১১ হাজার বছর আগে বিলুপ্ত প্রাণী ফের ফিরবে পৃথিবীতে|315612|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০
১১ হাজার বছর আগে বিলুপ্ত প্রাণী ফের ফিরবে পৃথিবীতে
রূপান্তর ডেস্ক

১১ হাজার বছর আগে বিলুপ্ত প্রাণী ফের ফিরবে পৃথিবীতে

পৃথিবীতে মানুষের বসবাসের হার যত বাড়ছে ঠিক তেমনি হারে বাড়ছে প্রাণী বিলুপ্তির হার। বিজ্ঞানীরা চেষ্টা করছেন বিলুপ্ত ও বিলুপ্তপ্রায় সকল প্রাণীকে আবার ফিরিয়ে আনতে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে কৃত্রিম প্রজনন আবার কোনো ক্ষেত্রে জিন প্রকৌশলের মাধ্যমে হারিয়ে যাওয়া প্রাণীদের ফিরিয়ে আনার উদ্যোগ নিচ্ছেন গবেষকরা। সম্প্রতি হাজার বছর আগে হারিয়ে যাওয়া একটি প্রাণীকে প্রকৃতিতে ফেরানোর উদ্যোগ নিয়েছে একটি বৈজ্ঞানিক প্রতিষ্ঠান। কলোসাল নামের প্রতিষ্ঠানটি সফল হলে পৃথিবীতে আবার হেঁটে বেড়াবে দৈত্যাকার ম্যামথ।

জার্মান সংবাদমাধ্যম ডয়েচে ভেলের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, জিন পরিবর্তন করার প্রযুক্তি ক্রিসপার ব্যবহার করে ১১ হাজার বছর আগে হারিয়ে যাওয়া উলি ম্যামথকে ফিরিয়ে আনার পরিকল্পনা করছে বায়োসায়েন্স কোম্পানি কলোসাল। কোম্পানিটির যৌথ প্রতিষ্ঠাতা প্রযুক্তি উদ্যোক্তা বেন লাম ও হার্ভার্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রজনন শাস্ত্রবিদ জর্জ চার্চ। তারা ইতিমধ্যে ম্যামথের দাঁত, হাড় ও অন্যান্য অংশ খুঁজে পেয়েছেন, যেগুলো দিয়ে ম্যামথের ডিএনএ সিকোয়েন্স করার চেষ্টা করা হবে। এরপর সেই ডিএনএ এশিয়ান হাতির জিনে ঢুকিয়ে ‘হাতি-ম্যামথ সংকর’ তৈরির চেষ্টা করা হবে বলে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে কলোসাল।

এ কাজের জন্য ইতিমধ্যে বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে ১২৭ কোটি টাকার বেশি সংগ্রহ করেছে কলোসাল। কলোসাল দাবি করছে, উলি ম্যামথ দিয়ে তুন্দ্রা অঞ্চলের সঞ্জীবনী শক্তি ফিরিয়ে আনা যেতে পারে, যা বৈশ্বিক উষ্ণতা কমাতে পারে। তবে কীভাবে সেটা সম্ভব তার বিস্তারিত জানায়নি তারা।

অবশ্য বিলুপ্ত প্রাণী ফিরিয়ে আনার কিছু সমস্যা আছে। ২০১৭ সালে ‘নেচার ইকোলজি ও এভুলিউশন’ জার্নালে প্রকাশিত এক গবেষণা বলছে, এমন কাজে অনেক বেশি অর্থ ব্যয় হবে। সেটা না করে ওই টাকা বর্তমানে টিকে থাকা প্রজাতি রক্ষায় কাজে লাগানো ভালো হবে। এছাড়া পুনরুজ্জীবিত করা প্রাণীর শরীরে নতুন প্যাথোজেন থাকতে পারে, যা মানুষকে সংক্রমিত করতে পারে।