ঈদের দিন স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অবাধে ঘুরাঘুরি|292778|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৪ মে, ২০২১ ২০:২২
ঈদের দিন স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অবাধে ঘুরাঘুরি
রুহুল ইসলাম হৃদয়, কমলগঞ্জ (মৌলভীবাজার)

ঈদের দিন স্বাস্থ্যবিধি না মেনে অবাধে ঘুরাঘুরি

করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধে সরকারি নির্দেশনায় সারাদেশের পর্যটন কেন্দ্রের মতো মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জেও পর্যটকের প্রবেশ ও ঘোরাঘুরি নিষেধ ছিল। তবে আজ ঈদের দিনে বৃষ্টি ও করোনার স্বাস্থ্যবিধি উপেক্ষা করে মাধবপুর চা-বাগান লেক ও চা প্লান্টেশন এলাকায় উপচে পড়া ভিড় ছিল পর্যটকদের।

মাধবপুর লেক এলাকায় শুক্রবার ঈদের দিন দুপুরের পর থেকে মোটরসাইকেল, প্রাইভেটকার, সিএনজিচালিত অটোরিকশা নিয়ে আসা পর্যটকরা অবাধে ঘুরেছেন। 

একই অবস্থা ছিল দলই চা বাগানে বীরশ্রেষ্ঠ সিপাহী হামিদুর রহমান স্মৃতিসৌধ এলাকা, শমসেরনগর চা বাগানের লেক, চা বাগান গলফ মাঠ, ফুলবাড়ি চা বাগানসহ বিভিন্ন বাগানের পাহাড়ি উঁচু নিচু প্লান্টেশন এলাকা।

শুক্রবার বিকেলে মাধবপুর লেক এলাকায় দেখা যায়, লেকে যাওয়ার আগে চা বাগানের দুটি ফটকে পর্যটকদের ব্যবহৃত যানবাহন আটকানোর চেষ্টা করলেও তারা কোনো  বাধা মানছেন না। চা বাগান কারখানা থেকে প্রায় দেড় কিলোমিটার ভেতরে তিনদিকের উঁচু পাহাড়ি টিলাবেষ্টিত লেকে পর্যটকরা দল বেঁধে যাতায়াত করছেন। লেক এলাকায় চা গাছ আচ্ছাদিত টিলায় উঠে ছবি তুলছেন। প্রায় ৮০ শতাংশ পর্যটকের মুখেই ছিল না মাস্ক।

মাধবপুর চা বাগান সূত্রে জানা যায়, মাধবপুর চা বাগান কর্তৃপক্ষ উপচেপড়া পর্যটকদের কাছে অনেকটা অসহায় বোধ করছেন। নারী-পুরুষ ও শিশুরা ঈদের ছুটির আনন্দ উপভোগ করতে ছিলেন ব্যস্ত। 

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন পর্যটক জানান, দীর্ঘদিন তারা সন্তানদের নিয়ে অনেকটা গৃহবন্দী ছিলেন। ঈদের ছুটিতে এসব সন্তানদের অনুরোধে পরিবার সদস্যদের নিয়ে বাধ্য হয়ে মাধবপুর লেকে বেড়াতে এসেছেন।

মাধবপুর লেকের প্রধান ফটকের গেটম্যান লক্ষী নারায়ণ দেশ রূপান্তরকে বলেন, ঈদের সময়ে লেকে প্রবেশ নিষেধ বলে আগত পর্যটকদের প্রবেশে বাধা দিয়ে তিনি একা তাদের আটকাতে পারছেন না।

তবে মাধবপুর ইউপি চেয়ারম্যান পুষ্প কুমার কানু জানান, তিনি কমলগঞ্জ থানার ওসিকে অনুরোধ করে কয়েকজন পুলিশ সদস্যকে এনেছিলেন মাধবপুর লেক এলাকায়।

বন্যপ্রাণী ব্যবস্থাপনা ও প্রকৃতি সংরক্ষণ বিভাগ মৌলভীবাজারের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা মো. রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, করোনার কারণে সরকারি নির্দেশনায় লাউয়াছড়া জাতীয় উদ্যানে পর্যটক প্রবেশ বন্ধ থাকায় কড়া নিরাপত্তার কারণে কোনো পর্যটক প্রবেশ করেনি। তবে অসংখ্য আগত পর্যটক উদ্যানের ভেতর দিয়ে চলে যাওয়া কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল সড়কের বেশকিছু এলাকায় ঘোরাঘুরি করেছে। পরবর্তীতে এসব পর্যটকেরা মাধবপুর লেকে গিয়ে ভিড় করেছে।