বিয়ে করতেই পারে, লাভ করতেই পারে: স্ত্রীকে নিয়ে নাসির|278801|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:২৮
বিয়ে করতেই পারে, লাভ করতেই পারে: স্ত্রীকে নিয়ে নাসির
অনলাইন ডেস্ক

বিয়ে করতেই পারে, লাভ করতেই পারে: স্ত্রীকে নিয়ে নাসির

১৪ ফেব্রুয়ারি ঘটা করে তামিমাকে বিয়ে করেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের এক সময়ের নিয়মিত মুখ নাসির হোসেন।

বিয়ে বিতর্ক নিয়ে মুখ খুলেছেন ক্রিকেটার নাসির হোসেন ও তার সদ্য বিবাহিত স্ত্রী তামিমা সুলতানা তাম্মি।

বুধবার বনানীর একটি হোটেলে তিনজন আইনজীবী সঙ্গে নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেন নাসির ও তামিমা। এ সময় তারা দুজনই দাবি করেন, সামাজিক ও ধর্মীয় রীতিনীতি এবং আইনানুযায়ীই বিয়ে সম্পন্ন হয়েছে তাদের।

তামিমার সব অতীত জেনেই বিয়ে করেছেন উল্লেখ করে নাসির বলেন, ‘হ্যাঁ, ও ছোটবেলায় বিয়ে করেছে ঠিক আছে। বিয়ে করতেই পারে, লাভ করতেই পারে, এটা স্বাভাবিক। ওর কি হ্যাপি থাকার কোনো রাইটস নাই। ওর কি সুখে থাকার কোনো রাইটস নাই। অবশ্যই আছে।’

যোগ করে বলেন, ‘আমি ওকে খুব ভালোমতোই চিনি, আমি ওর জীবনের সবকিছু ভালোমতো জেনেই ওকে গ্রহণ করেছি।’

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ঘটা করে তামিমাকে বিয়ে করেন বাংলাদেশ জাতীয় দলের এক সময়ের নিয়মিত মুখ নাসির। তবে তাদের বিয়ের পরই অভিযোগ ওঠে, তামিমা তার সাবেক স্বামীকে তালাক না দিয়েই নাসিরকে বিয়ে করেছেন।

তামিমার সাবেক স্বামী রাকিব হাসান এমন অভিযোগ তুলে সাধারণ ডায়েরি করেছিলেন উত্তরা পশ্চিম থানায়। বুধবার তামিমা ও নাসিরের বিরুদ্ধে মামলাও করেছেন রাকিব।

মামলাটি পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্ত করার নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

সংবাদ সম্মেলনে তামিমা বলেন, ‘জনাব রাকিব হাসান, উনি যে বলেছেন আমি তালাক না দিয়ে উনাকে বিয়ে করেছি, তা সম্পূর্ণ মিথ্যে কথা।’

তার দাবি, ‘আমি তালাকের জন্য আবেদন করি ২০১৬ সালে, সেটা অনুমোদন হয় ২০১৭ সালে। সম্পূর্ণ আইনি প্রক্রিয়া মেনেই এই বিচ্ছেদটা হয়। এটা তিনি ও তার পরিবারবর্গ জানতেন। উনি যেটা করছেন, কেন করছেন এটা সম্ভবত আপনাদের সবারই বোঝা হয়ে গেছে।’

নাসির বলেন, ‘আমি তামিমাকে চিনি প্রায় চার-সাড়ে চার বছর ধরে। তখন আমার ভালো বন্ধু ছিল, এরপর আমাদের মধ্যে প্রেম হয়। আইনগতভাবে, ইসলামি শরিয়ত মতে আমরা সবাইকে জানিয়ে বিয়ে করেছি।’

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে অনেকে অনেক ধরনের মন্তব্য করছেন। যা নিয়ে নাসির বলেন, ‘এটা আমাদের দুজনের ওপর যতটা প্রভাব পড়ছে, তার চেয়ে বেশি পরিবারের ওপর প্রভাব পড়ছে। কারণ এখানে আমাদের পরিবারের ইমোশন আছে। বন্ধু-বান্ধব আছে, আত্মীয়স্বজন আছে…।’

সমালোচকদের উদ্দেশ্যে নাসিরের বার্তা, ‘এতটুকুই বলব, তারা এমন কিছু না করুণ, এমন কিছু না বলুক। আমি না হয় জাতীয় দলের খেলোয়াড় ঠিক আছে। আমাকে মানুষ ভালোবাসে, মানুষ গালাগালিও করে। সেটা আমি মেনে নিতে পারি। কিন্তু তামিমা এ কালচারের না। তাই ওর জন্য এটা কঠিন।’

যোগ করেন, ‘আমি শুধু এতটুকু বলব, এটা আজকে তামিমার সঙ্গে হচ্ছে। এটা কালকে আপনার সাথেও হতে পারে। আপনাদের সবারই মা-বোন আছে…।’

সব সময় তামিমার পাশে থাকবেন জানিয়ে নাসির বলেন, ‘রাকিব সাহেব কেন, এটা অন্য যে কোনো মানুষই হোক, আমার স্ত্রীকে কেউ যদি কোনো মন্তব্য করে, কেউ যদি কোনো ধরনের বাজে কথা বলে, আমি তার বিরুদ্ধে অ্যাকশন নেব অবশ্যই। সেটা আইনগত ভাবে।’