দুই সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা|360254|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৪ মে, ২০২২ ০০:০০
দুই সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা
ফটিকছড়ি (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি

দুই সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে দুই সরকারি কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা করেছেন এক গৃহকর্মী। গত বৃহস্পতিবার ফটিকছড়ি থানায় সাবেক উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির ও উপজেলা আনসার কমান্ডার সাইদুল ইসলামের নামে মামলাটি করে ৪৭ বছর বয়সী ওই নারী। ধর্ষণের সহযোগী হিসেবে ইয়াকুব আলী এবং শিখা শীল নামে দুজনকেও এই মামলার আসামি করা হয়েছে।

থানায় দেওয়া অভিযোগ সূত্রে জানা যায়, উপজেলা পরিষদের পাশে ব্যক্তিমালিকানাধীন একটি ভবনের তৃতীয় তলার একই বাসায় থাকতেন উপজেলা আনসার কমান্ডার সাইদুল ইসলাম ও সাবেক নির্বাচন কর্মকর্তা হুমায়ুন কবির। ওই বাসায় রান্নার কাজ করতেন অভিযোগকারী নারী। গত ২৭ মার্চ দুপুরে ওই বাসার আরেক গৃহকর্মী শিখা শীল তাকে ফোন করে ডেকে আনেন। পরে ওই দুই কর্মকর্তা তাকে একটি কক্ষে আটকে রেখে ধর্ষণ করেন। আর আনসার সদস্য ইয়াকুব আলী ও শিখা শীল বাইরে পাহারা দেন। পরে ধর্ষণের শিকার ওই নারীকে স্থানীয় একটি ফার্মেসিতে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে ইয়াকুব আলী তাকে বাসায় পৌঁছে দেন। তার চিকিৎসা বাবদ তিন দফা ২২ হাজার টাকা দেন ওই দুই কর্মকর্তা।

তবে ঘটনার পর তাকে ঘর থেকে বের হতে দেয়নি বলে দাবি ওই নারীর। তিনি বলেন, আনসার সদস্যদের মাধ্যমে তাকে পাহারা দেওয়া হয়। বাসা থেকে বেরোতে চাইলে দুই কর্মকর্তা তাকে প্রাণনাশের হুমকি দেন।

তবে অভিযুক্ত আনসার কর্মকর্তা সাইদুল ইসলাম ধর্ষণের বিষয়টি অস্বীকার করে বলেন, ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে তাকে ফাঁসানো হয়েছে। অন্যদিকে সাবেক উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এবং বর্তমানে রামগড় উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোহাম্মদ হুমায়ুন কবির মুঠোফোনে বিষয়টি সম্পর্কে কথা বলতে অপারগতা প্রকাশ করেন। গত ২৮ এপ্রিল তিনি ফটিকছড়ি থেকে খাগড়াছড়ি জেলার রামগড় উপজেলায় বদলি হন।

ফটিকছড়ি থানার ওসি কাজী মাসুদ ইবনে আনোয়ার দেশ রূপান্তরকে বলেন, আনসার ও নির্বাচন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে। মামলাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে।