মাহাথির মোহাম্মদ আগের চেয়ে সুস্থ|341424|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০
মাহাথির মোহাম্মদ আগের চেয়ে সুস্থ
রূপান্তর ডেস্ক

মাহাথির মোহাম্মদ আগের চেয়ে সুস্থ

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদের মৃত্যুর খবর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছড়িয়ে পড়ার পর পরিবার একে গুজব আখ্যায়িত করেছে। গত সোমবার গণমাধ্যমকে তার মেয়ে মেরিনা মাহাথির বলেন, ‘আমার বাবা আগের চেয়ে সুস্থ আছেন। আপনাদের অতিমাত্রায় কৌতূহলের কারণে আমরা পারিবারিকভাবে উদ্বিগ্ন।’

সবাইকে গুজব ছড়ানো থেকে বিরত থাকার অনুরোধ জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘দয়া করে কেউ মাহাথির মোহাম্মদকে নিয়ে কোনো ভুয়া খবর প্রচার করবেন না। তাকে নিয়ে অতিমাত্রায় খবর প্রচার বন্ধ রাখুন।’

গতকাল মঙ্গলবার মালয়েশিয়ার সংবাদমাধ্যম নিউ স্ট্রেইট টাইমস এক প্রতিবেদনে বলেছে, জাতীয় হৃদরোগ ইনস্টিটিউটে (আইজেএন) চিকিৎসাধীন মাহাথির মোহাম্মদ সুস্থ আছেন এবং তিনি চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন।

মালয়েশিয়ার কমিউনিকেশন অ্যান্ড মাল্টিমিডিয়া মন্ত্রী আনুর মুসাও মাহাথির মোহাম্মদের শারীরিক অবস্থা নিয়ে ধারণামূলক খবর ছড়ানো থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন। এক টুইটে তিনি বলেন, ‘পরিবার ও হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষের আনুষ্ঠানিক বক্তব্য না আসা পর্যন্ত মাহাথির মোহাম্মদের অসুস্থতা নিয়ে জনগণকে কোনো ধরনের খবর ছড়ানো থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি। আশা করি, সবাই তার পরিবারের বর্তমান অবস্থার প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন।’

মালয়েশিয়ার ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘ সময়ের প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ গত ১৬ ডিসেম্বর আইজেএনে ভর্তি হন। ছয় দিন পর তিনি হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান। কিন্তু আবারও অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ৮ জানুয়ারি ৯৬ বছর বয়সী এ রাজনীতিককে আইজেএনে ভর্তি করা হয়। ১১ দিন সাধারণ কেবিনে রাখা হলেও গত ১৯ জানুয়ারি তাকে করোনারি কেয়ার ইউনিটে (সিসিইউ) স্থানান্তর করা হয়।

এরপর গত রবিবার পরিবারের পক্ষে এক বিবৃতিতে মেরিনা মাহাথির বলেছিলেন, ‘আমার বাবা চিকিৎসায় সাড়া দিচ্ছেন। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে কথাও বলতে পারছেন। তার শারীরিক অবস্থা সম্পর্কে আইজেএন কর্র্তৃপক্ষ ও আমাদের পরিবার সময়ে সময়ে বিবৃতি দেবে।’

তবে গত সোমবার কোনো বিবৃতি না আসায় মাহাথির মোহাম্মদ মারা গেছেন এমন গুঞ্জন ছড়িয়ে পড়ে মালয়েশিয়ায়। সাংবাদিকরাও হাসপাতালে ভিড় করতে থাকলে গুঞ্জন জোরালো হয়। এমন প্রেক্ষাপটে সোমবার মেরিনা মাহাথির সাংবাদিকদের কাছে বাবার শারীরিক অবস্থা নিয়ে কিছুটা বিরক্তি প্রকাশ করেন। চিকিৎসা পেশা থেকে রাজনীতিতে আসা মাহাথির মোহাম্মদকে আধুনিক মালয়েশিয়ার স্থপতি বলা হয়। ১৯৮৯ ও ২০০৭ সালে দুবার তার বাইপাস সার্জারি করা হয়।

১৯২৫ সালের ১০ জুলাই মালয়েশিয়ার কেদাহ প্রদেশের আলোর সেতার এলাকায় জন্মগ্রহণ করেন মাহাথির মোহাম্মদ। পড়াশোনা শেষে চিকিৎসক হিসেবে কর্মজীবন শুরু করে ১৯৭৪ সাল পর্যন্ত ওই পেশায় ছিলেন। চিকিৎসক থাকা অবস্থায় ১৯৬৪ সালে মালয়েশিয়ার রাজনৈতিক দল ইউনাইটেড মালয়েস ন্যাশনাল অর্গানাইজেশনে (ইউএমএনও) যোগ দিয়ে পার্লামেন্ট সদস্য নির্বাচিত হন। ১৯৭৪ সালের নির্বাচনে জয়ী হয়ে শিক্ষামন্ত্রী ও ১৯৭৬ সালে দেশের উপপ্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব পান।

১৯৮১ সালে প্রথমবারের মতো মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হন মাহাথির মোহাম্মদ। টানা ২২ বছর এ পদে আসীন থাকার পর ২০০৩ সালে স্বেচ্ছায় রাজনীতি থেকে অবসর নেন তিনি। তারপর জাতীয় রাজনীতির স্বার্থে ফের ২০১৮ সালে নিজের গড়া দলের বিরুদ্ধে নির্বাচন করে বিজয়ী হয়ে প্রধানমন্ত্রীর পদে আসীন হন। ২০২০ সালে তিনি প্রধানমন্ত্রী পদ থেকে পদত্যাগ করেন। শুধু মালয়েশিয়া নয়, এশিয়ার সবচেয়ে দীর্ঘ সময় ধরে গণতান্ত্রিকভাবে নির্বাচিত প্রধানমন্ত্রীর রেকর্ড দখলে রয়েছে মাহাথির মোহাম্মদের।