‘বিসিএস বিশ্ববিদ্যালয়’ খোলা হলে দারুণ চলবে কিন্তু: সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম|361321|Desh Rupantor
logo
আপডেট : ১৯ মে, ২০২২ ২২:৪৪
‘বিসিএস বিশ্ববিদ্যালয়’ খোলা হলে দারুণ চলবে কিন্তু: সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম
নিজস্ব প্রতিবেদক

‘বিসিএস বিশ্ববিদ্যালয়’ খোলা হলে দারুণ চলবে কিন্তু: সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম

শিক্ষাবিদ ও কথাসাহিত্যিক সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেছেন, ‘বিসিএস বিশ্ববিদ্যালয় নামে একটা বিশ্ববিদ্যালয় খোলা হোক। সেখানে “প্রিলিমিনারি পরীক্ষা”, “ভাইভা” ইত্যাদি নামে বিভাগ থাকবে। দারুণ চলবে কিন্তু।’

বৃহস্পতিবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের অধ্যাপক মোজাফফর আহমেদ চৌধুরী মিলনায়তনে এক পাবলিক লেকচারে সভাপতির বক্তব্যে সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম এসব বলেন। 
বিশ্ববিদ্যালয়ের নাজমুল করিম স্টাডি সেন্টার ‘৫০-এ বাংলাদেশ: অতীত, বর্তমান এবং চ্যালেঞ্জ’ শীর্ষক এই বক্তৃতার আয়োজন করে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইংরেজি বিভাগের সাবেক এই অধ্যাপক বলেন, বিসিএস বিশ্ববিদ্যালয় সবচেয়ে জনপ্রিয় বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে যাবে। ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য হওয়ার ক্ষেত্রে শিক্ষকেরা পাত্তা পাবেন না। অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তাদের সেখানে প্রাধান্য দেওয়া হবে। 

তিনি বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, সহ-উপাচার্য, প্রক্টর ইত্যাদি হওয়ার জন্য আজকে শিক্ষকদের মধ্যে দলাদলি। আমি মনে করি, আত্মসমালোচনার প্রয়োজন আছে। আমরা সব সময় অন্যের দিকে আঙুল তুলি, নিজের দিকে তুলি না। সমালোচনা যদি সবার ভেতর থেকে শুরু হতো, তাহলে হতাশা থাকত না।’

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, ‘এর জন্য আমরা নিজেরাই হয়তো দায়ী। আমাদেরই একজন শিক্ষককে সেদিন বলতে শুনলাম, “চেতনাপন্থী”৷ এর মানে কী? আমি একাত্তরকে জানব না, এর বিপরীতে দাঁড়াব আর এই দেশে থাকব, সেটি কি সম্ভব?’ 

সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম বলেন, ‘এই দেশেরই কিছু মানুষ একাত্তরে স্বজন হত্যা করেছে। এতে তারা লজ্জা পায়নি, ক্ষমা চায়নি এবং ভুলও স্বীকার করেনি। এখনো তারা সদম্ভে কথাগুলো বলে যাচ্ছে। আমাদের দেশের এক বিশাল সংখ্যার মানুষ এখনো একাত্তরকে গ্রহণ করতে পারেনি।’

বক্তৃতা অনুষ্ঠানে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সেন্টার ফর জেনোসাইড স্টাডিজের পরিচালক ইমতিয়াজ আহমেদ। তার প্রবন্ধের ওপর আলোচনায় অংশ নেন বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ল অ্যান্ড ইন্টারন্যাশনাল অ্যাফেয়ার্সের পরিচালক ও জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান। 

নাজমুল করিম স্টাডি সেন্টারের পরিচালক আ ক ম জামাল উদ্দীনের সঞ্চালনায় এই বক্তৃতা অনুষ্ঠানে আরও বক্তব্য দেন সাবেক রাষ্ট্রদূত ও জাতিসংঘের সেন্ট্রাল ইমার্জেন্সি রেসপন্স ফান্ড-অ্যাডভাইজারি গ্রুপের উপদেষ্টা মো. আবদুল হান্নান।