মৃত্যু ছাড়াল ৫ হাজার|247375|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ০০:০০
মৃত্যু ছাড়াল ৫ হাজার
নিজস্ব প্রতিবেদক

মৃত্যু ছাড়াল ৫ হাজার

দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর সংখ্যা ৫ হাজার ছাড়িয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর জানিয়েছে, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় আরও ২৮ জন রোগী মারা গেছেন। এ নিয়ে দেশে ভাইরাসটিতে মৃত্যুর সংখ্যা ৫ হাজার ৭ জনে দাঁড়াল। সম্প্রতি দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগীর সংখ্যা কমে এলেও মৃত্যু কোনোভাবেই কমছে না। হঠাৎ দু-একদিন মৃত্যু ৩০- এর নিচে থাকলেও প্রায় সময়ই তা ৪০ বা তার ওপরে উঠছে। দেশে শেষ এক হাজার মৃত্যু হয়েছে ২৮ দিনে। আগের এক হাজার মৃত্যুও সমসংখ্যক দিনে হয়েছিল। অর্থাৎ প্রায় দু’মাস ধরে মৃত্যু অপরিবর্তিত অবস্থায় রয়েছে।

গত ৮ মার্চ দেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্তের পর ১৮ মার্চ ১০ দিনে প্রথম একজনের মৃত্যু হয়। এরপর গত ১০ জুন ৯৫তম দিনে মৃত্যু এক হাজার, ৫ জুলাই ১২০তম দিনে দুই হাজার, ২৮ জুলাই ১৪৩তম দিনে তিন হাজার এবং ২৫ আগস্ট ১৭১তম দিনে মৃত্যু চার হাজার ছাড়ায়। গতকাল ১৯৯তম দিনে মৃত্যু পাঁচ হাজার ছাড়াল। অধিদপ্তরের তথ্য বিশ্লেষণে দেখা গেছে, প্রথম এক হাজার মৃত্যু হয়েছে ৮৫ দিনে, দ্বিতীয় এক হাজার ২৫ দিনে, তৃতীয় এক হাজার ২৩ দিনে, চতুর্থ এক হাজার ২৮ দিনে এবং পঞ্চম বা শেষ এক হাজার মৃত্যুও হয়েছে ২৮ দিনে।

গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে আরও ১ হাজার ৫৫৭ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন বলে জানিয়েছে অধিদপ্তর। তবে এ সময়ে শনাক্তের হার অনেকটাই কমেছে। এদিন ১৪ হাজারের বেশি নমুনা পরীক্ষায় ১০ দশমিক ৯৯ শতাংশ হারে রোগী শনাক্ত হয়েছেন। ২৪ ঘণ্টায় শনাক্তের এ হার গত ১৪১ দিন বা প্রায় পাঁচ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে গত ৪ মে ২৪ ঘণ্টায় একই হারে রোগী শনাক্ত হয়েছিলেন। তারপর থেকে আর কোনোদিন শনাক্তের হার ১১ শতাংশের নিচে নামেনি।

অধিদপ্তরের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (প্রশাসন) অধ্যাপক ডা. নাসিমা সুলতানা স্বাক্ষরিত গতকালের করোনাবিষয়ক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, দেশে আরও তিনটি করোনা পরীক্ষাগার চালু হয়েছে। এ নিয়ে বর্তমানে ১০২টি পরীক্ষাগারে করোনার পরীক্ষা চলমান রয়েছে। এসব পরীক্ষাগারে সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় (সোমবার দুপুর ১২টা থেকে মঙ্গলবার দুপুর ১২টা পর্যন্ত) ১৪ হাজার ২৪৪টি নমুনা সংগৃহীত হয়। পরীক্ষা করা হয় ১৪ হাজার ১৬৪টি। এসব পরীক্ষায় ১ হাজার ৫৫৭ জন নতুন রোগী শনাক্ত হন। একই সময়ের মধ্যে আরও ২৮ রোগীর মৃত্যু হয়েছে এবং বাসা ও হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আরও ২ হাজার ৭৩ রোগী সুস্থ হয়েছেন।

এতে বলা হয়, দেশে গতকাল পর্যন্ত ১৮ লাখ ৪৮ হাজার ৪৮৭টি নমুনা পরীক্ষায় ৩ লাখ ৫২ হাজার ১৭৮ জন করোনা রোগী শনাক্ত হয়েছেন। তাদের মধ্যে মারা গেছেন ৫ হাজার ৭ এবং সুস্থ হয়েছেন ২ লাখ ৬০ হাজার ৭৯০ জন। বাকিরা এখনো চিকিৎসাধীন। এ পর্যন্ত যত পরীক্ষা হয়েছে, তার বিপরীতে রোগী শনাক্ত হয়েছেন ১৯ দশমিক ০৫ শতাংশ হারে। শনাক্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত মৃত্যুহার ১ দশমিক ৪২ ও সুস্থতার হার ৭৪ দশমিক ০৫ শতাংশ।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, সর্বশেষ ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের মধ্যে পুরুষ ১৭ ও নারী ১১ জন। এর মধ্যে সর্বোচ্চ ১৮ জন ঢাকা বিভাগের, ৪ জন চট্টগ্রাম, ৩ জন খুলনা এবং ১ জন করে মোট তিনজন রাজশাহী, সিলেট ও রংপুর বিভাগের। মৃতদের মধ্যে ১৩ জনই ষাটোর্ধ্ব বয়সী। বাকিদের মধ্যে ৫১-৬০ বছরের ৬, ৪১-৫০ বছরের ৭, ২১-৩০ বছরের ১ এবং ০-১০ বছরের শিশু ছিল ১টি। এদিন ২৮ জনের সবাই হাসপাতালে মৃত্যুবরণ করেছেন।

অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, দেশে করোনায় এ পর্যন্ত মৃতদের মধ্যে পুরুষ ৩ হাজার ৮৯০ ও নারী ১ হাজার ১১৭ জন। শতকরা হিসাবে পুরুষ ৭৭ দশমিক ৬৯ ও নারী ২২ দশমিক ৩১ শতাংশ। বিভাগগুলোর মধ্যে সর্বোচ্চ ২ হাজার ৪৬৭ জন মারা গেছেন ঢাকা বিভাগে। এ ছাড়া চট্টগ্রামে ১ হাজার ৩৯, খুলনায় ৪২০, রাজশাহীতে ৩৩২, রংপুরে ২৩৫, সিলেটে ২২২, বরিশালে ১৮৫ এবং ময়মনসিংহে সর্বনিম্ন ১০৭ জন মারা গেছেন।