‘গোলাপি বল গোধূলিতে বিভ্রম তৈরি করে’|278452|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ০০:০০
‘গোলাপি বল গোধূলিতে বিভ্রম তৈরি করে’
ক্রীড়া ডেস্ক

‘গোলাপি বল গোধূলিতে বিভ্রম তৈরি করে’

আহমেদাবাদের মোতেরা স্টেডিয়ামে খেলা হবে গোলাপি বলে। আর প্রথাগত লাল বলের চেয়ে গোলাপি বলে সুইং বেশি হয়। তৃতীয় টেস্টে এই সুবিধা কাজে লাগাতে চান ইংলিশ পেসাররা। তা ছাড়া চেন্নাইয়ের দ্বিতীয় টেস্টে বিশ্রাম পাওয়ায় আগামীকাল মোতেরায় তরতাজা হয়ে নামতে পারবেন জিমি অ্যান্ডারসন। অন্যদিকে স্টুয়ার্ট ব্রড প্রথম টেস্টে খেলেননি।

অনেক দিন ধরেই ক্রিকেটারদের ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে খেলানোর নীতি মেনে চলছে ইংলিশ ক্রিকেট বোর্ড। চেন্নাইয়ে প্রথম টেস্ট জেতার পর দ্বিতীয় টেস্টে ফর্মে থাকা অ্যান্ডারসনকে বিশ্রাম দেওয়া হয়। চিপকে সে ম্যাচ হেরে যায় ইংল্যান্ড। ফলে ঘরে-বাইরে সমালোচিত হয় ইংল্যান্ড বোর্ডের বিশ্রাম দেওয়ার নীতি। যদিও অ্যান্ডারসন বিশ্রামের পক্ষে। বলেছেন, ‘ম্যাচে নামলে শারীরিকভাবে আমরা যাতে সক্ষম থাকি সেটাই দেখে বোর্ড। আগের টেস্ট না খেলার ফলে পরের টেস্টে অনেক বেশি ফিট হয়ে নামতে পারব।’ গোলাপি বলের টেস্ট খেলার জন্য তিনি যে মুখিয়ে আছেন সেটাও জানিয়েছেন ১৫৮ টেস্টে ৬১১ উইকেট শিকারি পেসার। গোলাপি টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতায় এগিয়ে ইংল্যান্ড। তারা খেলেছে তিনটি টেস্ট। ভারত দুটি। সেই তুলনা করে অ্যান্ডারসন বলেছেন, ‘লাল বলের চেয়ে গোলাপি বল বেশি সুইং করে। কিন্তু ম্যাচে না নামলে বলের আসল চরিত্র বোঝা যাবে না। (মোতেরার) পিচে এখন ঘাস রয়েছে। কিন্তু ম্যাচের দিন যে সেটা থাকবে না, তা নিয়ে আমি নিশ্চিত। আমাদের কিছুটা সুবিধাই হয়েছে। গোলাপি বলে আমাদের অভিজ্ঞতা রয়েছে। কিন্তু ভারত ঘরের মাঠে মাত্র দ্বিতীয় দিন-রাতের টেস্ট খেলতে নামবে।’ অ্যান্ডারসন আরও বলেন, ‘জানি না উইকেট কী আচরণ করবে, তবে আমরা আশাবাদী। অনুশীলনে আলোর সামনে বলের তারতম্য বোঝা যায় না। কিন্তু গোধূলির সময় সমস্যা হতে পারে। গতকালই আমরা সেটা বুঝতে পেরেছি। নিজেদের অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, সূর্যের আলো চলে যাওয়ার পর কৃত্রিম আলোয় খেলা চালু হলে মানিয়ে নিতে বেশ খানিকক্ষণ সময় লাগে।’

নবনির্মিত মোতেরা স্টেডিয়ামে ভারত ও ইংল্যান্ডের ব্যাটসম্যানদের জন্য কী চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করে আছে তা এখনো অজানা। উইকেট স্পিন সহায়ক হবে না পেসারদের সাহায্য করবে তা কেউ জানে না। এমন পরিস্থিতিতে ইংলিশ অলরাউন্ডার বেন স্টোকস বলেছেন, ‘টেস্ট ব্যাটসম্যান হয়ে উঠতে হলে আপনাকে সব কন্ডিশনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় পারদর্শী হতে হবে। ভারত এমন একটা জায়গা যেখানে সব বিদেশি ব্যাটসম্যানের জন্য সফল হতে পারা কঠিনতম ব্যাপার। ইংল্যান্ডের জন্য বিষয়টা ব্যতিক্রম নয়। এটার খেলার অংশ। চ্যালেঞ্জ থাকবেই। তা মোকাবিলা করতেও ভালোবাসি আমরা।’