প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে ২৬০ কোটি বছর আগের সেই কালো হীরা|339951|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৮ জানুয়ারি, ২০২২ ১৪:১১
প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে ২৬০ কোটি বছর আগের সেই কালো হীরা
অনলাইন ডেস্ক

প্রথমবারের মতো প্রকাশ্যে ২৬০ কোটি বছর আগের সেই কালো হীরা

বিশ্বের বৃহত্তম কাটা কালো হীরাটি বিক্রির আগে সোমবার প্রথমবারের মতো সর্বজন সম্মুখে প্রদর্শিত হয়েছে। নিলামে এর দাম পাঁচ মিলিয়ন ডলার (প্রায় ৪৩ কোটি টাকা) পর্যন্ত উঠতে পারে বলে আশা করা হচ্ছে।

এনিগমা নামের এই বিরল কালো কার্বানাডো হীরাটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের দুবাইতে সোমবার থেকে প্রদর্শিত হচ্ছে।

সোথবি’র অকশন হাউস জুয়েলারি বিশেষজ্ঞ সোফি স্টিভেনসের মতে, ২৬০ কোটি বছর আগে যখন একটি উল্কা বা গ্রহাণু পৃথিবীতে আঘাত করেছিল তখন এই হীরাটি তৈরি হয়েছিল বলে মনে করা হয়।

‘পৃথিবীতে এই আকারের প্রাকৃতিক কালো হীরা খুবই বিরল। এবং এর উৎস এখনো রহস্যাবৃত। ধারণা করা হয় যে, পৃথিবীতে আঘাত হানা কোনো উল্কার প্রভাবে তৈরি হয়েছে এই হীরা বা পৃথিবীতে আঘাত হানা হীরা-বহনকারী কোনো গ্রহাণু থেকে এসেছে এটি’।

কাটার জন্য সবচেয়ে কঠিন পদার্থগুলোর মধ্যে একটি এই ৫৫৫.৫৫ ক্যারেটের হীরাটি বিগত ২০ বছর ধরে এর অজ্ঞাত মালিকের কাছে লূকানো ছিল, যা কখনও প্রকাশ্যে দেখানো হয়নি। তবে বিশেষজ্ঞরা এটিকে ৫৫-মুখের গহনায় পরিণত করেছেন।

মধ্যপ্রাচ্যের পাম-আকৃতির শক্তি এবং সুরক্ষার প্রতীক হামজার সঙ্গে এর আকৃতি অনেকটাই মিলে যায়। হামজা শব্দ দিয়ে পাঁচ নম্বরও বোঝায়।

সোফি স্টিভেনস বলেন, ‘এটি খুবই আলাদা’। এটি সবচেয়ে বড় কাটা হীরা হিসেবে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ড বুকেও নাম উঠিয়েছে। সোথবি একে ‘মহাজাগতিক বিস্ময়’ বলে অভিহিত করেছে।

দুবাইতে দেখানোর পর এনিগমাকে লস অ্যাঞ্জেলেস এবং লন্ডনে নিয়ে যাওয়া হবে। এরপর আগামী ৩ ফেব্রুয়ারি থেকে ৭ দিন ধরে অনলাইনে এর নিলাম চলবে।

হীরাটি একজন বিটকয়েন বিডারের কাছে যেতে পারে বলে ধারণা করছেন সোফি স্টিভেনস।

তিনি বলেন, ‘আমরা হীরাটির জন্য ক্রিপ্টোকারেন্সি গ্রহণ করছি, যা আমরা অন্যান্য গুরুত্বপূর্ণ পাথরের জন্যও করেছি’।

তিনি জানান, গত বছর হংকংয়ে একটি হীরা ১২.৩ মিলিয়ন ডলারে বিক্রি হয়েছিল, যার মূল্য ক্রিপ্টোকারেন্সিতে পরিশোধ করা হয়েছিল।