এলিটাকে রেখে সাফের ২৭|317209|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০২১ ০০:০০
এলিটাকে রেখে সাফের ২৭
ক্রীড়া প্রতিবেদক

এলিটাকে রেখে সাফের ২৭

সাফ চ্যাম্পিয়নশিপের বাকি আর নয় দিন। মালদ্বীপ যাওয়ার আগে তাই দলের প্রস্তুতির সুযোগ আছে মাত্র পাঁচদিন। তাই এত অল্প সময়ে জেমি ডে’র রেখে যাওয়া ৩৪ সদস্যের প্রাথমিক তালিকাটা ছেঁটে ২৭-এ নামিয়ে এনেছেন জেমি ডে’র স্থলাভিষিক্ত অস্কার ব্রুজন। যার ফলে আগের দিন বেশ ক’জন ফুটবলার কভিড-১৯ পরীক্ষার জন্য আগেভাগে টিম হোটেলে যোগ দিলেও হতাশা নিয়ে ছাড়তে হয়েছে ক্যাম্প। গতকাল আনুষ্ঠানিকভাবে সাফে বাংলাদেশের কোচ হিসেবে বসুন্ধরা কিংসের স্প্যানিশ কোচ ব্রুজনকে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশন। সেই সংবাদ সম্মেলনে সাফের জন্য ২৭-সদস্যের প্রাথমিক তালিকা প্রকাশ করেন স্প্যানিশ কোচ। যেখানে তিনি রেখেছেন সম্প্রতি বাংলাদেশের নাগরিকত্ব পাওয়া নাইজেরিয়ান ফরোয়ার্ড এলিটা কিংসলেকেও। ফিফার ছাড়পত্র না মিললেও দলের গোল সংকট কাটানোর মূল সমাধান হিসেবে ব্রুজনের ২৭-এ আছেন কিংসলে।

মাসের শুরুতে কিরগিজস্তানের খেলে আসা ২৩ সদস্যের জাতীয় দলের থেকে তিনজনকে নিজের দলে রাখেননি ব্রুজন। বাদ পড়েছেন তিন জন- গোলরক্ষক মিতুল মারমা এবং দুই প্রবাসী তরুণ রাহবার ওয়াহেদ খান ও নায়েব মোহাম্মদ তাহমিদ ইসলাম। এলিটা ছাড়াও আবাহনীর তরুণ মিডফিল্ডার মোহাম্মদ হৃদয় ব্রুজনের দলের নতুন মুখ। এছাড়া বিভিন্ন মেয়াদে বাইরে থাকা পাঁচজন ফিরেছেন। তৃতীয় গোলরক্ষক হিসেবে ফিরেছেন শেখ রাসেলের আশরাফুল ইসলাম রানা, বসুন্ধরার মিডফিল্ডার আতিকুর রহমান ফাহাদ, আবাহনীর ডিফেন্ডার টুটুল হোসেন বাদশা, লিগে স্থানীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ গোল করা আবাহনীর ফরোয়ার্ড জুয়েল রানা এবং চট্টগ্রাম আবাহনীর মিডফিল্ডার মানিক হোসেন মোল্লাকে ফিরিয়েছেন ব্রুজন। আলোচনার কেন্দ্রে ছিলেন এলিটা কিংসলে। ব্রুজনের অধীনেই শেষ ক’ম্যাচ বসুন্ধরায় নিয়মিত খেলেছেন এলিটা। তাই আক্রমণভাগে ব্রুজন তাকেই ধরেছেন সেরা পছন্দ হিসেবে। কিন্তু ফিফা এখনো তাকে জাতীয় দলের জার্সি পরার অনুমতি দেয়নি। বাফুফে জোর চেষ্টা চালাচ্ছে সাফের আগে অনুমতি নিয়ে আসার। ব্রুজন বলেন, ‘জানি না সে (এলিটা) খেলতে পারবে কি না। পেলে তো ভালোই হবে। তবে এরমধ্যেই বিকল্প একটা পরিকল্পনা করে রেখেছি। একজনের ওপর নির্ভর না করে স্ট্রাইকিং পজিশনে এমন দুজনকে বাছাই করতে চাই, যারা গোল খরা কাটাতে পারে।’

এলিটার অনুমতি প্রাপ্তি প্রসঙ্গে সংবাদ সম্মেলনে বাফুফের সহ-সভাপতি ও জাতীয় দল কমিটির প্রধান কাজী নাবিল জানান, ‘আমরা ফিফার চাহিদা মতো সব কাগজপত্র জমা দিয়েছি। এখন বিষয়টি পুরোটাই তাদের ওপর। আশা করছি সাফের আগেই ছাড়পত্র পেয়ে যাব।’ এলিটা নিজেও খুব করে সাফের আগেই ফিফার ছাড়পত্র পেতে চাইছেন। তার আগে অবশ্য জাতীয় দলে প্রথমবারের মতো ডাক পাওয়ার প্রতিক্রিয়া দিয়েছেন এভাবে, ‘একজন পেশাদার ফুটবলারের কাছে জাতীয় দলের জার্সি একটা স্বপ্নের মতো। এই ডাক পাওয়ার অপেক্ষাটা আমার অনেক দিনের। শেষ পর্যন্ত সেটা পেয়েছি। এখন এই জার্সির সম্মান রাখতে চাই যদি খেলার সুযোগ পাই। প্রতিটি খেলোয়াড়ই চায় তার দলকে সেরাটা দিতে। আমারও একই লক্ষ্য। তবে তার আগে আমাদের পুরো দলের সামর্থ্য সম্পর্কে ভালো করে জানতে হবে। কারণ আমরা একেকজন একেক ক্লাব থেকে এসেছি। কিছুদিন গেলেই আমরা সেটা বুঝতে পারব। সেভাবেই সাফের প্রস্তুতি তৈরি হবে।’

এলিটার মতোই উচ্ছ্বাস ঝরেছে দু’বছর পর জাতীয় দলে ফেরা জুয়েল রানার কণ্ঠে। সর্বশেষ ২০১৯ সালের অক্টোবরে ভারতের বিপক্ষে সল্টলেকে বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের দলে ছিলেন জুয়েল। এরপরই পারফরম্যান্সের কারণে বাদ পড়তে হয় তাকে। লিগে স্থানীয়দের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ গোল করায় ফের খুলেছে জাতীয় দলের দরজা। এই সুযোগটাকে কাজে লাগাতে মুখিয়ে আরামবাগের বিপক্ষে স্থানীয়দের মধ্যে একমাত্র হ্যাটট্রিক করা জুয়েল, ‘বিদেশিদের কারণে স্থানীয়রা আসলে ঘরোয়া ফুটবলে সেভাবে খেলার সুযোগ পায় না। ফলে নিজেকে প্রমাণের সুযোগটাও কম থাকে। সেবার পারফরম্যান্সের কারণেই দল থেকে বাদ পড়েছিলাম। এবার পারফরম্যান্স দিয়ে দলে ফিরেিেছ। সর্বোচ্চ চেষ্টা করব এই পারফরম্যান্সটা ধরে রেখে জাতীয় দলের হয়ে পারফর্ম করতে।’