রানা প্লাজার সেই ‘আত্মবিসর্জন’ দেয়া হিমু স্মরণে মঞ্চনাটক|357169|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ২৩ এপ্রিল, ২০২২ ২১:৩১
রানা প্লাজার সেই ‘আত্মবিসর্জন’ দেয়া হিমু স্মরণে মঞ্চনাটক
নিজস্ব প্রতিবেদক

রানা প্লাজার সেই ‘আত্মবিসর্জন’ দেয়া হিমু স্মরণে মঞ্চনাটক

রাজধানীর জাতীয় নাট্যশালার স্টুডিও থিয়েটার মিলনায়তনে শনিবার সন্ধ্যায় মঞ্চায়িত হয়েছে নাটক ‘হিমুর কল্পিত ডায়েরি’। নাট্যদল বাতিঘর ২০২০ সালের জানুয়ারিতে এ নাটকটি মঞ্চে আনে। রচনা ও নির্দেশনা দিয়েছেন মুক্তনীল।

নাট্যদল বাতিঘর জানায়, রানা প্লাজা ধসের পর নিজের হাতে অনেকের হাত-পা কেটে উদ্ধার করেছিলেন নওশাদ হাসান হিমু ওরফে হিমু হিমালয়। ঘটনার শুরুর দিন থেকে প্রায় পনেরো দিন ছিলেন ঘটনাস্থলে। পরবর্তীতে আরও টানা ১৭ দিন কাটিয়েছেন হাসপাতালে। নিজের উদ্যোগেই সেবা-শুশ্রূষা করেছেন পঙ্গু রোগীদের। এরপর থেকে চোখের সামনে ভয়াবহ সেসব স্মৃতি ভেসে আসত তার। রক্ত বা কাঁচা মাংস দেখতে পারতেন না। রানা প্লাজার সেই সব দুঃসহ স্মৃতি প্রতিদিন তাড়া করে বেড়াতো তাকে। মাঝে মধ্যে অস্বাভাবিক আচরণও করতেন। নিজের জীবন আর দেশের আর্থসামাজিক অবস্থাও হতাশ করে তুলেছিল তাকে। ২০১৯ সালের ২৪ এপ্রিল রানা প্লাজা দুর্ঘটনার ষষ্ঠ বার্ষিকীতে নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যা করেন হিমু।

নাট্য-নির্দেশক মুক্তনীল বলেন, রানা প্লাজা ধসের স্বেচ্ছাসেবক হিমু আত্মহত্যা করেছিলেন। হয়তো বিচার না হওয়ার ক্ষোভ ছিল তার, তাই তাজরীনের আগুনের মতো, নিমতলীর মতো, নুসরাতের আগুনের মতো মৃত্যু বেছে নিল সে। কী ভয়ংকর সেই অনাকাক্ষিত মৃত্যু! রাষ্ট্র কি হিমুকে মনে রেখেছে? হিমুর তৃতীয় মৃত্যুবার্ষিকী স্মরণ করতেই বাতিঘর এ নাটকটি মঞ্চায়ন করেছে।

‘হিমুর কল্পিত ডায়রী’ নাটকে একক অভিনয় করেছেন সাদ্দাম রহমান। সংগীত পরিকল্পনা করেছেন মুহিয়ান অঞ্জন, আলোক পরিকল্পনা করেছেন তানজিল আহমেদ।