বিশ্ব নাট্য দিবস উদ্‌যাপন|352525|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৭ মার্চ, ২০২২ ২১:২৯
বিশ্ব নাট্য দিবস উদ্‌যাপন
নিজস্ব প্রতিবেদক

বিশ্ব নাট্য দিবস উদ্‌যাপন

বিশ্বের ৩৭টি দেশের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও উদ্‌যাপিত হয়েছে বিশ্ব নাট্য দিবস।

রবিবার বিকেলে দেশের বিভিন্ন স্থানে দিবসটি উপলক্ষে আয়োজিত হয় আনন্দ শোভাযাত্রা, আলোচনা, সম্মাননা প্রদান, নৃত্য পরিবেশন, সরোদ বাদনসহ বিভিন্ন সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

অন্যদিকে ইন্টারন্যাশনাল থিয়েটার ইনস্টিটিউটের অনলাইন আয়োজনে ৩৭টি দেশের নাট্যনির্দেশকদের সঙ্গে বাংলাদেশ থেকে অংশ নেন মণিপুরি থিয়েটারের সভাপতি শুভাশিস সিনহা।

এ ছাড়া দিবসটিতে বাণী দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের অপেরা ও থিয়েটারশিল্পী পিটার সেলার্স এবং বাংলাদেশের নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান।

বিকেলে ঢাকার জাতীয় নাট্যশালায় গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশন, শিল্পকলা একাডেমি ও পথনাটক পরিষদ যৌথভাবে নাট্য দিবস উদ্‌যাপন করে।

পাশাপাশি ব্রাহ্মণবাড়িয়া, হবিগঞ্জ, চট্টগ্রাম, সিলেট, ময়মনসিংহ, বরিশালসহ বিভিন্ন জায়গায় সাংস্কৃতিক পরিবেশনায় অংশ নেয় নাট্যশিল্পীরা। বিকেল ৫টায় ঢাকার জাতীয় নাট্যশালায় বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রার মধ্য দিয়ে শুরু হয় ঢাকার নাট্যশিল্পীদের আনুষ্ঠানিকতা।

পরে সন্ধ্যায় নাট্যশালার মূল মিলনায়তনে আলোচনায় অংশ নেন নাট্যব্যক্তিত্ব আতাউর রহমান, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক ও গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সভাপতি লিয়াকত আলী লাকী, নাট্যজন অনন্ত হিরা, পথনাটক পরিষদের সভাপতি মিজানুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক আহাম্মেদ গিয়াস এবং গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক চন্দন রেজা।

দিবসের বাণী পাঠ করেন নাট্যজন লাকী ইনাম ও আফরোজা বানু। অনুষ্ঠানে নাট্যজন মাসুদ আলী খান ও আরহাম আলোকে ‘নাট্য দিবস সম্মাননা’ প্রদান করা হয়।

একই সময়ে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় বিশ্ব নাট্য দিবস উদ্‌যাপন করেছে সাহিত্য একাডেমি।

শহীদ ধীরেন্দ্রনাথ ভাষা চত্বর থেকে বিকেলে শোভাযাত্রা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে বঙ্গবন্ধু স্কয়ারে গিয়ে শেষ হয়। পরে জাতীয় বীর আবদুল কুদ্দুছ মাখন মুক্তমঞ্চে আলোচনা সভা ও নাটক প্রদর্শন করে সাহিত্য একাডেমির সদস্যরা।

আলোচনা সভায় সাহিত্য একাডেমির পরিচালক মণ্ডলীর সদস্য ফারুক আহমেদের সভাপতিত্বে অংশগ্রহণ করেন সাপ্তাহিক নতুন মাত্রার সম্পাদক ও নাট্য নির্দেশক আল আমিন শাহীন, উদীচীর সাবেক সাধারণ সম্পাদক নাট্যনির্দেশক ও অভিনেতা সঞ্জীব ভট্টাচার্য, নদী ও প্রাণ-প্রকৃতি সুরক্ষা সামাজিক সংগঠন নোঙর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলা শাখার সভাপতি শামীম আহমেদ ও খালেদা মুন্নী।

এ সময় ব্রাহ্মণবাড়িয়ার মুক্তিযুদ্ধের সত্য ঘটনা অবলম্বনে রচিত নাটক ‘রক্তাক্ত ৭১’মঞ্চস্থ করা হয়। নাটকটি লিখেছেন কবি জয়দুল হোসেন, নির্দেশনা দিয়েছেন আল আমিন শাহীন ও শিল্প নির্দেশনা দিয়েছেন পাভেল রহমান।

অভিনয় করেন জামিনুর রহমান, নাঈম রহমান, নুসরাত জাহান বুশরা, সাথী ইসলাম, রিপন দেবনাথ, সৈকত হোসেন জয়, নূর মাহদী এহতেশাম, সানজিদা আক্তার, সাব্বির আহমেদ, মেহেদী হাসান বিনয়, রাইসুল ইসলাম সাব্বির ও সাঈদ সরকার। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন সোহেল আহাদ।

অন্যদিকে সিলেট বিভাগের নাট্যকর্মীরা দিবসটিতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। এর মধ্যে ছিল প্রীতি সম্মিলনী, শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক পরিবেশনা।

কর্মসূচির উদ্বোধন করেন গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সিলেট বিভাগীয় সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য অনিরুদ্ধ কুমার ধর। অনুষ্ঠান পরিকল্পনায় ছিলেন গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশনের সিলেট বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মোহাম্মদ জালাল উদ্দিন রুমী। উপস্থিত ছিলেন দেশ নাট্যগোষ্ঠী শায়েস্তাগঞ্জের সভাপতি অ্যাডভোকেট হুমায়ুন কবির সৈকত, নবীন থিয়েটারের সভাপতি বাবুল মল্লিক, সুতাং থিয়েটারের সভাপতি নাসরিন হক, হারুন সাঁইসহ অনেকে।