নবজাতক অদলবদলে তুলকালাম|341454|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৬ জানুয়ারি, ২০২২ ০০:০০
হবিগঞ্জ সদর হাসপাতাল
নবজাতক অদলবদলে তুলকালাম
হবিগঞ্জ প্রতিনিধি

নবজাতক অদলবদলে তুলকালাম

হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর হাসপাতালে নবজাতক অদলবদল নিয়ে তুলকালাম ঘটেছে। এক নবজাতকের পরিবারের অভিযোগ, হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষের সহায়তায় তাদের সন্তানকে চুরি করা হয়েছে। তবে ৫ ঘণ্টা পর তাকে গাইনি ওয়ার্ডে এক নারীর কাছে পাওয়া গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয়।

গতকাল মঙ্গলবার ভোরে জেলার শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার মারুরা গ্রামের দেলওয়ার হোসেনের স্ত্রী ফেরদৌস আরা ছেলেসন্তান প্রসব করেন। ঠা-াজনিত কারণে নবজাতককে হাসপাতালের দ্বিতীয়তলায় স্ক্যানো ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়। সেখান থেকেই সে উধাও হয়ে যায়।

নবজাতকের ফুফু নুরুন্নাহার বেগম জানান, তিনিসহ স্বজনরা স্ক্যানো ওয়ার্ডের বাইরে বসেছিলেন। সকাল ৯টার দিকে ছেলেকে আনতে গেলে দায়িত্বরত নার্স জানান, তাকে তার বাবা নিয়ে গেছেন। অথচ ওই সময় আমার ভাই দেলওয়ার হোসেন হাসপাতালেই ছিল না। খবর পেয়ে দেলওয়ার এসে হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষের কাছে সন্তান চাইলেও দিতে পারেনি।

পরে পুলিশে খবর দেওয়া হয়।

নবজাতকের সন্ধানে পুলিশ, তার স্বজন ও হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষের দৌড়ঝাঁপ চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। শেষে নিচতলার গাইনি ওয়ার্ডে আকলিমা বেগমের কাছে তাকে পাওয়া যায়। আজমিরীগঞ্জের শিবপাশা এলাকার মাসুম চৌধুরীর স্ত্রী আকলিমা বেগমও এদিন সকালে কন্যাসন্তান জন্ম দেন এবং তাকেও স্ক্যানো ওয়ার্ডে রাখা হয়েছিল। মাসুম চৌধুরীর মা রাবেয়া খাতুন সন্তান আনতে গেলে তাকে অন্যের সন্তান দেন দায়িত্বরত নার্স।

রাবেয়া খাতুন বলেন, ‘নার্স ভুল করে কন্যাসন্তানের বদলে ছেলেসন্তান দেন। কিছুক্ষণ পর টের পেলেও ভয়ে আমরা হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষকে জানাতে পারিনি। তবে এ নিয়ে উত্তেজনা দেখা দিলে সুযোগ বুঝে হাসপাতাল কর্র্তৃপক্ষকে জানাই।’

হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. আমিনুল হক সরকার বলেন, ‘নার্সের ভুলে বড় ধরনের বিপত্তি দেখা দেয়। নবজাতক কান্না করতে থাকলে বাবা পরিচয় দিয়ে এক ব্যক্তি নিয়ে যান। যদিও পরে তিনি এ কথা অস্বীকার করেন। নানা নাটকীয়তা শেষে সুস্থ অবস্থায় শিশুকে পাওয়া গেলে স্বস্তি ফেরে। আসলে ভুলে নবজাতক অদল-বদল হয়েছিল।’

হবিগঞ্জ সদর থানার ওসি মো. মাসুক আলী জানান, নবজাতক চুরির খবরে হাসপাতালে এসে তারা তদন্ত শুরু করেন। স্ক্যানো ওয়ার্ড ও এর আশপাশে সিসি ক্যামেরা না থাকায় বিষয়টি জটিল হয়ে যায়। তবে শেষ পর্যন্ত নবজাতককে পাওয়া গেলে জটিলতা দূর হয়। তবে নবজাতক চুরি হয়েছিল নাকি ভুলে অদল-বদল হয়েছিল তা খতিয়ে দেখা হবে বলে জানান তিনি।