দেশের বাজারে বিভিন্ন ব্রান্ডের ৫জি স্মার্টফোন|311779|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ আগস্ট, ২০২১ ১৫:২৯
দেশের বাজারে বিভিন্ন ব্রান্ডের ৫জি স্মার্টফোন
অনলাইন ডেস্ক

দেশের বাজারে বিভিন্ন ব্রান্ডের ৫জি স্মার্টফোন

অনেক দেশ এরই মধ্যে দ্রুতগতির নেটওয়ার্ক ৫জি চালু করেছে। তাই বিশ্বব্যাপী চাহিদা বেড়েছে ৫জি স্মার্টফোনের। বাংলাদেশের বাজারেও বেড়েছে ৫জি স্মার্টফোনের চাহিদা। ব্যবহারকারীদের চাহিদার কথা মাথায় রেখেই বিভিন্ন স্মার্টফোন ব্র্যান্ড দেশে ৫জি ফোন উন্মোচন করেছে। দেশের বাজারে থাকা কয়েকটি ৫জি ফোন সম্পর্কে চলুন জেনে নিই।

গ্যালাক্সি এস২১ আল্ট্রা ৫জি

দেশের বাজারে গ্যালাক্সি এস২১ আল্ট্রা ৫জি স্মার্টফোন এনেছে স্যামসাং বাংলাদেশ। দুর্দান্ত ক্যামেরা ও শক্তিশালী পারফরম্যান্স পাবেন ব্যবহারকারীরা। গ্যালাক্সি এস২১ আল্ট্রা ৫জি ফোনে অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এক্সিনোস ২১০০ চিপসেট ব্যবহার করা হয়েছে, যা প্রথম ৫এনএম এক্সিনোস প্রসেসর।

এটি দেয় দ্রুতগতি, উদ্ভাবনী কম্পিউটিং ও ব্যাটারি সাশ্রয়। ডিভাইসটিতে স্যামসাং নক্স ভল্ট থাকায় অতিরিক্ত সুরক্ষা দেয়। গ্যালাক্সি এস২১ আল্ট্রা ৫জি ডিভাইসটিতে রয়েছে ৬.৮ ইঞ্চি ডায়নামিক অ্যামোলেড ২এক্স ডিসপ্লে।

স্যামসাংয়ের নিজস্ব নতুন কনট্যুর কাট ক্যামেরা ডিজাইনের এই ফোনে ১০৮ মেগাপিক্সেল প্রো সেন্সরসহ কোয়াড ক্যামেরা সেটআপ আছে। সেন্সরটি ব্যবহারকারীদের ১২-বিট এইচডিআর ছবি, ৬৪ গুণ উন্নতমানের কালার ডাটা এবং তিনগুণ ডায়নামিক রেঞ্জের ছবি তোলার সুবিধা দেয়। ডিভাইসটির দাম ১ লাখ ৩৯ হাজার ৯৯৯ টাকা।

মি ১১ এক্স ৫জি

শাওমি এমআই ১১ এক্স ৫জি ফোনে আছে ১২০ হার্জের ৬.৬৭ ইঞ্চির সুপার অ্যামোলেড ডিসপ্লে। ডিসপ্লের রেজুলেশন ১০৮০X২৪০০ পিক্সেল। ডিসপ্লের সুরক্ষায় রয়েছে কর্নিং গরিলা গ্লাস ৫ প্রটেকশন।

ফোনটিতে রয়েছে ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ। রয়েছে ৪৮ মেগাপিক্সেলের ওয়াইড ক্যামেরা, একটি ৮ মেগাপিক্সেলের আলট্রা ওয়াইড ক্যামেরা ও একটি ৫ মেগাপিক্সেলের ম্যাক্রো ক্যামেরা। এতে এলইডি ফ্ল্যাশ, এইচডিআর, প্যানোরামাসহ বিভিন্ন ফিচার রয়েছে। সেলফি তোলার জন্য রয়েছে ২০ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ক্যামেরা। সেলফি ক্যামেরায় এইচডিআরসহ বেশ কিছু ফিচার রয়েছে।

