পুলিশের ফেইসবুক ক্লোন করে রিপনের প্রতারণা|259740|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২১ নভেম্বর, ২০২০ ০০:০০
পুলিশের ফেইসবুক ক্লোন করে রিপনের প্রতারণা
ইমন রহমান

পুলিশের ফেইসবুক ক্লোন করে রিপনের প্রতারণা

কিছুদিন আগেও একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন মো. রিপন ওরফে রাসেল (২৩)। রাতারাতি বড়লোক হওয়ার সাধ থেকে বেছে নেন প্রতারণার পথ। চাকরিপ্রত্যাশীদের আশ^স্ত করতে পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের ফেইসবুক আইডি ক্লোন করতেন। এভাবে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) উচ্চপদস্থ একাধিক কর্মকর্তার ক্লোন আইডি থেকে টার্গেট ব্যক্তির ম্যাসেঞ্জারে চাকরির প্রলোভন দিতেন। কনস্টেবল, এসআই ও সার্জেন্ট পদে চাকরি দেওয়ার লোভ দেখিয়ে বিকাশের মাধ্যমে মোটা অঙ্কের টাকা হাতিয়ে নিতেন তিনি। টাকা হাতে পাওয়ার পর ম্যাসেঞ্জারে চাকরিপ্রত্যাশীকে ব্লক করে দিতেন।

এমনই প্রতারণার শিকার নরসিংদীর মাধবদী থানার মো. শাহজাহান সম্প্রতি রাজধানীর পল্টন মডেল থানায় মামলা করেন। ডিএমপির গোয়েন্দা বিভাগ (ওয়েব বেইজড ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিম) ঢাকার ধামরাই থানার ইসলামপুর থেকে গত বৃহস্পতিবার রিপনকে গ্রেপ্তার করে। তিনি নেত্রকোনার পূর্বধলা থানার ইড়িভিটা গ্রামের মো. চাঁন মিয়ার ছেলে। ইসলামপুরে মজিদ মিয়ার বাড়িতে ভাড়া থাকতেন।

পুলিশ জানিয়েছে, রিপনের মূল টার্গেট ছিল পুলিশে চাকরিপ্রত্যাশী বিত্তবান বেকার যুবকরা। ফেইসবুক আইডিতে পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের র‌্যাঙ্ক ব্যাজ সংবলিত ছবি দেখে অনেকেই আশ্বস্ত হতেন। কিন্তু চাহিদামতো টাকা দিয়েও পরে চাকরি না পেয়ে প্রতারিত হতেন।

রিপনের এমন কাণ্ডে পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারাও বিব্রত। তারা বলছেন, এ ধরনের সাইবার অপরাধ সমাজে বৃদ্ধি পেয়েছে। সাধারণ মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে।

ডিবির সাইবার অ্যান্ড স্পেশাল ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন বিভাগের ওয়েব বেইজড ক্রাইম ইনভেস্টিগেশন টিমের ইনচার্জ এডিসি আশরাফ উল্লাহ দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘পুলিশের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তাদের আইডি ক্লোন অপরাধ। রিপন ডিএমপির মতিঝিল বিভাগের সহকারী কমিশনার (এসি) জাহিদুল ইসলাম, নিউমার্কেট জোনের এসি আবুল হাসানসহ অনেকের আইডি ক্লোন করে তার মাধ্যমে চাকরি দেওয়ার নামে প্রতারণা করছিলেন। তিনি আগে হা-মিম গ্রুপের একটি পোশাক কারখানায় রাসেল নামে অন্যজনের এনআইডি (জাতীয় পরিচয়পত্র) ব্যবহার করে চাকরি করতেন। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে রিপন ৫-৬ জন থেকে টাকা হাতিয়ে নেওয়ার তথ্য দিয়েছেন। তার বিষয়ে আরও খোঁজ-খবর নেওয়া হচ্ছে।’

পল্টন মডেল থানার মামলায় বলা হয়, গত ২৫ অক্টোবর সকাল ১০টার দিকে জাহিদুল ইসলাম নামে একটি ফেইসবুক আইডি থেকে মো. শাহজাহানের ম্যাসেঞ্জারে নক দেওয়া হয়। সেখানে তার বর্তমান চাকরি, বয়স জানার একপর্যায়ে পুলিশে চাকরি করবে কি-না জানতে চাওয়া হয়। এমন প্রস্তাবে শাহজাহান ওই আইডি ঘেঁটে পুলিশের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তার র‌্যাঙ্ক ব্যাজ পরিহিত ছবি দেখে আশ্বস্ত হন। পরে প্রতারকের দেওয়া একটি বিকাশ নম্বরে ১০ হাজার টাকা পাঠান। এরপর তাকে ব্লক করা হয়। প্রতারণার শিকার হয়েছেন বুঝতে পেরে পরদিন মামলা করেন শাহজাহান।

গতকাল মো. শাহজাহান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘পুলিশের বড় কর্মকর্তার ফেইসবুক আইডি থেকে আমাকে এসআই পদে ৮ লাখ টাকায় চাকরির প্রলোভন দেখানো হয়। শিক্ষাগত যোগ্যতা নেই জানার পর এগুলো করতে ২৬ হাজার টাকা লাগবে জানান। আমি তার দেওয়া বিকাশ নম্বরে ১০ হাজার টাকা দেওয়ার পর ম্যাসেঞ্জারে ব্লক করে দেন।’

এ বিষয়ে সহকারী কমিশনার (এসি) জাহিদুল ইসলাম সোহাগ দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘আমার ফেইসবুক আইডি ক্লোন হয়েছে, তা জানা ছিল না। বুঝতে পারার পর ফলোয়ারদের মাধ্যমে রিপোর্ট করে বন্ধ করে দিয়েছি।’ তিনি আরও বলেন, ‘এখন অহরহ এ ধরনের সাইবার অপরাধ হচ্ছে। ফলে মানুষকে আরও সচেতন হতে হবে। যাচাই-বাছাই না করে কাউকে টাকা দেওয়া ঠিক নয়।’

ডিবির তদন্ত সংশ্লিষ্টরা জানান, রিপনকে গ্রেপ্তারের পর তার মুঠোফোনে পুলিশের আরও কিছু উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার ফেইসবুক আইডি ক্লোনের তথ্য পাওয়া গেছে। এর মধ্যে সিনিয়র এএসপি কামাল হোসেন, ডিএমপির এসি শ্রাবণ চৌধুরী, নিউমার্কেট জোনের এসি আবুল হাসান রয়েছেন। এসব আইডি গতকাল শুক্রবারও সক্রিয় পাওয়া গেছে।

এ বিষয়ে এসি আবুল হাসান দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘সাইবার অপরাধী রিপন আমার নাম, ছবি ব্যবহার করে হুবহু আরেকটি আইডি করে। এই আইডি দিয়ে নানা অপকর্ম করছিল। বিষয়টি নজরে আসার পর ডিবি তদন্ত শুরু করে এবং তাকে গ্রেপ্তারে সক্ষম হয়।’ তিনি আরও বলেন, ‘সমাজে এ ধরনের অপরাধ দিন দিন বাড়ছে। ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের কাছে অনুরোধ, কোনো কিছু করার আগে আপনারা ক্লোন আইডি যাচাই করে নেবেন। তা না হলে ব্যক্তিগত মর্যাদা ও সম্মানহানি ঘটতে পারে। সচেতনতার বিকল্প নেই।’