ডান দিক থেকে কাজ শুরু|331163|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ০০:০০
ডান দিক থেকে কাজ শুরু

ডান দিক থেকে কাজ শুরু

আম্মাজান হজরত আয়েশা রাযিয়াল্লাহু আনহু থেকে বর্ণিত। তিনি বলেন, হজরত রাসুলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম অজু-গোসলের পবিত্রতা অর্জন করতে, চুল আঁচড়ানোর সময় এবং জুতা পরার সময় ডান দিক থেকে শুরু করতে ভালোবাসতেন।’ সহিহ্ মুসলিম : ৫০৪

ইসলাম ধর্মের একটি স্থায়ী বিধান হলো, সম্মানিত ও সমাদৃত কাজে অথবা যে বিষয়টির দ্বারা সম্মান ও মর্যাদাদান করা হয় যেমন জামাকাপড়, পায়জামা, মোজা পরিধান করা। মসজিদে প্রবেশ, মেসওয়াক ব্যবহার করা, চোখে সুরমা লাগানো, নখ কাটা, মোচ ছাঁটা, চিরুনি দ্বারা মাথা আঁচড়ানো এবং নামাজ শেষে সালাম ফেরানো, পবিত্রতা অর্জনের সময়, দেহের অঙ্গসমূহ ধোয়ার সময় ডান দিক থেকে শুরু করা উত্তম। অনুরূপভাবে শৌচাগার থেকে বের হওয়া, পানাহার ও মুসাফাহা এবং হাজরে আসওয়াদ স্পর্শসহ সেসব কাজে ডান হাত কিংবা ডান দিক থেকে আরম্ভ করা উত্তম যে সমস্ত কাজে সম্মান ও মর্যাদাদান করা হয়।

তবে যে সমস্ত কাজে সম্মান ও মর্যাদা দান করা হয় না যেমন শৌচাগারে প্রবেশ, মসজিদ থেকে বের হওয়া, নাক পরিষ্কার করা, মলত্যাগের পরিষ্কার করা, জামাকাপড়, পায়জামা, মোজা ইত্যাদি খোলার কাজগুলো বাম দিক থেকে সম্পাদন করা উত্তম। এই বিধানের উদ্দেশ্য হলো ডান দিকের সম্মান ও মর্যাদা দান করা।

প্রত্যেক মুসলিম ব্যক্তির একটি অপরিহার্য বিষয়, তারা যেন ইসলাম ধর্মের কার্যাবলি সম্পাদনের ক্ষেত্রে আল্লাহর রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের সঠিক পন্থায় অনুসরণ করে।

গ্রন্থনা : মাওলানা আবদুর রহমান