ওমিক্রন ছড়িয়েছে ৩৮ দেশে, মারা যায়নি কেউ: ডব্লিউএইচও|331266|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৪ ডিসেম্বর, ২০২১ ১৪:৩৯
ওমিক্রন ছড়িয়েছে ৩৮ দেশে, মারা যায়নি কেউ: ডব্লিউএইচও
অনলাইন ডেস্ক

ওমিক্রন ছড়িয়েছে ৩৮ দেশে, মারা যায়নি কেউ: ডব্লিউএইচও

করোনাভাইরাসের নতুন ভ্যারিয়েন্ট ওমিক্রন এখন পর্যন্ত বিশ্বের ৩৮টি দেশে শনাক্ত হয়েছে। তবে এই ভ্যারিয়েন্টে এখন পর্যন্ত কারও মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় সময় শুক্রবার এক ব্রিফিংয়ে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (ডব্লিউএইচও) এ কথা জানিয়েছে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা সতর্ক করে বলেছে, এই নতুন ভ্যারিয়েন্টটি কতটা শক্তিশালী তা নিরূপণে কয়েক সপ্তাহ সময় লেগে যেতে পারে। এটি গুরুতর অসুস্থতার কারণ কি না এবং এর বিরুদ্ধে কতটা কার্যকর চিকিৎসা ও ভ্যাকসিন রয়েছে সেটি যাচাই করে দেখা হবে।

ডব্লিউএইচও’র জরুরি পরিচালক মাইকেল রায়ান বলেছেন, ‘আমরা এর ফলাফল পেতে যাচ্ছি, যা প্রত্যেকেরই জানা উচিত।’

এখন পর্যন্ত ওমিক্রন সম্পর্কিত মৃত্যুর কোনো রিপোর্ট পাওয়া যায়নি বলে জানিয়েছে বৈশ্বিক সংস্থাটি।

তবে এই নতুন ভ্যারিয়েন্টের বিস্তারের ব্যাপারে সতর্ক করে বলা হয়েছে, আগামী কয়েক মাসে এর সংক্রমণ ইউরোপে করোনা আক্রান্তের মোট সংখ্যার অর্ধেক ছাড়িয়ে যেতে পারে।

অন্যদিকে নতুন ভ্যারিয়েন্ট বৈশ্বিক অর্থনীতি পুনরুদ্ধার ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে এমন উদ্বেগের মধ্যে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের কর্তৃপক্ষ এর বিস্তার রোধে তৎপর হয়ে উঠেছে।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের (আইএমএফ) প্রধান ক্রিস্তালিনা জর্জিয়েভা শুক্রবার বলেছেন, ডেল্টা ধরনের মতোই নতুন ভ্যারিয়েন্টটি বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক পুনরুদ্ধারের গতিকে ধীর করে দিতে পারে।

তিনি বলেন, ‘এমনকি এই নতুন ভ্যারিয়েন্টের আগেও আমরা পুনরুদ্ধার নিয়ে উদ্বিগ্ন ছিলাম। যদি এ অবস্থা চলতে থাকে তাহলে পুনরুদ্ধারের গতি কিছুটা হারাবে।’

আইএমএফ প্রধান বলেন, ‘এই নতুন ভ্যারিয়েন্ট খুব দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে মানুষের আত্মবিশ্বাস নষ্ট করতে পারে।’

দক্ষিণ আফ্রিকার গবেষকদের প্রাথমিক সমীক্ষায় বলা হয়, দেশটিতে নতুন ভ্যারিয়েন্ট গত ২৪ নভেম্বর প্রথম শনাক্ত করা হয়। ডেল্টা ও বেটা ভ্যারিয়েন্টের চেয়েও ওমিক্রন ভ্যারিয়েন্টে পুনঃসংক্রমণের ঝুঁকি তিন গুণ বেশি।