প্লাস্টিকখেকো ফাঙ্গাস!|307270|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০
প্লাস্টিকখেকো ফাঙ্গাস!
রূপান্তর ডেস্ক

প্লাস্টিকখেকো ফাঙ্গাস!

প্লাস্টিক সহজে পচে-গলে মাটিতে মিশে যায় না। ফলে প্লাস্টিক বর্জ্য পরিবেশের জন্য এত বড় হুমকি হয়ে উঠেছে। কিন্তু যদি এমন হয় যে এক ধরনের ফাঙ্গাস প্রয়োগ করা হলো, যা এই প্লাস্টিককে আক্ষরিক অর্থেই ‘খেয়ে ফেলতে’ পারে, তাহলে হয়তো প্লাস্টিক বর্জ্য প্রকৃতিতে মিশে যাওয়ার কাজটা পানির মতো সহজ হয়ে যাবে। পৃথিবীর পরিবেশ রক্ষার জন্য এটা যে কত বড় ঘটনা হবে, তা বুঝিয়ে বলার অপেক্ষা রাখে না।

একজন বিজ্ঞানী আকস্মিকভাবেই ঠিক এটাই আবিষ্কার করে ফেলেছেন। অন্য এক বিষয়ে গবেষণার কাজ করতে গিয়ে সামান্থা জেংকিনস নামে এ গবেষক আবিষ্কার করেছেন এমন একটি ফাঙ্গাস বা ছত্রাক যা প্লাস্টিক খেকো। এক ধরনের প্লাস্টিক আছে যাকে বলে পিইটি (পলিইথাইলিন টেরেপথালেট); যা ব্যবহার করা হয় নানা রকমের পানীয়ের বোতল তৈরির জন্য। এগুলো সহজে নষ্ট হয় না। সামান্থা জেংকিনস ঠিক করলেন, এই পিইটিকে ফাঙ্গাস দিয়ে ধ্বংস করা যায় কিনা সেটাই পরীক্ষা করে দেখবেন।

জেংকিনস এখন তার আবিষ্কৃত ফাঙ্গাসটি পিইটি আর পলিইউরিথেনের ওপর পরীক্ষা করে দেখছেন। তার ভাষ্যমতে, ‘আপনি প্লাস্টিক দিচ্ছেন, ফাঙ্গাসটা সেই প্লাস্টিক খেয়ে ফেলছে। তারপর ফাঙ্গাস জন্ম দিচ্ছে আরও ফাঙ্গাসের; আর সেটা থেকে আপনি নানা রকম বায়ো-মেটিরিয়াল বা জৈব পদার্থ তৈরি করতে পারছেন। সেটা নানা কাজে লাগানো যেতে পারে, খাবার তৈরির জন্য, পশুর জন ফিডস্টক তৈরিতে, এমনকি এন্টিবায়োটিক তৈরির কাজে।’ সামান্থা জেংকিনস হচ্ছেন বায়োহম নামে একটি বায়ো-ম্যানুফ্যাকচারিং ফার্মের প্রধান বায়োটেক প্রকৌশলী। তার কোম্পানির একটি গবেষণা প্রকল্পের কাজের জন্য তিনি কয়েক রকম ফাঙ্গাস নিয়ে পরীক্ষা-নিরীক্ষা চালাচ্ছিলেন। এর মধ্যে একটি ফাঙ্গাস এমন একটা কাণ্ড করে বসল যে তার গবেষণার গতিপথ ঘুরে গেল অন্যদিকে।

তিনি আরও বলেন ‘ধরুন, একটা জারভর্তি আছে শস্যকণা; আর তার ওপরে এক দলা ফাঙ্গাস গজিয়েছে। ব্যাপারটা দেখতে মোটেও উত্তেজনাকর বা আকর্ষণীয় কিছু ছিল না। কিন্তু যেই জারটা খোলা হলো, দেখা গেল দারুণ এক ব্যাপার ঘটে গেছে।’ জেংকিনস দেখলেন, জারটা বায়ুরোধী করার জন্য যে প্লাস্টিকের স্পঞ্জ দেওয়া ছিল ফাঙ্গাসগুলো সেটাতে ক্ষয় ধরিয়েছে এবং অন্য যেকোনো খাবারের মতোই সেটাকে হজম করে ফেলেছে। জেংকিনসের প্রকল্পের লক্ষ্য ছিল জৈবভিত্তিক পদার্থকে ইনসুলেশন প্যানেল তৈরিতে কীভাবে ব্যবহার করা যায় সেটা পরীক্ষা করা। কিন্তু এই প্লাস্টিক খেকো ‘ক্ষুধার্ত ফাঙ্গাস’ তাদের গবেষণাকে নিয়ে গেল অন্য আরেক দিকে।