চালের দাম কিছুটা বেড়েছে অস্বীকার করব না: কৃষিমন্ত্রী|320704|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১০ অক্টোবর, ২০২১ ১৭:৫৪
চালের দাম কিছুটা বেড়েছে অস্বীকার করব না: কৃষিমন্ত্রী
গাজীপুর প্রতিনিধি

চালের দাম কিছুটা বেড়েছে অস্বীকার করব না: কৃষিমন্ত্রী

কৃষিমন্ত্রী ড. মো. আব্দুর রাজ্জাক বলেছেন, চালের দাম কিছুটা বেড়েছে এটা আমি অস্বীকার করব না। কম আয় বা সীমিত আয়ের মানুষের একটু কষ্ট হচ্ছে। কিন্তু দেশে কোনো দুর্ভিক্ষ অবস্থা নাই।

তিনি বলেন, কৃষির বাণিজ্যিকীকরণের মাধ্যমে কৃষকের জন্য কৃষিকে লাভজনক খাত হিসেবে গড়ে তুলতে চাই। বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানীরা যেভাবে কাজ করে চলেছেন তা জাতীয় ও আন্তর্জাতিকভাবে প্রশংসিত হচ্ছে। কৃষির সার্বিক উন্নয়ন ও আধুনিকায়নে এ প্রতিষ্ঠান গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে চলেছে। আমরা সবার কাছে খাবার পৌঁছে দিতে চাই। দেশে পর্যাপ্ত খাবার মজুত আছে।

রবিবার সকালে বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের (বারি) ‘কেন্দ্রীয় গবেষণা পর্যালোচনা ও কর্মসূচি প্রণয়ন কর্মশালা-২০২১’ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন কৃষিমন্ত্রী।

কর্মশালা মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন অনুষ্ঠানের সভাপতি ও বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা ইনস্টিটিউটের মহাপরিচালক ড. মো. নাজিরুল ইসলাম।

গত অর্থবছর যে সব গবেষণা কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছিল সেগুলোর মূল্যায়ন এবং এসব অভিজ্ঞতার আলোকে আগামী বছরের গবেষণা কর্মসূচি প্রণয়নের উদ্দেশ্যে এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল এমপি, কৃষি মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মো. মেসবাহুল ইসলাম, বাংলাদেশ কৃষি গবেষণা কাউন্সিলের (বিএআরসি) নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. শেখ মোহাম্মদ বখতিয়ার, সাবেক সচিব ও বিএআরসির প্রাক্তন নির্বাহী চেয়ারম্যান ড. জহুরুল করিম।

উপস্থিত ছিলেন বারির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক (অব.) ও ইমেরিটাস সায়েন্টিস্ট, এনএআরএস, ড. কাজী এম বদরুদ্দোজা।

সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে কৃষিমন্ত্রী বলেন, গ্রীষ্মকালীন ও আমদানি করা পেঁয়াজ বাজারে আসার পরপরই আগামী ৫/২০ দিন পর দাম নিয়ন্ত্রণে আসবে। পেঁয়াজ হারভেস্ট করেছে সেই এপ্রিল মাসে, এত দিন পর্যন্ত পেঁয়াজ থাকে না। তাই পেঁয়াজ চাষিরা সব বিক্রি করে দেয়। পেঁয়াজ পচনশীল ও মজুত রাখার তেমন কোনো ব্যবস্থা না থাকায় মৌসুমের শেষের দিকে বাজারে দাম পেঁয়াজের বেড়ে যায়।

অনুষ্ঠানে কৃষি মন্ত্রণালয়ের এপিএ পুলের সদস্যবৃন্দ, বারির অবসরপ্রাপ্ত মহাপরিচালক, পরিচালক, মুখ্য বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।