শীতকালে রোজ কমলালেবু খেলে যেসব উপকার পাবেন|328131|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ নভেম্বর, ২০২১ ১২:৫১
শীতকালে রোজ কমলালেবু খেলে যেসব উপকার পাবেন
অনলাইন ডেস্ক

শীতকালে রোজ কমলালেবু খেলে যেসব উপকার পাবেন

শীতকালীন ফল কমলালেবুর রয়েছে অনেক উপকারিতা। কমলালেবু শরীরকে হাইড্রেটেড রাখতে সাহায্য করে। সঙ্গে দেয় শক্তিশালী ইমিউনিটি।

১০০ গ্রাম কমলালেবুতে থাকে ৪৭ গ্রাম ক্যালরি, ৮৭ গ্রাম পানি, ০.৯ গ্রাম প্রোটিন, ১১.৮ গ্রাম কার্বোহাইড্রেট, ৯.৪ গ্রাম সুগার, ২.৪ গ্রাম ফাইবার এবং ৭৬ শতাংশ ভিটামিন সি থাকে। তাই পুষ্টিগুণে সমৃদ্ধ হলেও কমলালেবু খাওয়া উচিত পরিমিত।

দিনে কয়টা কমলালেবু খাবেন

কমলালেবু প্রাকৃতিক ভাবে অ্যাসিড সমৃদ্ধ ফল। গ্যাস্ট্রোইসোফেগাল রিফ্লাক্স রোগে (GIRD) আক্রান্তরা কমলালেবু খেলে পেটে জ্বালার মতো সমস্যা হতে পারে। তাই এই সব রোগীরা কমলালেবু খাওয়ার আগে চিকিৎসকদের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

যাদের রক্তে পটাশিয়ামের মাত্রা বেশি তাদেরও কমলালেবু খাওয়ার আগে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া জরুরি। বিশেষজ্ঞদের মতে, একজন প্রাপ্তবয়স্ক সুস্থ মানুষের ১টা থেকে ২টার বেশি কমলালেবু দিনে খাওয়া উচিত নয়।

শীতে কমলা খাওয়ার উপকারিতা-

ওজন কমাতে: কমলালেবুতে ফ্যাট থাকে না, ক্যালরির পরিমাণও অত্যন্ত কম। তাই যারা ওজন কমানোর স্বপ্ন দেখছেন, তারা স্বচ্ছন্দে কমলা খেতে পারেন।

হার্টের সুস্থতায়: দিন দিন আমাদের রোগের পরিমাণ বেড়ে যাচ্ছে এবং এতে করে হার্টের সমস্যা হচ্ছে। হার্ট ভালো রাখা অত্যন্ত জরুরি। ডায়েট ঠিক রাখা ও অন্যান্য খাবার খাওয়ার পাশাপাশি প্রতিদিন অল্প করে হলেও কমলা লেবুর জুস খেলে এই সমস্যা থেকে মুক্তি মেলে।

কিডনির পাথর দূর করতে: পানি কম খাওয়া ও বিভিন্ন কারণে আজকাল অনেকেরই কিডনিতে পাথর হয়ে থাকে। ফলে প্রস্রাবে সমস্যা হয় এবং এ থেকে কিডনিতে যন্ত্রণা হয়। কমলালেবুতে সাইট্রিক অ্যাসিড ও সিট্রেটস থাকে যা কিডনিতে স্টোন হতে দেয় না।

অ্যানিমিয়া রোধে: রক্তে আয়রনের পরিমাণ কম থাকলে অ্যানিমিয়া হয়। কমলালেবুতে আয়রন প্রাথমিকভাবে থাকে না। তবে, এই ফলে অ্যাসকরবিক অ্যাসিড ও সাইট্রিক অ্যাসিড থাকে, যা হজমের সময় আয়রনের মাত্রা বাড়িয়ে দেয়। তাই কমলালেবু খেলে রক্তে আয়রনের মাত্রা বাড়ে, অ্যানিমিয়া দূর হয়।

ত্বকের সমস্যা দূর করতে: কমলালেবুর খোসা খটখটে করে শুকিয়ে নিন। তার পর আতপ চাল, মসুর ডাল আর অল্প আখরোটের সঙ্গে গ্রাইন্ডারে দিয়ে তা গুঁড়া করে নিতে হবে। শুকনো একটি কৌটোতে ভরে রেখে দিন এবং সারা বছর ব্যবহার করুন প্রাকৃতিক স্ক্রাব হিসেবে। ব্যবহার করার আগে সামান্য দুধের সর আর মধু মিশিয়ে নিতে হবে।