মেয়ে ‘হত্যার’ বিচার চাইলেন মা|340847|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০
চট্টগ্রামে সংবাদ সম্মেলন
মেয়ে ‘হত্যার’ বিচার চাইলেন মা
চট্টগ্রাম ব্যুরো

মেয়ে ‘হত্যার’ বিচার চাইলেন মা

চট্টগ্রামের ফটিকছড়ি উপজেলার বিবিরহাটে মোমিন টাওয়ার থেকে গৃহবধূ জেসমিন আক্তারকে (১৮) ‘হত্যার’ বিচার চাইলেন মা ওয়াছ খাতুন। গতকাল শনিবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের এস রহমান হলে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে মেয়ে হত্যার চান তিনি। এ সময় হত্যা মামলার আসামিদের গ্রেপ্তার ও শাস্তি দাবি জানান মা।

জেসমিন ফটিকছড়ি উপজেলার পশ্চিম সুন্দরপুরের কান্দিরপাড় এলাকার আবদুর রহিমের ছোট মেয়ে। গত বছর ১৮ মে দুপুরে জেসমিনের শ্বশুরবাড়ির সদস্যরা পারস্পরিক যোগসাজশে তাকে বাসার ছাদে নিয়ে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে হত্যা করে বলে দাবি পরিবারের। ওই বছর ১৪ ফেব্রুয়ারি ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে প্রবাসী আরাফাতের সঙ্গে বিয়ে হয় জেসমিনের।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে ওয়াছ খাতুন বলেন, ফটিকছড়ি উপজেলার নাজিরহাট পৌরসভায় দৌলতপুরের হাফেজ চৌধুরী বাড়ির নুরুল আলমের ছেলে প্রবাসী মো. আরাফাতের সঙ্গে মোবাইল ও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে জেসমিনের পরিচয় ও পরে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এরপর চট্টগ্রাম আদালত ভবনে আরাফাতকে ভিডিও কলে রেখে ভার্চুয়ালি আকদ পড়ানো হয়। এরপর শ্বশুরপক্ষের লোকজন জেসমিনকে বিবিরহাটে মোমিন টাওয়ারের বাসায় নিয়ে যায়। পরে বিষয়টি জানতে পেরে সামাজিক বৈঠকের মাধ্যমে ১০ লাখ টাকা মোহরানা ধার্য করে নিকাহনামা রেজিস্ট্রি করতে রাজি করানো হয়। তবে আরাফাতের পরিবার জেসমিনের সঙ্গে বিয়ের বিষয়টি ভালোভাবে মেনে নেয়নি। তাই পরিবারের সদস্যরা তাকে বাসায় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো।

সংবাদ সম্মেলনে আরও জানানো হয়, ফটিকছড়ি থানা পুলিশ ৪ নভেম্বর একটি চার্জশিট আদালতে জমা দেয়। গত ২ জানুয়ারি এ চার্জশিটের বিরুদ্ধে আদালতে নারাজি দাখিল করেন ওয়াছ খাতুন। আদালত নারাজি আবেদন গ্রহণ করে এটি জেলা পিবিআইকে পুনঃতদন্তের আদেশ দেয়।