চাঁদে এক একর জমি কিনলেন সাতক্ষীরার ২ তরুণ!|315725|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ২০:৪৩
চাঁদে এক একর জমি কিনলেন সাতক্ষীরার ২ তরুণ!
সাতক্ষীরা প্রতিনিধি

চাঁদে এক একর জমি কিনলেন সাতক্ষীরার ২ তরুণ!

যে চাঁদে সাবেক মার্কিন রাষ্ট্রপতি জর্জ ডাব্লিউ বুশ, জিমি কার্টার ও রোলান্ড রিগ্যানের জমি আছে সেখানেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী শেখ শাকিল হোসেন ও সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের শিক্ষার্থী শাহিন বিল্লাহ এক একর জমি কিনেছেন বলে দাবি করা হচ্ছে। 

ব্যাপারটি কল্পনার অতীত মনে হলেও চাঁদে জমি কেনার দাবি করেছেন বাংলাদেশের সাতক্ষীরার দুই তরুণ।

সাতক্ষীরা সদর উপজেলার জোড়দিয়া গ্রামের মেধাবী শিক্ষার্থী ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের  ছাত্র শাকিল হোসেন জানান, মঙ্গলগ্রহে জমি কেনার ভাইরাল হওয়া সংবাদটি আমার দৃষ্টি  কাড়ে। ওটা দেখার পর এ রকম কিছু করার ইচ্ছা থেকেই এ স্বপ্নের বাস্তবায়ন।

শাকিল জানান, সম্প্রতি চাঁদের জমি বিক্রি করা মার্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’ থেকে এক একর জমি কিনেছেন তিনি ও তার বন্ধু এস এম শাহিন বিল্লাহ। মাত্র ৫৫ ডলার দিয়ে জমি কিনেছেন বলে জানান তিনি। 

বুধবার (১৫ সেপ্টেম্বর) সেই জমির দলিলও পেয়েছেন তারা। চাঁদের ম্যাপেও উল্লেখ রয়েছে কোথায় তাদের জমি। চাঁদে জমি কেনা শেখ শাকিল হোসেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের প্রথম বর্ষে অধ্যয়নরত ও শাহিন আলম সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগে পড়ছেন।

শাকিল জানান, যে প্রতিষ্ঠান থেকে চাঁদে এর আগে জমি কিনেছেন সাবেক তিন মার্কিন রাষ্ট্রপতি জর্জ ডব্লিউ বুশ, জিমি কার্টার ও রোলান্ড রিগ্যান, সেই প্রতিষ্ঠানের মালিক ডেনিস হোপের কাছ থেকে জমি কিনেছেন সাতক্ষীরার
শ্যামনগর উপজেলার পাতাখালি গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী শহিদুল্লাহর ছেলে শাহিন আলম ও সাতক্ষীরা সদর উপজেলার জোড়দিয়া গ্রামের শেখ শাকিল হোসেন।

শাহিন আলম জানান, যুক্তরাষ্ট্রের সাবেক রাষ্ট্রপতি থেকে শুরু করে ভারতের অনেক নামীদামী তারকা চাঁদে জমি কিনেছেন। চাঁদে আমাদের জমি থাকবে, এমন শখ থেকেই খোঁজখবর নিতে শুরু করি এবং সব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করি।

এ তরুণ শিক্ষার্থীরা জানান, কল্পরাজ্যের চাঁদের দেশে এক টুকরো জমি কিনতে পেরে তারা দারুণ উচ্ছ্বসিত।

শাকিল জানান, চাঁদে জমি কেনার জন্য মার্কিন নাগরিক ডেনিস হোপের ‘লুনার অ্যাম্বাসি’-ই হলো সবচেয়ে জনপ্রিয় কোম্পানি। যার বাংলা অর্থ ‘চন্দ্র দূতাবাস’।

তাদের তথ্যানুযায়ী, চাঁদে জমির দাম একর প্রতি ২৪.৯৯ ডলার থেকে সর্বোচ্চ ৪৯৯ মার্কিন ডলার। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা প্রায় ২১২৫ টাকা থেকে ৪২,৪৩৭ টাকা। জমি কেনার পর ক্রেতাকে একটি বিক্রয় চুক্তি, কেনা জমির একটি স্যাটালাইট ছবি এবং জমিটির ভৌগলিক অবস্থান ও মৌজা-পর্চার মতো আইনি নথিও পাঠিয়ে থাকে সংস্থাটি।

এ ছাড়া কেউ যদি আরো একটু ব্যয় করতে রাজি থাকে, তাহলে তাদের জন্য চাঁদের সম্পূর্ণ মানচিত্র এবং অন্যান্য তথ্যও সরবরাহ করা হয়।