৭ দিনে মৃতদের ৮২.৫ শতাংশই টিকা নেননি|322326|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৯ অক্টোবর, ২০২১ ০০:০০
৭ দিনে মৃতদের ৮২.৫ শতাংশই টিকা নেননি
নিজস্ব প্রতিবেদক

৭ দিনে মৃতদের ৮২.৫ শতাংশই টিকা নেননি

 দেশে গত ৪ অক্টোবর থেকে ১০ অক্টোবর পর্যন্ত করোনাতে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন ৮০ জন। তাদের মধ্যে ৬৬ জন অর্থাৎ ৮২ দশমিক ৫ শতাংশই টিকা নেননি। আর টিকা নিয়েছেন ১৪ জন। তাদের ১ম ডোজ পেয়েছেন ৮ জন। দুই ডোজ নিয়েছেন ৬ জন। এ সময় দেশে করোনায় যত মৃত্যু হয়েছে, তাদের অর্ধেকের বেশি ব্যক্তির কো-মরবিডিটি বা বিভিন্ন রোগ ছিল। তাদের মধ্যে ৪৬ জন বা ৫৭ দশমিক ৫ শতাংশই বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত ছিলেন। সবচেয়ে বেশি ছিল ডায়াবেটিস রোগ। এরপর উচ্চ রক্তচাপ, কিডনিজনিত রোগ, বক্ষব্যাধি ও হৃদরোগে আক্রান্তের সংখ্যা ছিল আশঙ্কাজনক। স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে গত সপ্তাহের মৃত্যুর তথ্য পর্যালোচনায় এসব তথ্য জানা গেছে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য পর্যালোচনায় বলা হয়েছে, গত এক সপ্তাহে করোনায় মারা গেছেন ৮০ জন। তাদের মধ্যে ৪৬ জন বা ৫৭ দশমিক ৫ শতাংশের কো-মরবিডিটি ছিল। এর আগের সপ্তাহে এ হার ছিল ৫৯ দশমিক ১ শতাংশ। তখন কো-মরবিডিটিতে মারা যান ৬৮ জন। করোনার পাশাপাশি বিভিন্ন রোগের মধ্যে সবচেয়ে বেশি ডায়াবেটিসে ৬০ দশমিক ৩ শতাংশ, উচ্চ রক্তচাপে ৫৪ দশমিক ৪ শতাংশের। এরপর ১১ দশমিক ৮ শতাংশ হৃদরোগে,  ১৩ দশমিক ২ শতাংশ কিডনিজনিত রোগ ও ১৬ দশমিক ২ শতাংশের বক্ষব্যাধি ছিল। এরপর মারা যাওয়াদের ২ দশমিক ৯ শতাংশ থাইরয়েড, ৫ দশমিক ৯ শতাংশ রক্ত, ৫ দশমিক ৯ শতাংশ ক্যানসারে ও ৭ দশমিক ৪ শতাংশ নিউরোলজিক্যালজনিত রোগে ভুগছিলেন। মারা যাওয়াদের মধ্যে সবচেয়ে কম ছিল বাতজনিত সমস্যা, মাত্র ১ দশমিক ৫ শতাংশ। তবে এ সময় মারা যাওয়া কেউ স্ট্রোক, লিভারজনিত রোগ ও মানসিক সমস্যাজনিত রোগে আক্রান্ত ছিলেন না।

গত সপ্তাহে যারা মারা গেছেন, তাদের মধ্যে পুরুষ ৪১ জন, যা মোট মৃত্যুর ৫১ শতাংশ ও নারী ৩৯ জন, যা মোট মৃত্যুর ৪৯ শতাংশ। নারীদের মধ্যে কেউই গর্ভবতী ছিলেন না। এ সময় বয়স বিবেচনায় মারা গেছেন ৬১-৭০ বছরের মধ্যে ৩৬ শতাংশ, ৫১-৬০ বছরের মধ্যে ১৬ শতাংশ ও ৪১-৫০ বছরের মধ্যে ১৬ শতাংশ ও ৭১-৮০ বছরের মধ্যে ১৩ শতাংশ। এরপর মারা গেছেন ৩১-৪০ বছরের মধ্যে ৭ শতাংশ, ২১-৩০ বছরের মধ্যে ৪ দশমিক ৪ শতাংশ ও ৮১-৯০ বছরের মধ্যে ৩ দশমিক ৫ শতাংশের মৃত্যু হয়েছে। ১১-২০ বছর বয়সীদের মধ্যে মারা গেছে ২ দশমিক ৬ শতাংশ, ৯১-১০০ মধ্যে মারা গেছেন ১ দশমিক ৭ শতাংশ, শূন্য থেকে ১০ বছরের মধ্যে মারা যায় শূন্য্য দশমিক ৯ শতাংশ, ১০০ ঊর্ধ্ব বয়সীদের কেউ মারা যাননি।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী শনাক্ত হয় ৩৩৯ জন এবং মারা যান ১০ জন। দেশে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত নতুন রোগী শনাক্তের হার তিন দিন ধরে দুই শতাংশের নিচে রয়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন রোগী শনাক্তের হার ১ দশমিক ৮০ শতাংশ। এর আগে গত ২৪ ঘণ্টায় এ হার ছিল ১ দশমিক ৭৪ শতাংশ। তারও আগের দিন ১ দশমিক ৮৮ শতাংশ নতুন রোগী শনাক্ত হয়। অর্থাৎ দেশে তৃতীয় দিনের মতো করোনায় দৈনিক রোগী শনাক্তের হার ২ শতাংশের নিচে। এক দিনের ব্যবধানে দেশে সংক্রমণের হার আবারও কিছুটা বেড়েছে। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে করোনায় নতুন রোগী ও মৃত্যু নিয়ে এ পর্যন্ত দেশে করোনায় মোট আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ লাখ ৬৫ হাজার ৮২৭ জন এবং মারা গেছেন ২৭ হাজার ৭৭৮ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ২৪ ঘণ্টায় মৃত ১০ জনের মধ্যে ঢাকা বিভাগে রয়েছেন তিনজন, চট্টগ্রাম বিভাগে দুজন, রাজশাহী বিভাগে একজন এবং খুলনা বিভাগে তিন জন, সিলেট বিভাগে একজন রয়েছেন। এদের মধ্যে সরকারি হাসপাতালেই ১০ জন মারা গেছেন।    

মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন, ৩১ থেকে ৪০ বছরের মধ্যে একজন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে দুজন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে তিনজন, ৬১ থেকে ৭০ বছরের মধ্যে দুজন এবং ৯১ থেকে ১০০ বছরের মধ্যে এক জন রয়েছেন।