উত্তর কোরিয়া ছুঁড়েছে ট্রেন থেকে, দক্ষিণ কোরিয়া পানির নিচ থেকে|316293|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ১৯:০৭
উত্তর কোরিয়া ছুঁড়েছে ট্রেন থেকে, দক্ষিণ কোরিয়া পানির নিচ থেকে
অনলাইন ডেস্ক

উত্তর কোরিয়া ছুঁড়েছে ট্রেন থেকে, দক্ষিণ কোরিয়া পানির নিচ থেকে

ট্রেন থেকে এক জোড়া ব্যালিস্টিক ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে উত্তর কোরিয়া। এর কয়েক ঘণ্টার মধ্যেই পানির নিচ থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছুড়েছে দক্ষিণ কোরিয়াও। কোনও ট্রেন থেকে ক্ষেপণাস্ত্র ছোড়ার ঘটনা এই প্রথম। দক্ষিণ কোরিয়াও ডুবোজাহাজ থেকে এই প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল।

উত্তর কোরিয়ার সরকারি সংবাদ সংস্থার দাবি, সম্প্রতি রেলবাহিত ক্ষেপণাস্ত্র বাহিনীর এক মহড়ার সময় ক্ষেপণাস্ত্র দুটি ছোড়া হয়েছে। ৮০০ কিলোমিটার দূরে সমুদ্রে নিখুঁত নিশানায় গিয়ে পড়েছে সে দুটি। সরকারি মিডিয়ায় দেখা গিয়েছে, অরণ্যে ঘেরা এলাকায় ট্রেন থেকে আগুনের শিখা ছড়িয়ে দু’টি ক্ষেপণাস্ত্র ছিটকে উঠল। যার অর্থ, উত্তর কোরিয়া এ বার পাহাড়-জঙ্গলে যে কোনও এলাকায় ক্ষেপণাস্ত্র নিয়ে গিয়ে সেখান খেকে তা ছুড়তে পারবে।

এই ভ্রাম্যমাণ ব্যবস্থা তাদের নিরাপত্তা ব্যবস্থাকে অনেক দৃঢ় করে তুলবে দাবি উত্তর কোরিয়ার। যদিও দেশটির অল্প এলাকাতেই রেলপথ রয়েছে। ফলে সঙ্কটের সময় তাদের এই নতুন শক্তি গুঁড়িয়ে দিতে মোটেই বেশি সময় লাগবে না বলে মনে করা হচ্ছে।

দক্ষিণ কোরিয়ার সামরিক মুখপাত্র জানাচ্ছেন, আমেরিকা ও তাদের সামরিক বাহিনী উত্তর কোরিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার উপরে নজর রাখছে। বুধবার দেশীয় প্রযুক্তিতে তৈরি যে ক্ষেপণাস্ত্রটি দক্ষিণ কোরিয়া ছুড়েছে তা ৩০০০ টন শ্রেণির ডুবোজাহাজ থেকে ছোড়া হয়েছে এবং নিখুঁত লক্ষ্যে আঘাত হানতে সক্ষম হয়েছে। ডুবোজাহাজ থেকে এই প্রথম ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালাল দেশটি।

গত বুধবার দুই কোরিয়ার এই ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষার চেয়েও আন্তর্জাতিক স্তরে বেশি চিন্তা বাড়িয়েছে, উত্তর কোরিয়ার প্রেসিডেন্ট কিমের পরমাণু শক্তি বাড়ানোর চেষ্টা। উপগ্রহ চিত্রে দেখা গেছে, ইয়ংবিয়ন-এ ইউরেনিয়াম পরিশোধনের কারখানাটিতে সম্প্রসারণের কাজ শুরু হয়েছে। যার অর্থ, ডোনাল্ড ট্রাম্পের সময় আমেরিকার সঙ্গে আলোচনার পরে পরমাণু অস্ত্র তৈরির ওপর কিম নিজে থেকে যে নিয়ন্ত্রণ আরোপ করেছিলেন, এখন তা আবার উঠিয়ে নিচ্ছেন।

প্রতিরক্ষা নজরদারি জোট ‘আর্মস কন্ট্রোল ওয়ঙ্ক’ এবং আরও অন্তত ৩৮টি ওয়েবসাইট জানাচ্ছে, কিম বড় পরমাণু বোমা তৈরির লক্ষ্যে সামনে এগোবেন বলে সম্প্রতি যে ঘোষণা করেছেন, ইয়ংবিয়ন শোধনাগারের সম্প্রসারণ তারই ধারাবাহিকতা।

আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থাও জানিয়েছে, উত্তর কোরিয়া ফের পরমাণু বোমার জ্বালানি তৈরির কাজে উদ্যোগী হয়েছে।