সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভিকারুননিসার প্রিন্সিপাল বসিয়েছে সরকার: মির্জা ফখরুল|306652|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৮ জুলাই, ২০২১ ২০:৪০
সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভিকারুননিসার প্রিন্সিপাল বসিয়েছে সরকার: মির্জা ফখরুল
নিজস্ব প্রতিবেদক

সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ভিকারুননিসার প্রিন্সিপাল বসিয়েছে সরকার: মির্জা ফখরুল

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর সরকারের সমালোচনা করে বলেছেন, “পর্যাপ্ত টিকার ব্যবস্থা না করেই সরকার তৃণমূলে টিকা দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে। এখন পর্যন্ত তারা ভারত থেকে তিন কোটি টিকা আনতে পারেনি। সরকার সবকিছুতে ভাঁওতাবাজি, প্রতারণা করছে।”

বুধবার স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সভাপতি প্রয়াত শফিউল বারী বাবুর প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক ভার্চুয়াল স্মরণসভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে তিনি এ সব কথা বলেন।

মির্জা ফখরুল বলেন, “করোনাকে পুঁজি করে সরকার লুটপাট করছে। এটা আমার কথা নয় দেশের অর্থনীতিবিদদের কথা। প্রকৃত অর্থে তারা একটা লুটেরা সরকার।”

তিনি বলেন, “দেশ এখন এক ভয়ংকর সময় পার করছে। চারদিকে শুধু সংকট। গণতন্ত্র নেই। মানুষের কোন অধিকার নেই। একদলীয় বাকশাল স্টাইলে দেশ চালাচ্ছে সরকার। তারা আজ দেশ ও মানুষের বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। আজীবন ক্ষমতায় থাকার চেষ্টা করছে।”

বিএনপি মহাসচিব বলেন, “আজকে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানগুলোতে ভিকারুননিসা নুন স্কুলের প্রিন্সিপাল বসিয়েছে সরকার। বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে একই অবস্থা। তারা এভাবে সবকিছু ধ্বংস করছে।”

প্রয়াত শফিউল বারী বাবুকে স্মরণ করে মির্জা ফখরুল বলেন, “যখন তার মতন নেতার দরকার ছিল তখন তিনি চলে গেলেন। একজন সম্ভাবনাময় নেতা ছিলেন বাবু।”

স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত স্মরণসভায় সভাপতিত্ব করেন সংগঠনটির ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান। বক্তব্য রাখেন স্থায়ী কমিটির সদস্য ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু, ভাইস চেয়ারম্যান মো. শাহজাহান,জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীসহ সারা দেশের বিএনপি এবং স্বেচ্ছাসেবক দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতারা বক্তব্য রাখন।

গত বছরের এই দিনে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বাবু মারা যান। তিনি ক্যানসারে ভুগছিলেন। এ ছাড়া মৃত্যুর আগে তিনি ফুসফুসে সংক্রমণ ধরা পড়ে।

বাবুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে এরই মধ্যে স্বাস্থ্যবিধি মেনে কেন্দ্রীয়ভাবে নানা কর্মসূচি ঘোষণা করা হলেও করোনা পরিস্থিতিতে সরকারের কঠোর বিধিনিষেধে তা পালন করতে নেতা-কর্মীদের নিরুৎসাহিত করেছে স্বেচ্ছাসেবক দল।

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক আবদুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল সাংবাদিকদের বলেন, “বিধিনিষেধের কারণে আমরা লক্ষ্মীপুরে প্রয়াত শফিউল বারী বাবুর কবর জিয়ারতে যেতে পারছি না। তবে বিধিনিষেধ শেষে পরিস্থিতি বিবেচনায় আমাদের সেখানে কবর জিয়ারতে যাওয়ার পরিকল্পনা রয়েছে। প্রয়াত বাবুর কবরের পাশের মসজিদে তার রুহের মাগফিরাত কামনায় সপ্তাহব্যাপী কোরআন খতম চলছে।”

সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক জানান, বাবুর মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে পোস্টার আর স্মরণিকা প্রকাশ করা হয়। বর্তমান করোনা পরিস্থিতির কথা বিবেচনায় দোয়া মাহফিলের কর্মসূচি ভার্চুয়ালি করা হয়েছে।

স্থানীয় নেতাকর্মী ও পরিবারের পক্ষ থেকে লক্ষ্মীপুরের রামগতিতে প্রয়াত বাবুর কবর জিয়ারত ও বিশেষ মোনাজাত করা হয়েছে।