মেয়ের ধর্ষককে আদালতের সামনে গুলি করে হত্যা|340884|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০
ভারতের উত্তরপ্রদেশ
মেয়ের ধর্ষককে আদালতের সামনে গুলি করে হত্যা
রূপান্তর ডেস্ক

মেয়ের ধর্ষককে আদালতের সামনে গুলি করে হত্যা

মেয়ের ধর্ষককে আদালতের সামনে গুলি চালিয়ে হত্যা করেছেন এক বাবা। গত শুক্রবার ভারতের উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতের সামনে এই ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছে টাইমস অব ইন্ডিয়া।

ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) অবসরপ্রাপ্ত এক জওয়ান ২৫ বছরের এক যুবককে গুলি করে হত্যা করেছেন। শুক্রবার গোরক্ষপুরের দেওয়ানি আদালতের প্রবেশপথে নিজের লাইসেন্সকৃত অস্ত্র থেকে গুলি চালান বিএসএফের সাবেক ওই জওয়ান। নিহত যুবক ওই জওয়ানের মেয়েকে ২০২০ সালে অপহরণের পর ধর্ষণ করেছিলেন বলে অভিযোগ আছে। অপহরণ এবং ধর্ষণের অভিযোগে ওই যুবকের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা বিচারাধীন। নিহত যুবক বিহারের মুজাফফরপুরের বাসিন্দা। অপহরণ ও ধর্ষণের ওই মামলায় তিনি শুক্রবার গোরক্ষপুর দেওয়ানি আদালতে শুনানিতে অংশ নেওয়ার জন্য এসেছিলেন।

টাইমস অব ইন্ডিয়া বলছে, শুক্রবার স্থানীয় সময় দুপুর সোয়া ১টার দিকে দেওয়ানি আদালতের প্রবেশপথে নিজের আইনজীবী শঙ্কর শরণ শুকলাকে ডাকেন ধর্ষণের মামলার আসামি দিলশাদ হুসাইন। আইনজীবী সেখানে পৌঁছানোর আগেই বিএসএফের অবসরপ্রাপ্ত জওয়ান ভগবৎ সিং নিজের লাইসেন্সকৃত পিস্তল দিয়ে দিলশাদের মাথায় গুলি করেন। সঙ্গে সঙ্গে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন দিলশাদ। ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি।

এ ঘটনার পর পুলিশ ভগবৎ এবং তার ছেলেকে গ্রেপ্তার করেছে। তবে এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কোনো মামলা দায়ের হয়নি বলে জানিয়েছে পুলিশ। গোরক্ষপুরের জ্যেষ্ঠ পুলিশ সুপার ভিপিন তাদা বলেছেন, গোরক্ষপুরের দেওয়ানি আদালতের প্রবেশপথে গুলিতে এক যুবক নিহত হয়েছেন এবং ঘাতককে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পাওয়ার পর এই ঘটনায় একটি মামলা দায়ের হবে।

২০২০ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি বিএসএফের সাবেক জওয়ান ভগবতের কিশোরী কন্যাকে দিলশাদ অপহরণ করেন বলে অভিযোগ রয়েছে। ওই বছরের ১৭ ফেব্রুয়ারি ভারতীয় শিশু সুরক্ষা আইনে দিলশাদের বিরুদ্ধে অপহরণ এবং ধর্ষণের একটি মামলা দায়ের করেন ভগবৎ।