রোমানের ইভেন্টে তুর্কি রূপকথা|307281|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১ আগস্ট, ২০২১ ০০:০০
রোমানের ইভেন্টে তুর্কি রূপকথা
ক্রীড়া প্রতিবেদক

রোমানের ইভেন্টে তুর্কি রূপকথা

গতকাল দেশে ফেরার বিমান ধরেছেন রোমান সানা। তার ইভেন্টেই কাল তুর্কি রূপকথার জন্ম দিয়েছেন ২২ বছর বয়সী আর্চার ম্যাট গ্যাজজ। পুরুষ একক রিকার্ভ ফাইনালে ফেভারিট ইতালিয়ান আর্চার মাউরো নেসপলিকে ৬-৪ সেট পয়েন্টে হারিয়ে তুরস্ককে টোকিও অলিম্পিকে প্রথম স্বর্ণপদকের স্বাদ দিয়েছেন গ্যাজজ। বাঘা বাঘা সব আর্চারকে পেছনে ফেলে গ্যাজজের সেরা হওয়া বড় এক চমকই। গতকাল এই ইভেন্টের মধ্য দিয়ে শেষ হয়েছে আর্চারি। পাঁচ স্বর্ণপদকের বাকি চারটি জিতেছেন ফেভারিট দক্ষিণ কোরিয়ার আর্চাররা।

প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার টেইলর ওর্থকে হারিয়ে দিনের শুরু করেছিলেন গ্যাজজ। পুরুষ এককে সবার নজর ছিল র‌্যাংকিংয়ের শীর্ষে থাকা মার্কিন আর্চার ব্র্যাডি অ্যালিসনের দিকে। কোয়ার্টার ফাইনালে দু’বারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অ্যালিসনকে ৭-৩ সেট পয়েন্টে হারিয়ে বড় অঘটনের জন্ম দেন ২০১৮ ও ২০১৯ বিশ্বকাপে সোনাজয়ী তুরস্কের আর্চার। সেমিফাইনালে স্বাগতিক ফুরুওয়াকা তাকাহারুকে ৭-৩ সেট পয়েন্টে হারিয়ে স্বপ্নের ফাইনালে উঠে আসেন গ্যাজজ। অপর সেমিফাইনালে চাইনিজ তাইপের চিন-চুন তাংকে হারিয়ে অলিম্পিকের এককে প্রথম স্বর্ণজয়ের খুব কাছে পৌঁছে গিয়েছিলেন ২০১২ লন্ডন অলিম্পিকে দলগত ইভেন্ট সোনাজয়ী ইতালি দলের সদস্য মাউরো নেসপলি। ফাইনালে শুরুতে এগিয়ে গেলেও গ্যাজজের কাছে ৬-৪ সেট পয়েন্টে হেরে যান এই ইতালিয়ান তারকা। প্রথম সেট ২৯-২৮ পয়েন্টে জিতেছিলেন ২০১৯ বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপে ব্রোঞ্জপদক নির্ধারণী ম্যাচে রোমান সানার কাছে হেরে যাওয়া নেসপলি। দ্বিতীয় সেটটি ড্র হওয়ার পর তৃতীয় সেট ২৭-২৬ পয়েন্টে জিতে নেন গ্যাজজ। চতুর্থ সেটে থাকে সমতা। আর পঞ্চম সেটে নেসপলি ছন্দ হারালে ২৯-২৬ পয়েন্টে স্বর্ণপদক নিশ্চিত করেন গ্যাজজ।

টোকিও গেমসে এর আগে দুটি ব্রোঞ্জ জিতেছিল তুরস্ক। দুটি পদকই এসেছিল তায়কোয়ান্দো থেকে। গ্যাজজের হাত ধরে আসরে প্রথম স্বর্ণপদকের স্বাদ পেল তুরস্ক। শুধু তাই নয়, অলিম্পিকের আর্চারিতে দেশটির জন্য এটিই প্রথম পদক। অতীতে জেতা ৩৯ স্বর্ণের বেশিরভাগই তুরস্ক জিতেছে কুস্তি (২৯ স্বর্ণ) থেকে। এ ছাড়া ভারোত্তোলন থেকেও এসেছে আট স্বর্ণ। তায়কোয়ান্দো, জুডো থেকে এসেছিল বাকি দুই স্বর্ণপদক। আর্চারিতে পুরুষ একক বাদে বাকি চারটি ইভেন্টেই বিশ্ব আর্চারি শাসন করা দক্ষিণ কোরিয়ার জয়জয়কার। পুরুষ ও মহিলা দলগত ইভেন্ট ছাড়াও কোরিয়া মিক্সড টিম ইভেন্ট ও মহিলা একক ইভেন্টে সেরা হয়েছে। রিও অলিম্পিকে চার স্বর্ণের সবকটিই নিজেদের করে নেওয়া কোরিয়ানরা শুধু হতাশ হয়েছেন পুরুষ একক ইভেন্টে। র‌্যাংকিং রাউন্ডে নতুন গেমস রেকর্ড গড়ে শীর্ষস্থান পেয়েছিলেন কোরিয়ার কিম জে-দিওক। কিন্তু এলিমিনেশনের দ্বিতীয় রাউন্ডেই তাকে হারতে হয় জার্মান প্রতিযোগীর কাছে। আরেক কোরিয়ান কিম উ-জিন কোয়ার্টার ফাইনালে হেরে যান তাইপের চিন-চুন তাংয়ের কাছে। কোরিয়া পুরুষ দলগত স্বর্ণজয়ী দলের অপর সদস্য ওহ জিন হায়েক তৃতীয় রাউন্ডে হারেন ভারতের অতনু দাসের কাছে। যিনি প্রি-কোয়ার্টার ফাইনালে জাপানিজ তাকাহারুর কাছে হেরে বিদায় নেন।

এলিমিনেশনের প্রথম রাউন্ডে ব্রিটিশ আর্চার টম হলকে হারানোর পর বাংলাদেশের রোমান সানা দ্বিতীয় রাউন্ডে দারুণ লড়াই করে কানাডার ডুয়েনাস ক্রিসপিনের কাছে হেরে বিদায় নেন। মহিলা এককে অংশ নিয়ে এলিমিনেশনের প্রথম রাউন্ডেই শুট অফে বেলারুশের প্রতিযোগীর কাছে হেরে যান বাংলাদেশের দিয়া সিদ্দিকী।