ধামরাইয়ে মুদি দোকানির বিরুদ্ধে স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ|278999|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ২০:৫৪
ধামরাইয়ে মুদি দোকানির বিরুদ্ধে স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ
ধামরাই প্রতিনিধি

ধামরাইয়ে মুদি দোকানির বিরুদ্ধে স্কুল শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের অভিযোগ

ঢাকার ধামরাইয়ে এক স্কুল শিক্ষার্থী ধর্ষণের শিকার হয়েছে বলে অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত মুদি দোকানি শিফাত পলাতক রয়েছে।

বৃহস্পতিবার সকালে পৌর এলাকার কুমরাইল আমবাগান মহল্লায় এ ঘটনা ঘটেছে। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীর পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করা হয়নি বলে জানিয়েছে, পুলিশ।

অভিযুক্ত শিফাত ধামরাই পৌরসভার কুমরাইল আমবাগান মহল্লার কহিনুর হোসেনের ছেলে। সে ওই এলাকায় একটি মুদি দোকান করতো বলে জানিয়েছে পুলিশ।

প্রতিবেশী দোকানি ও ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর পরিবারের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, বৃহস্পতিবার সকালে ৭ টায় নবম শ্রেণি পড়ুয়া ভুক্তভোগী স্কুল শিক্ষার্থী স্থানীয় হার্ডিঞ্জ স্কুলে কোচিং করতে যাচ্ছিল। এ সময় কুমরাইল আমবাগান এলাকার মুদি দোকানি শিফাত ওই ছাত্রীকে ডাক দিয়ে দোকানের ভেতরে নিয়ে যায়। পরে গামছা দিয়ে তার মুখ বেঁধে দোকানের শাটার নামিয়ে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। প্রতিবেশী দোকানিরা ওই ছাত্রীর গোঙানির শব্দ শুনে শিফাতকে দোকানের শাটার খোলতে বলে। কিন্তু দীর্ঘদিনেও দোকান না খোলায় স্থানীয়রা শাটার ভাঙ্গার চেষ্টা করলে দ্রুত শাটার খুলে পালিয়ে যায় ধর্ষক শিফাত। পরে স্থানীয়রা দোকানের ভেতর থেকে ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থীকে উদ্ধার করে পরিবারের সদস্যদের কাছে বুঝিয়ে দেন।

এ ব্যাপারে প্রতিবেশী চায়ের দোকানদার বাবুল জানান, শিফাত দোকান খোলার পর আবারও হঠাৎ দোকানের শাটার দেয়। দীর্ঘক্ষণ হলেও দোকান না খোলায় এবং ভেতর থেকে গোঙানির শব্দ শুনে শাটার ভাঙার চেষ্টা করি। এ সময় শিফাত শাটার খুলে পালিয়ে যায়।

ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর মা বলেন, কোচিংয়ে যাওয়ার পথে দোকানদার শিফাত জোরপূর্বক আমার মেয়েকে দোকানের ভেতর নিয়ে ধর্ষণ করেছে বলে শুনেছি। ঘটনার পর ছেলের মামারা আমার বাড়িওয়ালার কাছে এসে হুমকি দেওয়ায় মামলা করতে ভয় পাচ্ছি।

ধামরাই থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আতিকুর রহমান বলেন, ধর্ষণের ঘটনায় এখনো থানায় কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ পেলে বিষয়টি তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।