ফেনীতে রেকর্ড ৭ চেয়ারম্যান বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত|332137|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ৮ ডিসেম্বর, ২০২১ ২২:২০
ফেনীতে রেকর্ড ৭ চেয়ারম্যান বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত
ফেনী প্রতিনিধি

ফেনীতে রেকর্ড ৭ চেয়ারম্যান বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত

ফেনীর দাগনভূঞা উপজেলার ছয় ইউনিয়ন পরিষদের পাঁচটি ও সোনাগাজীতে দুটিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগের চেয়ারম্যান প্রার্থীরা। ফেনীতে এর আগে কোনো ইউপি নির্বাচনে এত সংখ্যক চেয়ারম্যান প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হননি।

নির্বাচন অফিস জানায় , সোমবার মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিনে ১৬ চেয়ারম্যান প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করেছেন।

বিএনপি দলীয় ৬ স্বতন্ত্রভাবে নির্বাচনের মনোনয়ন দাখিল করলেও ‘হামলা-মামলার’ ভয়ে তারা একযোগে প্রত্যাহার করেন।

বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিতরা হলেন সিন্দুরপুর ইউনিয়নে নূর নবী, রাজাপুর ইউনিয়নে জয়নাল আবেদীন মামুন, পূর্ব চন্দ্রপুর মডেল ইউনিয়নে মাসুদ রায়হান, ইয়াকুবপুর ইউনিয়নে আবুল ফোরকান বুলবুল, মাতুভূঞা ইউনিয়নে আবদুল্লাহ আল মামুন।

সোনাগাজীর মঙ্গলকান্দি ইউপিতে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোশারফ হোসেন বাদল, মতিগঞ্জ ইউপিতে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি রবিউজ্জামান বাবু।

দাগনভূঞা উপজেলা নির্বাচন অফিসার ও রিটানিং কর্মকর্তা কামাল হোসেন জানান, মনোনয়ন প্রত্যাহারের নির্ধারিত সময়ের মধ্যে উপজেলার ছয় ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ১২ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে পাঁচজন ও সাধারণ সদস্য পদে ৫৫ প্রার্থী স্বেচ্ছায় তাদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। ছয় ইউনিয়নের মধ্যে সিন্দুরপুর, রাজাপুর, পূর্ব চন্দ্রপুর, ইয়াকুবপুর ও মাতুভূঞা ইউপিতে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বাদে অন্যান্য প্রার্থী মনোনয়ন প্রত্যাহার করায় এ পাঁচ ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন। কেবল জায়লস্কর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ভোটগ্রহণ করা হবে।  এ ছাড়া সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে ৪৩ ও সাধারণ সদস্য পদে ২৮১ জন রয়েছে।

সোনাগাজী উপজেলা নির্বাচন ও রিটানিং কর্মকর্তা মো. মাইনুল হক বলেন, দুটি ইউপিতে সব ওয়ার্ডে এবং আরো সাতটি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে একাধিক প্রার্থী থাকায় আগামী ২৬ ডিসেম্বর ব্যালটের মাধ্যেমে ভোট গ্রহণের কথা রয়েছে। এ ছাড়া বগাদানা ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডে বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় মেম্বার নির্বাচিত হওয়ায় ওই ওয়ার্ডে মেম্বার পদে নির্বাচন না হলেও সংরক্ষিত ও চেয়ারম্যান পদে ওই ওয়ার্ডে ভোট গ্রহণ করা হবে।

দাগনভূঞা উপজেলার ৬ ইউনিয়নে ১ লাখ ৫৩ হাজার ১৭৯ জন ভোটার ৪১৬টি কক্ষে (বুথ) তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

সোনাগাজী উপজেলার সাত ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে সাত ও জাতীয় পার্টির পাঁচ, ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশের তিনজন ও স্বতন্ত্র ১৩ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

এ ছাড়া ইউপি সদস্য সাধরণ প্রার্থী মোট-৪২২ জন ও সংরক্ষিত পদে ৯৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন ৯ ইউনিয়নে।

চতুর্থ ধাপে আগামী ২৬ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত হবে দাগনভূঞা ইউপি নির্বাচনে ভোটগ্রহণ করা হবে।