অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু|339793|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৭ জানুয়ারি, ২০২২ ২০:৩৩
অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু
নিজস্ব প্রতিবেদক

অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পুলিশ কর্মকর্তার মৃত্যু

রাজধানীতে অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে মীর আ. হান্নান (৫৮) নামে আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়ন (এপিবিএন) এক সদস্যের মৃত্যু হয়েছে। 

রবিবার রাতে রাজধানীর স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড) চিকিৎসাধীন অবস্থায় তার মৃত্যু হয়। 
কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি মো. আবু সালাম মিয়া তার মৃত্যুর বিষয়টি দেশ রূপাস্তরকে নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে রবিবার বিকেলে রাজধানীর কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর এলাকা থেকে আ. হান্নানকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে নেন স্বজনরা। পরে সেখান থেকে স্যার সলিমুল্লাহ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে (মিটফোর্ড) পাঠান চিকিৎসকরা। 

আ. হান্নান (৫৮) এপিবিএন এর সহকারী উপপরিদর্শক হিসেবে রাজধানীর বিমানবন্দর এলাকায় কর্মরত ছিলেন। তার গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরার কলারোয়া। 

স্বজনরা জানিয়েছেন, ১৭ থেকে ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত ছুটি নিয়ে রবিবার দুপুরে গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরার কলারোয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে বিমানবন্দর এলাকা থেকে রওনা হন হান্নান। বিকেলে তার অচেতন হয়ে পড়ে থাকার খবর পান স্বজনেরা। 

কেরানীগঞ্জ মডেল থানার ওসি মো. আবু সালাম মিয়া জানান, রাজধানীর কল্যাণপুর যাওয়ার জন্য গত রবিবার দুপুরে বিমানবন্দর এলাকা থেকে একটি যাত্রীবাহী বাসে ওঠেন তিনি (আ. হান্নান)। তবে বাসের মধ্যে অচেতন হয়ে পড়ায় তিনি সেখানে নামতে পারেননি। বাসটির শেষ স্টপেজ কেরানীগঞ্জের ঘাটারচর এসে থামলে তখন ওই বাসের স্টাফরা বাস থেকে নামিয়ে রেখে যায় তাকে। খবর পেয়ে স্বজনরা উদ্ধার করে হাসপাতলে নেয়। সেখানে চিকিৎসাধীন রাতে তার মৃত্যু হয়েছে। 

তিনি জানান, বাসের মধ্যে ওই পুলিশ কর্মকর্তা অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়েন বলে ধারণা। বাসটি এখনো শনাক্ত করা যায়নি। তবে বাসটি প্রজাপতি বা পরিস্থান পরিবহন বলে প্রাথমিকভাবে জানা গেছে। এ ঘটনায় একটি মামলা প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। 

নিহত আ. আন্নানের স্ত্রীর বড় ভাই আব্দুল মোমেন দেশ রূপান্তরকে জানান, হান্নান এপিবিএন পুলিশে বিমানবন্দর এলাকায় কর্মরত ছিলেন। গ্রামের বাড়ি সাতক্ষীরার কলারোয়া উদ্দেশ্যে রবিবার দুপুরে রওনা হন। বেলা তিনটার দিকে তার ফোন থেকেই খবর পেয়ে ঘাটারচর এলাকা থেকে তাকে অচেতন অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে ঢাকা মেডিকেলে নেয়া হয়। সেখানে তার স্টোমাক ওয়াশ করার পর মিটফোর্ড হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগে ভর্তি করা হয়েছিল। চলতি বছরের আগস্ট মাসে কর্মজীবন থেকে অবস