৫জি ফোন হওয়ায় দুর্দান্ত পারফরম্যান্স দিতে স্মার্টফোনটিতে দেয়া হয়েছে কোয়ালকম স্ন্যাপড্রাগন ৮৭০ অক্টা-কোর প্রসেসর। এতে ব্যবহারকারীরা পাবেন অসাধারণ গতি। ফোনটিতে দেয়া হয়েছে অ্যান্ড্রয়েড ১১ এবং শাওমির এমআইইউআই ১২।

দীর্ঘসময় পাওয়ার ব্যাকআপ দিতে শাওমি এমআই ১১ এক্স স্মার্টফোনে আছে ৪৫২০ এমএএইচের ব্যাটারি, এটি সাপোর্ট করে ৩৩ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং, কুইক চার্জ ৩+ এবং সে সঙ্গে আছে ৩.০ পাওয়ার ডেলিভারি সুবিধা।

ফোনটি দেশে পাওয়া যাচ্ছে ৬+১২৮ ও ৮+১২৮ জিবি ভ্যারিয়েন্টে। দাম যথাক্রমে ৩৯,৯৯৯ টাকা ও ৪২,৯৯৯ টাকা।

রিয়েলমি ৮ ৫জি

রিয়েলমি ৮ ৫জিতে রয়েছে ডাইমেনসিটি ৭০০ প্রসেসর। রয়েছে ৮ জিবি র্যাম ও ৫ জিবি ডায়নামিক র্যামের সঙ্গে ১২৮ জিবি স্টোরেজ। স্টোরেজ ১ টেরাবাইট পর্যন্ত বাড়ানো যাবে। স্মার্টফোনটি ডিজাইন করা হয়েছে জনপ্রিয় ফাস্ট অ্যান্ড ফিউরিয়াস থেকে অনুপ্রাণিত হয়ে। সিনেমার গতিময় হেডলাইট থেকে ধারণা নিয়ে তা ফোনের পিছনে ডায়নামিক স্পিড লাইট ডিজাইন তৈরি করা হয়েছে। ফোনে রয়েছে ৯০ হার্জ ফুল এইচডিপ্লাস আলট্রা-স্মুথ ডিসপ্লে, ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। ফোনটির দাম ২৪,৯৯০ টাকা।

পোকো এম৩ প্রো ৫জি

অধিক গতি ও পারফরম্যান্স নিয়ে পোকো এম৩ প্রো ৫জি ফোনটিতে আছে ফ্ল্যাগশিপ লেভেলের মিডিয়াটেক ডাইমেনসিটি ৭০০ প্রসেসর। পেছনে ৪৮ মেগাপিক্সেলের ট্রিপল ক্যামেরা সেটআপ, শক্তিশালী ৫০০০ এমএএইচ ব্যাটারি। ৬.৫ ইঞ্চির ৯০হার্জের এফএইচডি প্লাস ডটড্রপ ডিসপ্লেসহ ৫জি ডুয়াল সিম সাপোর্ট।

পোকো এম৩ প্রো ৫জি বক্সে আছে ২২.৫ ওয়াট চার্জার। এ ছাড়া সাপোর্ট করবে ১৮ ওয়াটের ফাস্ট চার্জিং। ৫জি নেটওয়ার্ক থাকায় এটি দেবে সুপারফাস্ট ডাউনলোড অভিজ্ঞতা। স্টাইলিশ ডিভাইসটির পেছনে থাকছে থ্রিডি কার্ভড ডিজাইন এবং গ্লসি ফিনিশ। ডিভাইসটির পাশে দেয়া ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্ক্যানার খুব সহজেই ফোন আনলক করার সুবিধা দেবে। পোকো এম৩ প্রো ৫জি ফোনটির ৬+১২৮ জিবি স্টোরেজ ভ্যারিয়েন্টের দাম ২৩,৯৯৯ টাকা।