পি কে হালদার নিয়ে রুলের শুনানি হতে পারে আজ|360874|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৭ মে, ২০২২ ০৮:৫২
পি কে হালদার নিয়ে রুলের শুনানি হতে পারে আজ
নিজস্ব প্রতিবেদক

পি কে হালদার নিয়ে রুলের শুনানি হতে পারে আজ

বাংলাদেশে কয়েক হাজার কোটি টাকা আত্মসাৎ ও পাচারে অভিযুক্ত প্রশান্ত কুমার (পি কে) হালদারকে ভারতে গ্রেপ্তারের তথ্য হাইকোর্টকে অবহিত করা হযেছে। 

গতকাল সোমবার বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদার ও  বিচারপতি কাজী মো. ইজারুল হক আকন্দের হাইকোর্ট বেঞ্চে রাষ্ট্রপক্ষ এ সংক্রান্ত তথ্য উপস্থাপন করে। আদালত পি কে হালদার সংক্রান্ত দুই বছরের বেশি সময় আগে দেওয়া রুলের শুনানির জন্য আজ মঙ্গলবার কার্যতালিকায় থাকবে বলে আইনজীবীদের জানিয়েছে আদালত।

সকালে বেঞ্চের বিচার কার্যক্রম শুরু হলে রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক আদালতের উদ্দেশ্যে বলেন, গত শনিবার পি কে হালদার পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার হয়েছেন। সেখানে তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তার বিষয়ে এই বেঞ্চের দেওয়া রুল ছিল উল্লেখ করে রুলের শুনানির আরজি জানান তিনি। দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) আইনজীবী মো. খুরশীদ আলম খান এ সময় আদালতে উপস্থিত ছিলেন।

মিডিয়ার মাধ্যমে পি কে হালদারের গ্রেপ্তারের বিষয়টি তারা ইতিমধ্যে অবগত হয়েছে উল্লেখ করে হাইকোর্ট বলে, ‘আমাদের মেসেজ ক্লিয়ার। যেই হোক দুর্নীতিবাজ ও অর্থপাচারকারীদের বিষয়ে কোনো ছাড় দেওয়া হবে না। এ বিষয়ে আমরা জিরো টলারেন্স। আমরা এ নিয়ে সিরিয়াস।’

রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এ কে এম আমিন উদ্দিন মানিক দেশ রূপান্তরকে বলেন, ‘ভারতে পি কে হালদারের গ্রেপ্তারের বিষয়টি আদালতকে অবহিত করেছি। আদালত এতে সন্তোষ প্রকাশ করেছে। রুলটি বিচারাধীন রয়েছে। বিষয়টি উপস্থাপনের পর আদালত বলেছে এটি আজকের কার্যতালিকায় থাকবে।’
 
পি কে হালদার প্রথমে রিলায়েন্স ফাইন্যান্স ও পরে এনআরবি গ্লোবাল ব্যাংকের এমডি (ব্যবস্থাপনা পরিচালক) হিসেবে দায়িত্ব পালনকালে ব্যাংকবহির্ভূত আরও চারটি আর্থিক প্রতিষ্ঠান নিজ কর্তৃত্বে ও নিয়ন্ত্রণে নেন। এসব প্রতিষ্ঠান থেকে ঋণের নামে সাড়ে ৩ হাজার কোটি টাকা লোপাটের অভিযোগ ওঠে পি কে হালদার, তার পরিবারের কতিপয় সদস্য ও সহযোগীদের বিরুদ্ধে। অভিযোগ ওঠার পরপরই শোনা যায় কানাডায় পাড়ি দিয়েছেন পি কে হালদার।

২০২০ সালের ১৮ নভেম্বর একটি জাতীয় দৈনিকে পলাতক পি কে হালদার সংক্রান্ত প্রতিবেদন প্রকাশ হয়।  প্রতিবেদনটি আমলে নিয়ে ১৯ নভেম্বর স্বতঃপ্রণোদিত হয়ে রুল দেয় বিচারপতি মো. নজরুল ইসলাম তালুকদারের হাইকোর্ট বেঞ্চ। রুলে পি কে হালদারকে গ্রেপ্তারে নিষ্ক্রিয়তা ও ব্যর্থতা নিয়ে প্রশ্ন তোলে আদালত। একই সঙ্গে দায়ী ব্যক্তি  বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে কেন নির্দেশ দেওয়া হবে না, রুলে তাও জানতে চায় হাইকোর্ট।