বৈঠকে ফাইল না আনায় কর্মকর্তার হাত ভেঙে দিলেন মন্ত্রী|340767|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২২ জানুয়ারি, ২০২২ ১৯:১৮
বৈঠকে ফাইল না আনায় কর্মকর্তার হাত ভেঙে দিলেন মন্ত্রী
অনলাইন ডেস্ক

বৈঠকে ফাইল না আনায় কর্মকর্তার হাত ভেঙে দিলেন মন্ত্রী

ফাইলপত্র ঠিকঠাক না আনার জন্য দুই কর্মকর্তাকে দলীয় কার্যালয়ের ভেতরে চেয়ার দিয়ে মারধর ও অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজের অভিযোগ উঠেছে এক মন্ত্রীর বিরুদ্ধে।

শুক্রবার ভারতের ওড়িশার বারিপদায় কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বীরেশ্বর টুডুর বিরুদ্ধে এই অভিযোগ ওঠে। খবর: আনন্দবাজার

ওড়িশার ময়ূরভঞ্জের এমপি বীরেশ্বর, জলশক্তি এবং উপজাতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী।

জানা গেছে, বারিপদায় দলীয় কার্যালয়ে একটি পর্যালোচনা বৈঠক করার কথা ছিল মন্ত্রীর। ডিস্ট্রিক্ট প্ল্যানিং অ্যান্ড মনিটরিং ইউনিটের কর্মকর্তা অশ্বিনী কুমার মল্লিক এবং দেবাশিস মহাপাত্রকে বৈঠকে ডাকা হয়। বৈঠকের সময় প্রয়োজনীয় ফাইল না পেয়ে মন্ত্রী দুই কর্মকর্তার কাছে জানতে চান ফাইল কেন আনা হয়নি। এরপরই কার্যালয়ের দরজা বন্ধ করে দুজনকে মারধর ও অশ্রাব্য গালিগালাজ করেন তিনি।

এই ঘটনায় একজনের হাত ভেঙে গেছে। আহত দুজনকে বারিপদার পিআরএম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা  হয়েছে।

এ ঘটনায় মন্ত্রীর বিরুদ্ধে বারিপদা টাউন থানায় মামলা করা হয়েছে।

ভুক্তভোগী দেবাশিস জানান, মন্ত্রী বলেন আমরা প্রোটোকল ভেঙেছি। আমরা তাকে বোঝানোর চেষ্টা করেছিলাম যে আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনের জন্য নির্বাচনী আচরণবিধি চালু হয়েছে তাই আনা সম্ভব নয়। কিন্তু তিনি তাতে রেগে যান এবং আমাদের মারধর করতে শুরু করেন।

সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মন্ত্রী। তিনি বলেন, তারা দুজনে আমার কাছে এসেছিলেন। আমরা আধঘণ্টা আলোচনা করি। কেন্দ্রীয় সরকারের পাঠানো ৭ কোটি টাকা কীভাবে খরচ করা হয়েছে তার ফাইল আনতে বলেছিলাম। কিন্তু তারা এখন আমার বিরুদ্ধেই ভিত্তিহীন অভিযোগ তুলছে।

তিনি আরও বলেন, যদি আমি তাদের মারতাম, তা হলে আমার কার্যালয় থেকে বাড়ি ফেরা সম্ভব হতো না।