজ, যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়, কানাডার টরন্টো বিশ্ববিদ্যালয় ও পোল্যান্ডের ভাশভি বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক সাহিত্য, ভারতীয় নন্দনতত্ত্ব, ললিতকলার ইতিহাসসহ নানা বিষয়ে পড়াশোনা করেন তিনি। তিনি যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে তুলনামূলক সাহিত্যের অধ্যাপক ছিলেন।

শিশুসাহিত্যে বিশেষ অবদানের জন্য মানবেন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায় খগেন্দ্রনাথ মিত্র স্মৃতিপুরস্কার ও পশ্চিমবঙ্গ সরকারের বিদ্যাসাগর পুরস্কার পান। অনুবাদে তার কৃতিত্বের জন্য ভারতীয় সাহিত্য একাদেমি তাকে অনুবাদ পুরস্কারে ভূষিত করে।

তিনি বাংলা ভাষায় রুশ সাহিত্য, আফ্রিকার সাহিত্য, ল্যাটিন আমেরিকার সাহিত্যের উল্লেখযোগ্য অনুবাদ করেছেন। ম্যাজিক রিয়েলিজমের সঙ্গেও বাঙালি পাঠকের পরিচয়  তার হাত ধরে। গ্যাবরিয়েল গার্সিয়া মার্কেজ নোবেল পুরস্কার পান ১৯৮২ সালে। কিন্তু ১৯৭০ সালেই মার্কেজ অনুবাদে হাত দেন মানবেন্দ্র। অনুবাদ করেন ‘কর্নেলকে কেউ চিঠি লেখে না’, ‘সরলা এরেন্দিরা’। মার্কেজের বিখ্যাত নোবেল ভাষণটিও অনুবাদ করেছেন তিনি। কার্লোস ফুয়েন্তেস বাঙালি পড়েছে তারই সুবাদে। এছাড়া হুয়ান রুলফো, আলেহো কার্পেন্তিয়ের রচনা বাংলা অনুবাদ করেছেন তিনি।