আড়াই হাজার বছর আগের ১৩ মমি|245890|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০
আড়াই হাজার বছর আগের ১৩ মমি
রূপান্তর ডেস্ক

আড়াই হাজার বছর আগের ১৩ মমি

ইঞ্চিতে ইঞ্চিতে যেন রহস্য লুকিয়ে আছে। মাঝেমধ্যেই দেশটির বিভিন্ন এলাকায় পাওয়া যায় প্রাচীন নানা নিদর্শন। দেশটির পুরাতত্ত্ববিদরা সম্প্রতি ১৩টি শবাধার খুঁজে পেয়েছেন। তাদের ধারণা, কাঠের এসব শবাধারে কম করে হলেও ২৫০০ বছর আগেকার মরদেহ মমি করে রাখা আছে।   

দেশটির সংবাদমাধ্যমের খবর, রাজধানী কায়রো থেকে প্রায় ৩০ কিলোমিটার দক্ষিণে সাহারা মরুভূমির গভীরে সাক্কারা নামের একটি সমাধিক্ষেত্র থেকে উদ্ধার হয়েছে নতুন ওই ১৩টি মমি। এই শবাধারগুলো নিয়ে এখন গবেষণা চলছে। উঠে আসছে নানান তথ্যও।

গবেষক দলের দাবি, আড়াই হাজার বছর আগে সিল করে দেওয়া শবগুলো এখনো যথেষ্ট ভালো অবস্থায় আছে। কাঠের শবাধারগুলোর গায়ের রংও ভালো আছে।

মমির পাশাপাশি ওই সামধিক্ষেত্র থেকে কয়েক হাজার সারকোফ্যাগাস পাওয়া গিয়েছে। বোতলাকৃতি, মানুষের মতো নকশাযুক্ত এই সিল করা পাত্রগুলো অন্তেষ্টিক্রিয়ার সময় ব্যবহার হতো।

মিসরের পর্যটন মন্ত্রক জানিয়েছে, শবাধারগুলো একটির ওপর আর একটি সাজিয়ে রাখা হয়েছিল। সেগুলো ভূমি থেকে প্রায় ১১ মিটার নিচে পাওয়া গিয়েছে। দেশটির পর্যটনমন্ত্রী খালেদ আল-আনানি বলেছেন, এটা একটা অন্য রকম অনুভূতি, যখন নতুন পুরাতাত্ত্বিক কিছু খুঁজে পাওয়া যায়।

দেশটিতে এমন মমি বা শবাধার খুঁজে পাওয়ার ঘটনা নতুন নয়। এর আগে ২০১৮ সালের শেষের দিকে ফরাসি দল নীল নদের পশ্চিমে এল-আসাসেফের সমাধিক্ষেত্র থেকে খুঁজে পায় তিন হাজার বছরের পুরনো মমি।

ওই কফিনের ভেতর মমিটি ছাড়াও ছিল পাঁচটি রঙিন মুখোশ ও এক হাজার ছোট মূর্তি। প্রাচীন মিসরের রীতি অনুযায়ী এমন বহু জিনিস রেখে দেওয়া হতো মমির সঙ্গে।