যুবদল নেতা জসিমের শাস্তি চাইলেন হারিসের পরিবার|339738|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ১৩:৩৪
যুবদল নেতা জসিমের শাস্তি চাইলেন হারিসের পরিবার
নিজস্ব প্রতিবেদক

যুবদল নেতা জসিমের শাস্তি চাইলেন হারিসের পরিবার

সংবাদ সম্মেলনে হারিস আহমেদের ছেলে আহমেদ আল রাকেশ মন্টি

গাজীপুর জেলা যুবদলের সাবেক সভাপতি হারিস আহমেদ হত্যায় জড়িত থাকার অভিযোগে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক জসিম উদ্দিন ভাটের বিচারের দাবি জানিয়েছে তার পরিবার।

বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনে (ক্র্যাব) আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সোমবার এ দাবি জানান হারিস আহমেদের ছেলে আহমেদ আল রাকেশ মন্টি।

শহীদ হারিস আহমেদ স্মৃতি সংসদের উদ্যোগে এ সংবাদ সম্মেলনে রাকেশ মন্টি বলেন, আমার বাবা শহীদ হারিস আহমেদ ২০০২ সালের ২৪ জানুয়ারি সন্ত্রাসীদের হাতে নির্মমভাবে হত্যা হয়। মৃত্যুর আগে বাবা হাসপাতালে জবানবন্দি দিয়েছেন, ‘আসামি জসিম ভাট গং আমার ওপর হামলা চালায়’। আর হত্যার সঙ্গে জড়িত ছিল এবং খুনিরা তার সমন্বয়ে হত্যাকাণ্ড ঘটায় মর্মে আসামি জসিম উদ্দিন ভাট নিজের মুখে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে ।

এ স্বীকারোক্তি বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দ জানার পর মির্জা আব্বাস ও গয়েশ্বর চন্দ্র রায় তাকে তাৎক্ষণিকভাবে দল থেকে বহিষ্কার করে। এখন প্রশ্ন হচ্ছে, দল থেকে বহিষ্কৃত খুনি কীভাবে দলীয় পদে অধিষ্ঠিত হয়?

আহমেদ আল রাকেশ মন্টি জানান, হারিসকে যখন হত্যা করা হয় তখন তিনি অনেক ছোট ছিলেন। ওই সময় তার মা ভয়ে সাক্ষী দিতে যাননি। তাই এখন তিনি বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান এবং দলের শীর্ষ নেতৃবৃন্দের কাছে তার বাবার খুনির বিচার দাবি করছেন ও দলের পদ থেকে অব্যাহতির মাধ্যমে হারিস আহমেদের হত্যার বিচার পাওয়ার সহযোগিতা কামনা করেন।

আরও বলেন, গাজীপুর মহানগর যুবদল কমিটিতে আমার বাবার হত্যাকারী জসিম উদ্দিন ভাট সাধারণ সম্পাদকের পদে মনোনীত করা হয়। আজ আমি পিতৃহারা এবং খুনিরা হয়েছে দলের কাছে পুরস্কৃত।

মন্টি বলেন, শহীদ রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের আদর্শে গড়া এই দলকে ব্যবহার করে খুনিরা যেন পুরস্কৃত না হয় এবং খুনিরা যেন আমার বাবার রক্তমাখা গাজীপুরের যুবদলকে ধ্বংস করতে না পারে এবং আমার বাবার হত্যার বিচার পাওয়ার জন্য প্রশাসন ও বিএনপির নেতৃবৃন্দের সহযোগিতা প্রত্যাশা করছি।

জসিম উদ্দিন ভাটকে দল থেকে অব্যাহতি দেওয়ার জন্য বিএনপির কেন্দ্রীয় দপ্তরেও পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদন জানানো হয়েছে বলেও জানান মন্টি।