এক ঝলকে|252675|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ অক্টোবর, ২০২০ ০০:০০
এক ঝলকে

এক ঝলকে

রওন্ডা ফ্লেমিং আর নেই

বুধবার ক্যালিফোর্নিয়ার সান্তা মনিকায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন হলিউডের ‘কুইন অব টেকনিকালার’ উপাধিপ্রাপ্ত নায়িকা রওন্ডা ফ্লেমিং। ৯৭ বছর বয়সী এ অভিনেত্রী ৪০টির বেশি সিনেমায় অভিনয় করেছেন। এর মধ্যে আলফ্রেড হিচককের ‘স্পেলবাউন্ড’, জ্যাক টুরনুর ‘আউট অব দ্য পাস্ট’ ও রবার্ট সিওডমাকের ‘দ্য স্পাইরাল স্টিয়ারকেস’ আজও স্মরণীয়। ১৯৪০ ও ৫০ এর দশকে ‘কুইন অব টেকনিকালার’ উপাধি পেয়েছিলেন রওন্ডা ফ্লেমিং। তার অভিনীত অন্য ক্ল্যাসিক সিনেমার মধ্যে আছে মিউজিক্যাল ফ্যান্টাসি ‘আ কানেকটিকাট ইয়াঙ্কি ইন কিং আর্থারস কোট’, ওয়েস্টার্ন ‘গানফাইট অ্যাট দ্য ওকে করাল’ ও নয়ার ধাঁচের ‘সøাইটলি স্কারলেট’।

রওন্ডার পারিবারিক নাম মেরিলিন লুইস। তিনি স্কুলে পড়াকালে বিখ্যাত ট্যালেন্ট এজেন্ট হেনরি উইলসনের চোখে পড়েন। তিনি এই অভিনেত্রীর নামই বদলে দেন। এর পর বিখ্যাত নির্মাতা ডেভিড ও সেলৎসনিকের সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হন। তবে প্রথম কোনো বড় চরিত্র পান ‘স্পেলবাউন্ড’ সিনেমায়। সেখানে যৌন বিকারগ্রস্ত নারীর ভূমিকায় অভিনয় করেন রওন্ডা ফ্লেমিং। ব্যক্তিগত জীবনে ছয়বার বিয়ে করেছেন ফ্লেমিং।

মৃত্যুর আগে তিনি ছেলে, নাতি-নাতনি ও তাদের সন্তানদের রেখে গেছেন। তার বেশ কয়েকজন দত্তক সন্তানও রয়েছে। জীবনের শেষ দিকে দাতব্য কাজের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন অভিনেত্রী। ক্যানসার, গৃহহীন মানুষ ও নিগৃহীত শিশু নিয়ে কাজ করছে এমন অনেক সংস্থার সঙ্গে সম্পৃক্ততা ছিল তার।

মিঠুনের ছেলের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

গত ১৫ অক্টোবর ভারতের বিখ্যাত অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তীর ছেলে মিমো চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ এবং তার স্ত্রী যোগিতা বালির বিরুদ্ধে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ করেছেন তরুণ এক মডেল। তার দাবি, ২০১৫ সাল থেকে মিমোর সঙ্গে তার সম্পর্ক ছিল। একবার মিমো তার সফট ড্রিঙ্কে মাদক মিশিয়ে অনুমতি ছাড়াই শারীরিক সম্পর্ক স্থাপন করতে বাধ্য করে। মিমো বিয়ের প্রতিশ্রুতিও দিয়েছিলেন বলে দাবি ওই মডেলের।

এদিকে, ২০১৮ সালে অভিনেত্রী মাদালসা শর্মাকে বিয়ে করেন মিমো। স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ প্রসঙ্গে মুখ খুলেছেন মিঠুনের পুত্রবধূ। তিনি বলেন, ‘কীসের জন্য মামলা দায়ের হয়েছে? এটি একদমই সত্য নয়। এগুলো পুরনো কথা। তিন বছর আগে এগুলো হয়েছে। এই বিষয় নিয়ে আলোচনা এখন বন্ধ।’ নতুন করে মামলা দায়ের প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমরা এই মামলা সম্পর্কে এখনো কিছু জানি না।’

এর আগে ২০১৮ সালে মিমোর বিয়ের সময় এই নারী এফআইআর দায়েরের চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু পুলিশ মামলা না নেওয়ায় দিল্লির রোহিনী আদালতে এ বিষয়ে আবেদন করেন। এরপর আদালত সব প্রমাণাদি দেখে এ বিষয়ে তদন্তের নির্দেশ দেয়। আদালতের নির্দেশেই আবার মুম্বাইয়ের ওশিয়ারা থানায় মহাক্ষয়ের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের হয়।

করোনায় দেউলিয়া আদিত্য

করোনার কারণে সাত মাস ধরে বিনোদন অঙ্গনের বেশির ভাগ মানুষের কোনো কাজ নেই। তাই আয়ও নেই এক পয়সা। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি চরম আর্থিক সংকটের মুখোমুখি মুম্বাইয়ের বিনোদন জগতের বাসিন্দারা। ভারতের বিখ্যাত সংগীতশিল্পী উদিত নারায়ণের ছেলে আদিত্য নারায়ণ প্রবল আর্থিক অনিশ্চয়তার মধ্যে দিন কাটাচ্ছেন। আদিত্যর আশঙ্কা, যেকোনো সময় তিনি দেউলিয়া হয়ে যেতে পারেন। এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘আমি কখনই ভাবিনি যে টানা এক বছর আমি কর্মহীন থাকব। লকডাউন আমার সব পরিকল্পনা ভেস্তে দিল। আমার সব জমানো টাকা শেষ।’ আদিত্য আরও জানিয়েছেন, প্রয়োজনে বাসার জিনিসপত্র বিক্রি করে দিতে হতে পারে তাকে। বেঁচে থাকার জন্য আমাকে আমার সঞ্চয় নিঃশেষ করে দিতে হয়েছে। আমি কোটিপতি নই। আমার কাছে শেষ পুঁজি ২০ হাজার টাকার মতো পড়ে আছে। এখনো কাজ না পেলে আমার সব অর্থ শেষ হয়ে যাবে। এমনকি বেঁচে থাকার জন্য আমাকে আমার বাইক পর্যন্ত বিক্রি করতে হতে পারে।’

আদিত্য নারায়ণ এই মুহূর্তে বিয়ের জন্য বারবার আলোচনায় উঠে আসছেন। শেষবার তিনি আলোচনায় ছিলেন জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী  নেহা কাক্করের সঙ্গে বিয়ে নিয়ে। তারপর শোনা গেল, এ বছরের  শেষের দিকে তিনি প্রেমিকা শ্বেতা আগারওয়ালকে বিয়ে করবেন। কিন্তু প্রবল আর্থিক অনটনের মধ্যে আদিত্য বিয়ে করবেন কি-না, তা সময়ই বলবে। শ্বেতার সঙ্গে তিনি দীর্ঘ ১০ বছর ধরে ‘ইন আ রিলেশনশিপ’-এ আছেন।